Home কক্সবাজার কক্সবাজার পুলিশ লাইনের পাশেই সরকারী সম্পত্তি দখলে নিল হোটেল কক্সটুডের ‘সুইট ড্রীম’

কক্সবাজার পুলিশ লাইনের পাশেই সরকারী সম্পত্তি দখলে নিল হোটেল কক্সটুডের ‘সুইট ড্রীম’

139
SHARE

আব্দুল আলীম নোবেল(৪ ফেব্রুয়ারী) :: জমির দাগ খতিয়ান ট্রেসম্যাপ গোজাঁমিল করে কক্সবাজারে সুুইট ড্রীম ম্যানেজমেন্ট দখল করলো সরকারী খাস জমি। এই সুইট ড্রীম ম্যানেজমেন্ট তারকামানের হোটেল কক্স টুডের একটি সহযোগি প্রতিষ্ঠান। বেশ কয়েক বছর ধরে ভূমি প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে এই ধরণের প্রতারণার আশ্রয় নেই এই প্রতিষ্ঠানটি।

ইতোমধ্যে তারা সেখানে দেওয়াল ও টিন সেটঘর তৈরি করে অবস্থান করে আসছে। কক্সবাজার শহরতলী বাসটার্মিনাল-কলাতলী সড়কস্থ কক্সবাজার জেলা পুলিশ লাইনের পশ্চিম পাশে সরকারের কয়েক কোটি টাকার সম্পাদ দখল করে আছে তারা। শুধু তা নয় এই সুই ড্রীম প্রতিষ্ঠানটি কক্সবাজারের বিভিন্ন এলাকায় অনেক জমি ক্রয় করেছে।

তার মধ্যে অনেক জমি ক্রয় করার ক্ষেত্রে তারা নানা কায়দা কৌশল করে প্রতারণার আশ্রয় নিয়েছে এমন অভিযোগ তাদের বিরুদ্ধে। তাদের বেশ কিছু জমি সম্প্রতি জেলা প্রশাসনের নির্দেশে উচ্ছেদ করেছে বলে জানাগেছে।

কক্সবাজার সদর ভূমি অফিসের কানুনগো বসন্ত কুমার চাকমা, সার্ভেয়ার জাহাঙ্গীর আলম ও ইউনিয়ন সহকারী কর্মকর্তা আবুল হোসেনের বক্তব্য সূত্রে জানা যায়, সুইট ড্রীম ম্যানেজমেন্ট এর পক্ষে পরিচালক আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরী কর্তৃক ৪৯৮৩/২০০১ নং দলিলে মূলে ১৭০৫০ দাগের ০.৪০ একর জমি দক্ষিল কলাতলী এলাকার বাসিন্দা সাহাব উদ্দিন পিতা কানু প্রকাশ কালু মিয়ার কাছ থেকে ক্রয় করেন। পরে যেটি ৪৫৭৮/২০০১ নং মামলা মূলে নামজারি জমা-ভাগ সম্পন্ন করে ১০১৪২ নং খতিয়ান সৃজন করা হয়।

অপর দিকে সাহাব উদ্দিন, রেকডীয় মালিক নুরুল কবির পিতা সোনা আলী কক্সবাজার সদর চৌফলন্ডী এলাকার বাসিন্দার নিকট থেকে ৪৮৮৩/২০০৯ নং দলিল মুলে ১৭০৫০ দাগের ০.৭৯০০ একর জমি ক্রয় করেন বলে জানাগেছে। যেটি ১৭৮৬/২০০১১ নং নামজারী জমা-ভাগ সম্পন্ন করে পরে তারা ৯২৮৩ নং খতিয়ান সৃজন করেছে।

এর প্রেক্ষিতে সাবাহ উদ্দিন ৪৮৮৩/২০০৯ দলিলের ১৭০৫০ দাগে তার দখল অনুযারী যে ট্রেস ম্যাপ দেয়া আছে তার সাথে সুইট ড্রীম ম্যানেজমেন্ট এর দলিলের ম্যাপের সাথে কোন কিছুর মিল নেই। এছাড়া সুইট ড্রীম ম্যানেজমেন্ট এর প্রকৃত জমির অবস্থান ও বর্তমান দখলের মাঝে ১৭৫৯২ দাগে অবস্থিত এবং সুইটি ড্রীম ম্যানেজমেন্ট জমির অবস্থানের মধ্যে দূরুত্ব প্রায় ২০০ মিটার।

সুইট ড্রীম ম্যানেজমেন্ট নামে এই প্রতিষ্ঠানটির কর্তৃপক্ষরা তাদের জমির আসল দাগ গোপন করে তারা প্রধান সড়কের পাশে সরকারী জমি দখল করেছে। জমির প্রথম পক্ষের মালিক সাহাব উদ্দিন ও সুইট ড্রীমের পরিচালক আব্দুল কাইয়ুমের যোগসাজছে এই ধরণের প্রতারণার আশ্রয় নিয়েছে বলে জানগেছে।

কক্সবাজার সদর উপজেলা সহাকারী কমিশনার(ভূমি) মোঃ নাজিম উদ্দিন জানান, এই বিষয়ে সরজমিনে পরিমাপ ও সকল রেকডপত্রাদি বিশ্লেষণ পূর্বক এইটি ষ্পষ্ট প্রতিয়মান হয়েছে যে সুইট ড্রীম ম্যানেজমেন্ট অবৈধভাবে সরকারী মহামূল্যবান সরকারী খাস জমি জবর দখল করেছে। জেলা প্রশাসকের সাথে আলপা করে তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ ব্যাপারে হোটেল দি কক্স টুডের পরিচালক (অপরারেশন সাখাওয়াত হোসেনের সাথে মোবাইল ০১৭১১-৪৩২৯৪৪ ও টেলিফোন নং-০৩৪১-৫২৪১০-২২ ও হটলাই নং-০১৭৫৫৫৯৮৪৪৬-৫০তে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও ফোন রিসিভ না করায় কথা বলা সম্ভব হয়নি।

একই সাথে দি কক্স টুডের ব্যবস্থাপনা ও সইট ড্রীম ম্যানেজমেন্ট লিঃ এর পরিচালক আবদুল কাইয়ুম এর সাথেও অসংখ্যবার তার ০১৯৭৯-৪৪৪১০০ নাম্বারে কল করেও তিনি মোবাইল রিসিভ করেননি।

উল্লেখ্য গত ১লা ফেব্রুয়ারি কক্সবাজার জেলা প্রশাসকের নির্দেশে টেকনাফের বাহারছড়া ইউনিয়নের শীলখালী মৌজায় হোটেল কক্সটুডে কতৃক সুুইট ড্রীম ম্যানেজমেন্ট’র নামে অবৈধভাবে দখলকৃত ১ একর ১০ শতক জমি উদ্ধার করা হয়।

টেকনাফ উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট প্রনয় চাকমার অভিযান পরিচালনা করে ৫ কোটি টাকা মূল্যের ১ একর ১০ শতক জমি উদ্ধার করেন।

এসময় অভিযান পরিচালনাকারী নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট প্রনয় চাকমা জানান,প্রভাবশালী অবৈধ দখলদার ও ভূমি দস্যুদের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে।

 

SHARE