Home খেলা নিদাহাস টি-২০ সিরিজে ফাইনালের পথে এক ধাপ এগিয়ে গেল টিম ইন্ডিয়া

নিদাহাস টি-২০ সিরিজে ফাইনালের পথে এক ধাপ এগিয়ে গেল টিম ইন্ডিয়া

161
SHARE

কক্সবাংলা ডটকম(১২ মার্চ) :: দ্বীপরাষ্ট্রের ৭০ তম স্বাধীনতা দিবসের সেলিব্রেশন উজ্জ্বল টিম ইন্ডিয়া৷‘লঙ্কা জয়’ করে ত্রিদেশীয় টি-২০ সিরিজের ফাইনালের পথে এক ধাপ এগিয়ে গেল ভারত৷ক্যাপ্টেন রোহিতের ব্যাট ‘খামোশ’ থাকলেও প্রাক্তন ও বর্তমান নাইটের ব্যাটে সহজ জয় পায় টিম ইন্ডিয়া৷

নিদাহাস ট্রফির প্রথম ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে সহজ জয়ই পেয়েছিল শ্রীলঙ্কা। কিন্তু ফিরতি পর্বের ম্যাচে তার উল্টোটাই ঘটেছে। এবার শ্রীলঙ্কাকে সহজেই হারিয়ে প্রতিশোধ নিয়েছে ভারত। তবে আগে ব্যাট করে খুব বড় পুঁজি গড়তে পারেনি স্বাগতিকরা। শারদুল ঠাকুরের বোলিং তোপে পড়ে ১৫৩ রানের লক্ষ্য দিয়েছিল তারা।  মানিশ পান্ডে ও দিনেশ কার্তিকের দায়িত্বশীল ব্যাটে স্বাগতিকদের বিপক্ষে ৬ উইকেটের জয় ছিনিয়ে নেয় ভারত।  ৩ ম্যাচে ৪ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার শীর্ষে উঠে এলো দলটি। ৩ ম্যাচে শ্রীলঙ্কার পয়েন্ট ২। আর এক ম্যাচ কম খেলে বাংলাদেশের সংগ্রহ ২ পয়েন্ট।

শ্রীলঙ্কার দেওয়া ১৫৩ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে আকিলা ধনাঞ্জয়ার ঘূর্ণিতে পড়ে শুরুটা ভালো করতে পারেনি ভারত। দলীয় ২২ রানেই সাজঘরে ফিরে গেছেন দুই ওপেনার রোহিত শর্মা ও শিখর ধাওয়ান। দুইজনকে শিকার করেন বাঁহাতি স্পিনার ধনাঞ্জয়া। এরপর লোকেশ রাহুলকে নিয়ে ৪০ রানের জুটি গড়েন সুরেশ রায়না। এ জুটি ভাঙ্গেন নুয়ান প্রদিপ। রায়নাকে ব্যক্তিগত ২৭ রানে থিসারা পেরেরা তালুবন্দি করেন তিনি। ১৫ বলে সমান সংখ্যক ২টি করে চার ও ছক্কা নিজের ইনিংস খেলেন রায়না। এরপর খুব বেশিক্ষণ টিকতে পারেনি রাহুলও। হিট উইকেট হয়েছেন তিনি।

এরপর উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান দিনেশ কার্তিককে নিয়ে দলের হাল ধরেন পান্ডে। অবিচ্ছিন্ন ৬৮ রানের জুটি গড়েন এ দুই ব্যাটসম্যান। আর তাতেই ৯ বল হাতে রেখে ৬ উইকেটের জয় পায় ভারত। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪২ রানের ইনিংস খেলেন পান্ডে। ৩১ বলে ৩টি চার ও ১টি ছক্কায় নিজের ইনিংস সাজান তিনি। ২৫বলে ৫টি চারের সাহায্যে ৩৯ রান করেন কার্তিক। শ্রীলঙ্কার পক্ষে ১৯ রানের খরচায় ২টি উইকেট নেন ধনাঞ্জয়া।

এর আগে কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে নিদাহাস ট্রফির চতুর্থ ম্যাচ বৃষ্টির কারণে সময়মতো শুরু হতে পারেনি। ফলে ম্যাচে নেমে এসেছে ১৯ ওভারে। বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচে স্লো-ওভার রেটের কারণে দুই ম্যাচ নিষিদ্ধ হয়েছেন দিনেশ চান্দিমাল। তার নিষেধাজ্ঞায় এ ম্যাচে লঙ্কান দলের দায়িত্ব পড়েছে থিসারা পেরেরার উপর। টস জিতে শ্রীলঙ্কাকে ব্যাটিং করার আমন্ত্রণ জানান ভারত অধিনায়ক রোহিত শর্মা। ব্যাটিংয়ে শুরুটা ভালো করলেও ৩৪ রানেই দুই উইকেট হারিয়ে ফেলে চাপে পড়ে দলটি।

এরপর তৃতীয় উইকেটে উপুল থারাঙ্গাকে নিয়ে ৬২ রানের জুটি গড়েন কুশল মেন্ডিস। তবে এ জুটি ভাঙার পর পেসার শারদুল ঠাকুরের বোলিং তোপে পড়ে শ্রীলঙ্কা। নিয়মিত বিরতিতেই উইকেট হারাতে থাকে দলটি। ফলে নির্ধারিত ১৯ ওভারে ৯ উইকেটে ১৫২ রানের বেশি করতে পারেনি দলটি। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৫৫ রানের ইনিংস খেলেন মেন্ডিস। ৩৮ বলে সমান সংখ্যক ৩টি করে চার ও ছক্কায় নিজের ইনিংস সাজান এ ড্যাশিং ওপেনার।

এছাড়া ২৪ বলে ২২ রানের ইনিংস খেলেন থারাঙ্গা। দাশুন শানাকার ব্যাট থেকে আসে ১৯ রান। ভারতের পক্ষে ২৭ রানের খরচায় ৪টি উইকেট নিয়েছেন শারদুল। ২১ রানের বিনিময়ে ২টি ওয়াশিংটন সুন্দরের। এছাড়া ১টি করে উইকেট নিয়েছেন উনাদকাট, চাহাল ও শংকর।

সংক্ষিপ্ত স্কোর :

শ্রীলঙ্কা : ১৯ ওভারে ১৫২ (গুনাথিলাকা ১৭, কুশল মেন্ডিস ৫৫, কুশল পেরেরা ৩, থারাঙ্গা ২২, থিসারা পেরেরা ১৫, জিবন মেন্ডিস ১, শানাকা ১৯, ধনাঞ্জয়া ৫, লাকমাল ৫*, চামিরা ০, প্রদিপ ০*; উনাদকাট ১/৩৩, সুন্দর ২/২১, ঠাকুর ৪/২৭, চাহাল ১/৩৪, শংকর ১/৩০, রায়না ০/৬)।

ভারত : ১৭.৩ ওভারে ১৫৩ (রোহিত ১১, ধাওয়ান ৮, রাহুল ১৮, রায়না ২৭, পান্ডে ৪২*, কার্তিক ৩৯*; লাকমাল ০/১৯, ধনাঞ্জয়া ২/১৯, চামিরা ০/৩৩, প্রদিপ ১/৩০, জিবন মেন্ডিস ১/৩৪, থিসারা পেরেরা ০/১৭)।

ফলাফল : ভারত ৬ উইকেটে জয়ী।

ম্যান অব দ্যা ম্যাচ : শারদিল ঠাকুর

SHARE