Home বিনোদন বলিউডের প্রথম ‘নারী সুপারস্টার’ শ্রীদেবী আর নেই : শোকাচ্ছন্ন বলিউড

বলিউডের প্রথম ‘নারী সুপারস্টার’ শ্রীদেবী আর নেই : শোকাচ্ছন্ন বলিউড

169
SHARE

কক্সবাংলা ডটকম(২৫ ফেব্রয়ারি) :: শ্রীদেবীর মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে বলিউডে। মাত্র ৫৪ বছর বয়সে এই শক্তিমান অভিনেত্রীর মৃত্যুকে ভারতীয় সিনেমা জগতের এক অপূরণীয় ক্ষতি হিসেবে দেখছেন তার সহশিল্পীরা।

শনিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত মধ্যরাতেই টুইটার ভরে গেছে শোকাচ্ছন্ন বার্তায়। পরপারে যেন ভালো থাকেন শ্রীদেবী- সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে দেওয়া পোস্টে এমন কামনা ছিল ভক্তদের।শ্রীদেবীর মৃত্যু নিয়ে তারকা শিল্পীদের টুইট-

অমিতাভ বচ্চন: কেন জানি না, অদ্ভুত অস্থিরতায় ভুগছি।

রজনীকান্ত: আমি মর্মাহত। একজন প্রিয় বন্ধুকে হারালাম। সিনেমা জগত হারাল সত্যিকারের কিংবদন্তিকে। তার জন্য ব্যথা অনুভব করছি।

সুস্মিতা সেন: শুনলাম শ্রীদেবী ম্যাম চলে গিয়েছেন। কান্না থামাতে পারছি না।

প্রীতি জিনতা: আমার অল টাইম ফেভারিট শ্রীদেবী। তিনি আর নেই শুনে আমি শকড। তার আত্মার শান্তি কামনা করছি। ঈশ্বর তার পরিবারকে এই পরিস্থিতির সঙ্গে লড়াই করার শক্তি দিন।

বোমান ইরানি: ঘুম ভাঙল এই শকিং খবরটা শুনে। আমাদের শ্রীদেবীজি আর নেই। বনি এবং তার পরিবারের প্রতি সমবেদনা।

নেহা ধুপিয়া: শ্রীদেবী ম্যাম নেই! আমরা আমাদের ইন্ডাস্ট্রির সেরা অভিনেত্রীকে হারালাম।

প্রিয়াঙ্কা চোপড়া: আমার সত্যিই কিছু বলার নেই। শ্রীদেবীকে যারা ভালবাসতেন, সবার প্রতি সমবেদনা। আজ একটা অন্ধকার দিন।

জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজ: আমরা একজন আইকনকে খুব তাড়াতাড়ি হারালাম।

সিদ্ধার্থ মালহোত্রা: শ্রীদেবী ম্যাম নেই শুনে সত্যিই শকড।

আদনান সামি: শেষ রাতে শ্রীদেবীর খবরটা শুনে আমি আর কথা বলার মতো অবস্থায় নেই। অসাধারণ প্রতিভা। রেস্ট ইন পিস।

শ্রীদেবীরাবিনা টেন্ডন: আকস্মিক মর্মান্তিক খবরে জেগে উঠলাম। বিশ্বাস করতে পারছি না! দুঃখজনক খবর। ভাষা হারিয়ে ফেলেছি। কাউকে বোঝাতে পারবো না। কেন এত দ্রুত চলে গেলেন শ্রী?

অনুপম খের: আকস্মিক ও মর্মান্তিক। আমি কি দুঃস্বপ্নের মধ্যে রয়েছি। শ্রীদেবী নেই? এটা খুব দুঃখের। এটা ঠিক হলো না। একজন অনবদ্য, মার্জিত ও প্রতিভাবান অভিনেত্রী ছিলেন।

জনি লিভার: শ্রীদেবীজির মৃত্যুতে গভীরভাবে শোকাহত। তার পরিবারের প্রতি সমবেদনা রইলো।

মাহিরা খান: শ্রীদেবী, আপনার কাজ দেখে বড় হয়েছি। আমাদেরকে ঋদ্ধ করার জন্য ধন্যবাদ। আপনি আপনার কাজের মধ্যে দিয়ে বেঁচে থাকবেন।

