Home প্রবাস বাংলাদেশী শ্রমিক নিয়োগে কুয়েতের নিষেধাজ্ঞা জারি

বাংলাদেশী শ্রমিক নিয়োগে কুয়েতের নিষেধাজ্ঞা জারি

302
SHARE

কক্সবাংলা ডটকম(৫ মার্চ) :: বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক নিয়োগের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ  করেছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কুয়েত। এ নিষেধাজ্ঞা বাস্তবায়নের জন্য কুয়েতি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ খালিদ আল

জাররাহ তার নিজ মন্ত্রণালয়কে নির্দেশও দিয়েছেন। সংশ্লিষ্ট নিরাপত্তা সূত্রের বরাত দিয়ে উপসাগরীয় অঞ্চলভুক্ত দেশটির স্থানীয় সংবাদমাধ্যম আল জারিদা এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানায়।

খবর গালফ নিউজ।

বাংলাদেশী শ্রমিক নিয়োগের ক্ষেত্রে অনিয়ম ও রেসিডেন্সি পারমিটের অপব্যবহারের অভিযোগে এ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয় বলে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে। বিশেষ করে গৃহকর্মী নিয়োগের ক্ষেত্রে এ অপব্যবহারের প্রবণতা বেশি দেখা যাচ্ছে।

বিষয়টি নিয়ে কুয়েতে শক্ত আইন ও বিধি চালু থাকলেও বিদ্যমান আইন ও বিধি লঙ্ঘন করেই এসব অপব্যবহারের ঘটনা ঘটছে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়। এ নিয়ে আগে আরোপিত এক নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার পরিপ্রেক্ষিতে সম্প্রতি কুয়েতে বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক নিয়োগের সংখ্যা উল্লেখযোগ্য বেড়ে যায়।

মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোয় বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক নিয়োগের বেলায় কোনো কোনো ক্ষেত্রে বেশ জটিল নিয়োগ পদ্ধতি অনুসরণ করা হয়। প্রক্রিয়াটিতে প্রাইভেট এজেন্ট ও দালালসহ বিভিন্ন ধরনের মধ্যস্বত্বভোগী যুক্ত হয়ে পড়ায় তা আরো জটিল আকার ধারণ করে। একই সঙ্গে এ নিয়ে নানা ধরনের অবৈধ কার্যক্রম ও প্রতারণার সুযোগও তৈরি হয়।

বাংলাদেশ জনশক্তি, কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর (বিএমইটি) তথ্য অনুযায়ী, ১৯৭৬ সালে প্রথম বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক নেয়া শুরু করে কুয়েত। এর পর থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত দেশটিতে বাংলাদেশী শ্রমিক নিয়োগ হয় প্রায় ৪ লাখ ৮০ হাজার। ওই বছর নিয়োগ প্রক্রিয়ায় অনিয়ম ও বেআইনি কার্যকলাপের বিষয়টি ধরা পড়ার পর বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক আমদানিতে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে কুয়েত।

এরপর ২০১৪ সালে এ নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া হয়। কিন্তু এরপর কুয়েতের স্থানীয় নিরাপত্তা সংস্থার পক্ষ থেকে ওঠা অনিয়মের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে ২০১৬ সালে আবারো বাংলাদেশ থেকে পুরুষ গৃহকর্মী নিয়োগ কার্যক্রম সীমিত করে দেয় উপসাগরীয় অঞ্চলভুক্ত দেশটি। সে সময় কুয়েতে বাংলাদেশীর সংখ্যা ছিল প্রায় দুই লাখ।

৪৫ লাখ জনসংখ্যার দেশ কুয়েতের দুই-তৃতীয়াংশ বাসিন্দাই বিদেশী। দেশটিতে অবস্থানরত বিদেশীদের মধ্যে সংখ্যার দিক থেকে সবচেয়ে এগিয়ে ভারতীয়রা।

SHARE