Home জীবনযাত্রা প্রেমিকার সাথে বিয়ের কথা বলবেন যেভাবে

প্রেমিকার সাথে বিয়ের কথা বলবেন যেভাবে

135
SHARE

কক্সবাংলা ডটকম(২৭ ফেব্রুয়ারি) :: প্রেম করে বিয়ে করার মানে হচ্ছে নিজের পরিবারের সাথে অন্য একজন মানুষকে সংযুক্ত করা। তবে এটা কিন্তু সহজ কোনো বিষয় নয়। প্রেমে বাঁধা থাকবেই, তাই বলে কী কাপুরুষের মত পিঁছু পা হলে চলবে! প্রেমে নিষেধ-বারণ থাকবে এটাই স্বাভাবিক। এটা তো আর যোগ-বিয়োগ কোনো অংক নয়, সহজেই মিলে যাবে। কোনো না কোনো পক্ষ থেকে অসম্মতি আসবেই।

অনেকেই তো প্রেম করে থাকেন। সেই প্রেমের সম্পর্ক স্থায়ীভাবে গভীর সম্পর্কে রূপ দিতে বিয়ের প্রয়োজন পড়ে। তবে এই বিয়ের কথা অনেক প্রেমিকই বাসায় মুখ ফুটে বলতে পারে না। হাজারো চেষ্টা করেও মনের এই গোপন কথাটা না বলাই থাকে। এক পর্যায়ে যখন সময় শেষ হয়ে যায় তখন আর করার মত কোনো কিছুই থাকে না। তবে খুব সহজেই প্রেমিক তার বাসায় তার মনের কথাটা জানাতে পারেন। সে জন্য কয়েকটি টিপস জেনে নিন-

* মা, প্রতিটি সন্তানের সবচেয়ে কাছের বন্ধু। সর্বপ্রথম মাকে বিষয়টি অবগত করা প্রয়োজন। কেননা, মায়ের পক্ষে সব কিছুই ঠিক। তবে সেটা নিরব পরিবেশে মায়ের মন মেজাজ বুঝে বলতে হবে।

* মায়ের সাথে প্রেমিকার ঘনিষ্ঠতা বাড়ানোর চেষ্টা করতে হবে। একসাথে কোথাও বেড়াতে যাওয়া, শপিং করা কিংবা একসাথে বাইরে খাওয়া দাওয়া করা।

* পরিবারে মা বাবাকে বুঝিয়ে তুলতে হবে। তবে এটা সরাসরি নয়, বিভিন্ন উদাহরণের মাধ্যমে তাদের বুঝিয়ে আপনার দলে নিয়ে আসতে হবে।

* পরিবারের অবস্থা বুঝানোর চেষ্টা করতে হবে। পরিবারের ঐতিহ্য, আর্থিক অবস্থা সবকিছুই বুঝাতে হবে। কেননা, সব সময় সম-পরিবারের ছেলে মেয়েদের মধ্যে সম্পর্ক হয়ে ওঠে না। মধ্যবিত্ত পরিবারের মেয়ে যদি কখনো উচ্চবিত্ত পরিবারে বিয়ে হয় তাহলে তাকে অনেক সমস্যার মুখোমুখি হতে হয়। আর এটা পরিবারকে বুঝাতে হবে, এটা কোনো ফ্যাক্ট না। ব্যবহার ও সম্পর্কই হচ্ছে বড় বিষয়।

* দু পরিবারের মাঝে ফ্যামিলি লাঞ্চের প্ল্যানটা অনেক কার্যকরি একটি প্ল্যান। এর ফলে উভয় পরিবারই অনেক কাছাকাছি হওয়ার সুযোগ পায়।

* প্রেমিকার সব বিষয়ই যে বাবা-মার পছন্দ হবে তা কিন্তু নয়। সে জন্য বাবা-মার পছন্দ অপছন্দের বিষয়টি আগে থেকেই প্রেমিকাকে অবগত করুন। এতে করে প্রেমিকা নিজেকে পরিবর্তন করার সুযোগ পাবে।

* প্রতিটি বাবা-মা তাদের ছেলের বিয়ে নিয়ে একটু চিন্তিত থাকেন। অভিবাবকদের মনে কিছুটা ভয় থাকে। ভয় থাকাটা স্বাভাবিক। তবে যখন কী না অভিবাবকদের কাছে সবকিছু ঠিকঠাক মনে হবে তখন তারা নিজেরাই আপনার বিষয়টি মেনে নিবে।

SHARE