মনোজ বাজপেয়ী: মর্মান্তিক খবর। খুবই অস্বস্তিকর।

প্রসঙ্গত, দুবাইতে বিয়ের অনুষ্ঠানে গিয়ে আকস্মিক মৃত্যু হয় এই বলিউড অভিনেত্রীর। স্বামী বনি কাপুর এবং মেয়ে খুশিকে নিয়ে ওই বিয়েতে গিয়েছিলেন। কিন্তু আনন্দ অনুষ্ঠান হঠাৎই বদলে গেল শোকের ছায়ায়। হোটেলের বাথরুমে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে বিদায় নিলেন বলিউডের এই অনবদ্য অভিনেত্রী।

শ্রীদেবীর মৃত্যুর খবর প্রকাশ্যে আসার বেশ কিছুক্ষণ আগেই টুইট করেন অমিতাভ বচ্চন। তার মৃত্যুর খবর প্রকাশ্যে আসে শনিবার দিবাগত রাত ২টার কিছু পরে। কিন্তু রাত ১টা ১৫ মিনিটে অমিতাভ টুইট করেন, ‘কেন জানি না, অদ্ভুত অস্থিরতায় ভুগছি।’ যদিও এই টুইটে কোথাও শ্রীদেবীর নাম লেখেননি বলিউড শাহেনশা। কিন্তু প্রশ্ন উঠছে, তিনি কি আগে থেকে কিছু আন্দাজ করেছিলেন? নাকি তার কাছে শ্রীদেবীর মৃত্যুর খবর আগেই পৌঁছেছিল!

উল্লেখ্য, ১৯৭৮ সালে বলিউডে অভিষেক হয়েছিল মায়াবী চোখ আর মিষ্টি হাসির নায়িকা শ্রীদেবীর। শুধু হিন্দিতেই নয় বরং তামিল, তেলেগুসহ ভারতীয় নানা ভাষার সিনেমায় অভিনয় করেছেন তিনি। কোনও সুনির্দিষ্ট নায়কের সমর্থন ছাড়াই অনেক সিনেমা ব্যবসা সফল হয়েছিলো তার অভিনয় দক্ষতায়। ভারতীয় চলচ্চিত্রে যখন পুরুষ অভিনেতাদের তুমুল দাপট এবং কাহিনি ছিল নায়কনির্ভর, ঠিক সেই সময়েই শ্রীদেবী অভিনেত্রী হিসেবে বহু সিনেমায় সাফল্য এনে দিয়েছিলেন।

View image on Twitter১৯৬৩ সালের ১৩ আগস্ট তামিলনাড়ুতে জন্ম নেওয়া শ্রীদেবীর আসল নাম শ্রী আম্মা ইয়াংগার আয়য়াপন। তিনি একাধারে তামিল, তেলেগু, মালায়ালাম, কান্নাডা ও হিন্দি ছবিতে অভিনয় করেছেন।

রূপালি পর্দায় শ্রীদেবীর পথচলা শুরু হয় শিশুশিল্পী হিসেবে। চমৎকার অভিনয় আর অসামান্য নৃত্য পারঙ্গমতায় খুব দ্রুত জয় করে নেন কোটি ভক্তের হৃদয়। ২০১৩ সালে চলচ্চিত্রে অবদানের জন্য ভারতের চতুর্থ সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় সম্মান পদ্মশ্রী পেয়েছেন তিনি।

‘চাঁদনী’, ‘লামহে’, ‘মিস্টার ইন্ডিয়া’, ‘নাগিন’সহ ৯০ দশকের একের পর এক সুপারহিট চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন শ্রীদেবী। অভিনয় থেকে অবসর নিয়েছিলেন ১৯৯৬ সালে।

১৫ বছর পর বিরতি দিয়ে সাড়া জাগানো চলচ্চিত্র ‘ইংলিশ ভিংলিশ’ নিয়ে ফিরে আসেন শ্রীদেবী। এবারও অসামান্য অভিনয় করে দর্শকদের মন জয় করেন তিনি।

SHARE