Home কক্সবাজার কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে গোয়েন্দাদের সন্দেহের চোখে ভিসা বিহীন বিদেশী নাগরিক

কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে গোয়েন্দাদের সন্দেহের চোখে ভিসা বিহীন বিদেশী নাগরিক

137
SHARE

মোসলেহ উদ্দিন,উখিয়া(১৩ মার্চ) :: রোহিঙ্গা কেন্দ্রীক টুরিষ্ট ভিসায় আসা বিদেশী এনজিও কর্মীদের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। কোন রকম ভিসা বা ওয়ার্ক পারমিট ছাড়াই বিভিন্ন এনজিওতে বিদেশীরা চাকুরী করছে।

পদ- পদবী সম্বলিত আইডি কার্ড গলায় ঝুলিয়ে অফিস করছে প্রকাশ্যে। বিদেশীদের অনেকে কৌশলে টুরিস্ট ভিসার মেয়াদ শেষ হলে নিজ দেশে ফিরে গিয়ে পুনরায় একই ভিসায় এসে কর্মস্থলে কাজ করছে।

গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা জানান, কিছু ছদ্মবেশী সন্দেহজনক এনজিও কর্মীদের সাথে এসব ভিনদেশী লোকজন গলায় পরিচিতি কার্ড ঝুলিয়ে ঘুরাঘুরি করছে।
এদিকে অক্টোবর ২০১৭ থেকে এ পর্যন্ত ১শ ৮৭ জন বিদেশী লোককে আটক করে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সদস্যরা। এদের মধ্যে ১শ ৭৭ জনেরই পাসপোর্টে ভিসা বা ওয়ার্ক পারমিট আপটুডেট ছিলনা। তদুপরি পুলিশ রোহিঙ্গাদের কে মানবিক সেবার চিন্তা  মাথায় রেখে বিশেষ মুচলেকায় ছেড়ে দেয়।
সর্বশেষ গত রবিবার (১১ মার্চ) বিভিন্ন দেশের নাগরিককে উখিয়া শহীদ মিনার সংলগ্ন সড়কে পুলিশী তল্লাশী করে আটক হয় ৩৯ জন, ৩ অক্টোবর বালুখালী ও কুতুপালং শরনার্থী শিবিরে সন্দেহজনক ঘুরাঘুরি করার সময় ১শ ৫০জন বিদেশী নাগরিককে আটক করে পরে পুলিশী মুচলেকায় ছেড়ে দেয়া হয়।
এসময় কক্সবাজার জেলা প্রশাসক রোহিঙ্গা ক্যাম্পে কোন রকম বিশৃংখলা এড়াতে ও জাতীয় নিরাপত্তার স্বার্থে বহিরাগতদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়।
৬ নভেম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সন্দেহজনক ঘুরাফেরা অভিযোগে ৫ বিদেশী সহ ২৬ জনককে আটক করে মুচলেকায় ছেড়ে দেয়া হয়। সেখানে ১ জন চাইনা আপর ৪ জন যুক্তরাজ্যের নাগরিক।
২৩ ফেব্রুয়ারী ওয়ার্কপারমিট ছাড়া চলাফেরার সময় উখিয়া ত্রাণকেন্দ্রের সামনে ১১ জন বিদেশী নাগরিককে আটক করে র‍্যাব। পরে পুলিশ ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের শেষে মুচলেকায় ছেড়ে দেয়া হয়।
এদের মধ্যে যুক্তরাজ্য, ইতালী, নেদারল্যান্ড, তুরস্ক, দক্ষিন কোরিয়া, কেনিয়া, ব্রাজিল বেলজিয়াম, নরওয়ের নাগরিক ছিল।
সহকারী পুলিশ সুপার উখিয়া সার্কেলের চাই লাউ মার্মা বলেন, তারা টুরিস্ট কিংবা ব্যবসায়িক ভিসায় এসে বাংলাদেশে রোহিঙ্গা ক্যাম্পের এনজিও গুলোতে যোগ দিয়েছে। এরপরও রোহিঙ্গা জনগোস্টির মানবিক দিক বিবেচনা করে ছেড়ে দিয়েছি।
এসব বিদেশী লোকদের এনজিও সংশ্লিষ্টদের মাধ্যমে ওয়ার্ক পারমিট নিয়ে কাজ করার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।
SHARE