দেশকে সমৃদ্ধশালী করার জন্য আমরা কাজ করছি’ : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

pm10-1.jpg

কক্সবাংলা ডটকম(১০ জানুয়ারী) :: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ৭৫’র পর থেকে দেশে ষড়যন্ত্রের রাজনীতি শুরু হয়। ১০ জানুয়ারি বাঙালির ইতিহাসে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ দিন। বাংলাদেশের অবিসংবাদিত নেতা ফিরে এসেছিলেন। তিনি একটি স্বাধীন দেশ কিভাবে পরিচালিত হবে সেই পথ দেখিয়েছিলেন। একটি বিধ্বস্ত দেশকে গড়ে তোলার কাজ শুরু করেছিলেন। প্রতিটি মানুষের মনে উন্নয়নের আশা জেগেছিল। ঠিক সেই সময় অন্ধকার ১৫ আগস্ট নেমে এসেছিল।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আয়োজিত আওয়ামী লীগের সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সংসদ নেতা বলেন, এক দিকে দেশের সমস্থ কিছু ধ্বংসের দিকে নিয়ে যায় জিয়াউর রহমান। জাতির পিতা যদি বেঁচে থাককেন আরো ২৫-৩০ বছর আগেই বাংলাদেশ উন্নত দেশের পরিণত হতো।

আজ মঙ্গলবার দুপুর আড়াইটার দিকে এ সমাবেশ শুরু হয়েছে। এর আগ বেলা ৩টা ২৫ মিনিটে সমাবেশ স্থলে তিনি উপস্থিত হন। সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে দলের উপদেষ্টা ম-লির সদস্য তোফায়েল আহমেদ, সভাপতি ম-লির সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরী, মোহাম্মদ নাসিম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। সমাবেশটি পরিচালনা করেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং দলের মুখপাত্র ড.হাছান মাহমুদ। এ সমাবেশে সর্বস্তরের মানুষের ঢল নেমেছে।

তারও আগে দুপুর ১২টার পর থেকেই সমাবেশস্থলে আসতে শুরু করেছে দলের নেতাকর্মীরা। ঢাকা মহানগরসহ দেশের জেলা-উপজেলা থেকে দলের সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা আসা শুরু করেছেন। দলীয় ব্যানার, ফেস্টুন নিয়ে তারা মিছিল করতে করতে উদ্যানে প্রবেশ করতে থাকেন।

সমাবেশ শুরু হওয়ার অনেক আগে থেকেই সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের পশ্চিম দিকে ছবিরহাট গেট, টিএসসি গেট, কালীমন্দির গেট এবং তিন নেতার মাজার গেট দিয়ে সমাবেশে প্রবেশ করে জনসভায় অংশ নিতে আসা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। ঢোল-করতাল নিয়ে বিভিন্ন স্লোগানে নেতাকর্মীরা মুখরিত করে তোলে সমাবেশের আশপাশের এলাকা।

প্রসঙ্গত, ১৯৭২ সালের ৮ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধু পাকিস্তানি কারাগার থেকে মুক্তি পেয়ে লন্ডন যান। সেখান থেকে নতুন দিল্লি হয়ে স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশের মাটিতে পা রাখেন ১০ জানুয়ারি। তার প্রত্যাবর্তনের মাধ্যমে বাংলাদেশ নবযাত্রা শুরু করে। অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অগ্রযাত্রা দ্রুত শুরু হয়। মিত্রবাহিনী দ্রুত ফিরে যায়। একটি আধুনিক সংবিধান জাতি লাভ করে। বাস্তবিক অর্থে বঙ্গবন্ধুর প্রত্যাবর্তনের মাধ্যমে স্বাধীনতা পূর্ণতা পায়।

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Top
error: কপি করা নিষেধ!!