Home কক্সবাজার দৈনিক হিমছড়ি’র ২১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে বক্তারা : আদর্শের মশাল জ্বালিয়ে এখনো টিকে আছে...

দৈনিক হিমছড়ি’র ২১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে বক্তারা : আদর্শের মশাল জ্বালিয়ে এখনো টিকে আছে হিমছড়ি

103
SHARE

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি(৬ ফেব্রুয়ারি) :: কক্সবাজারে বর্ণাঢ্য আয়োজনে দৈনিক হিমছড়ি’র ২১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে।

৬ ফেব্রুয়ারী মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১ টায় দৈনিক হিমছড়ির ২১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে কক্সবাজার প্রেসক্লাব মিলনায়তনে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে ট্যুরিষ্ট পুলিশের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার হোসাইন মো: রায়হান কাজেমী বলেন, কারো মুখের কথা শুনে লিখে দেয়া সাংবাদিকতা নয়, সংবাদ প্রকাশের আগে যাচাই করতে হবে। যাচাই-বাচাই ছাড়া সংবাদ প্রকাশে ঝুঁকি থাকে কর্তৃপক্ষ ও সংশ্লিষ্ট রিপোর্টারের।

তিনি বলেন, সংবাদপত্রের কাজ হলো পথ দেখানো। সংবাদপত্রের প্রথম বিবেচনা হচ্ছে পাঠক। সংবাদপত্রের কাছে পাঠকের অনেক চাহিদা ও আশাআকাঙ্খা থাকে। পাঠকের সেই আগ্রহের জায়গাটি স্পর্শ করা, জানার তৃষ্ণা মেটানোই একটি পত্রিকার আরাধ্য হওয়া উচিত।

দৈনিক হিমছড়ির প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ও দৈনিক ইনকিলাবের বিশেষ সংবাদদাতা শামসুল হক শারেক এর সভাপতিত্বে ও সম্পাদক হাসানুর রশীদের পরিচালনায় আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে প্রবীণ সাংবাদিক আমিনুল হক চৌধুরী বলেন, দৈনিক হিমছড়ি ২১ বছর ধরেই তাদের ঐতিহ্যের সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছে। সত্য ও ন্যায়ের পক্ষে শুরু থেকে এ পর্যন্ত আপোষহীনভাবে গণমানুষের সামনে দৃঢ় অবস্থান বজায় রেখেছে।

সংবাদপত্র ও সাংবাদিকতা নিয়ে ষড়যন্ত্রকারীদের অপতৎপরতার বিরুদ্ধে সাংবাদিকদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানান তিনি।

সৈকত সম্পাদক ও কক্সবাজার প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান বলেন, জেলায় বাজারে আসা ৩য় পত্রিকা দৈনিক হিমছড়ি দীর্ঘ ২১ বছরে পাঠকের তৃষ্ণা নিবারণের ভেতর দিয়ে সকলের মন স্পর্শ করতে পেরেছে।

সব সময় দেখে আসছি পাঠকের চাহিদা পূরণে। সংবাদ পরিবেশনে কোনো পক্ষপাতিত্ব নয়, সত্য তুলে ধরতে পিছপা হয়নি। ঘটনার আড়ালে যে ঘটনা, তা তুলে ধরার ঝুঁকি নিতেও দ্বিধা করেনি।

সভাপতির বক্তব্যে হিমছড়ির প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক শামসুল হক শারেক বলেন, দেখতে দেখতে ২১টি বছর পার করে দিল কক্সবাজারের উন্নয়ন সাংবাদিকতায় বিশ^াসী পত্রিকা দৈনিক হিমছড়ি।

১৯৯৬ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি স্বপ্নের কক্সবাজারকে সফল করে গড়ে তোলার অঙ্গীকারে পাঠকের হাতে হাতে উঠে আসা দৈনিকটি পা ফেলছে ২২ বছরে। পাঠকের অমলিন ভালোবাসায় সিক্ত ২১ বছরের পথচলা, এই ২২ বর্ষে পদার্পণ।

নানা চড়াই-উতরাই, ঘাত-প্রতিঘাত অতিক্রম করে ২২ বছরে পদার্পণ, একটি পত্রিকার জন্য চাট্টিখানি কথা নয়। শুধুমাত্র পাঠকের অশেষ ভালোবাসার জন্য পত্রিকাটি নিঃশেষ হয়নি, বরং টিকে আছে সগৌরবে। তিনি হিমছড়ির উত্তরোত্তর সফলতা কামনা করেন।

সভায় আরো বক্তব্য রাখেন দৈনিক বাঁকখালী সম্পাদক সাইফুল ইসলাম চৌধুরী, কক্সবাজার পিটিআইয়ের সাবেক সুপার নাসির উদ্দিন, সিনিয়র আইনজীবী নজরুল-আব্বাস উদ্দিন সেন্টারের সভাপতি এড. রমিজ আহমদ, সানিবীচ ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের সভাপতি মহিউদ্দিন চৌধুরী, শিক্ষাবিদ বোবহান আহমদ চৌধুরী, দৈনিক সকালের কক্সবাজার সস্পাদক ফরহাদ ইকবাল, সিনিয়র সাংবাদিক কামাল হোসেন আজাদ, মমতাজ উদ্দিন বাহারী ও জিএএম আশেক উল্লাহ, কক্সবাজার ৭১ পত্রিকার প্রকাশক বেলালউদ্দিন।

অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সিনিয়র সাংবাদিক দৈনিক সৈকত এর নির্বাহী ও বার্তা প্রধান আনছার হোসেন, সৈকত কিন্ডার গার্টেন পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক রফিক উল্লাহ মুকুল, কক্সবাজার পরিবেশ বন সংরক্ষণ পরিষদের সভাপতি মোহাম্মদ উর রহমান মাসুদ, সাংবাদিক ইব্রাহীম খলিল মামুন, দীপন বিশ্বাস, ইমাম খাইর, আরফাতুুল মজিদ, এইচএম নজরুল, আনোয়ার হাসান চৌধুরী, কক্সবাজার আলো প্রকাশক মুহাম্মদ শাহ জাহান, আজিজ রাসেল, শাহেদ মিজান, আতিকুর রহমান মানিক, উপকুলীয় সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি স. ম ইকবাল বাহার চৌধুরী, আমান উল্লাহ, ইসলাম মাহমুদ, আজিম নিহাদ, এইচএন আলম, মোহাম্মদ তারেক, ছৈয়দ আহমদ ফরমান, নিজাম উদ্দিন, এমডি ফরিদ, হাফেজ আহমদ জিশান, ইমন বড়–য়া প্রমুখ।

কুরআন তেলাওয়াত করেন বিজ্ঞাপন ও হিসাব বিভাগের ইনচার্জ এহতেশামুল হক।
বিকেলে দৈনিক হিমছড়ির যুগ্ন বার্তা সম্পাদক হুমায়ুন সিকদারের পরিচালনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

সন্ধ্যায় বিভিন্ন সামাজিক, সাংবাদিক সংগঠন ও ব্যাক্তি দৈনিক হিমছড়ি সম্পাদককে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।

 

SHARE