Home কক্সবাজার উখিয়ায় বনভূমিতে বহুতল ভবন নির্মাণের হিড়িক

উখিয়ায় বনভূমিতে বহুতল ভবন নির্মাণের হিড়িক

79
SHARE

মোসলেহ উদ্দিন,উখিয়া(৯ মে) :: উখিয়ার সংরক্ষিত বনভূমি দখল করে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণের হিড়িক পড়েছে। খোদ উখিয়া সদর বন রেঞ্জের নাকের ডগায় টাইপালং সড়ক সংলগ্ন পাতাবাড়ী এলাকায় বিশাল আয়তনের বনভূমি জবরদখল করে বহুতল ভবন নির্মাণের ঘটনা নিয়ে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হলেও বনভূমি সংরক্ষণের দায়িত্বে নিয়োজিত কর্তা-ব্যক্তিদের এ নিয়ে কোন প্রকার আপত্তি কিংবা অভিযোগ করতে দেখা যায়নি বলে স্থানীয়দের অভিযোগ।

পরিবেশবাদী সমাজের পক্ষ থেকে দাবী উঠেছে রোহিঙ্গা ইস্যুকে কেন্দ্র করে স্থানীয় কতিপয় প্রভাবশালী ব্যক্তিরা বনভূমি জবরদখলের জন্য কোমর বেঁধে মাঠে নেমেছে। তাদের অবৈধ আয়ের উৎস ব্যবহার করে রাতের আধাঁরে বনভূমির জায়গার উপর বহুতল ভবন নির্মাণ করলেও স্থানীয় বনরেঞ্জ কর্মকর্তা, বনবিট কর্মকর্তা ও বনকর্মীদের এই অবৈধ স্থাপনা নির্মাণে কোন বাধা বা আইনের কাছে অভিযোগ তোলছে না। যে কারনে অবৈধ দখল প্রবণতা আিশংখাজনক ভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে।

স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শী জাফর আলম, সুলতান আহমদ, নুর আলম সহ বেশ কয়েকজন সচেতন যুব সমাজ অভিযোগ করে জানান, টাইপালং সড়ক সংলগ্ন পাতাবাড়ী গ্রামের পল্লী চিকিৎসক সাইফুল ইসলাম প্রকাশ ডাক্তার কাশেম স্থানীয় বনরেঞ্জ কর্তা-ব্যক্তিদের মোটা অংকের টাকায় ম্যানেজ করে রাতারাতি বিশাল আয়তনের বনভূমির জায়গা দখল করে বহুতল ভবন নির্মাণ করছে।

সরজমিন ঘটনাস্থল উখিয়া বনরেঞ্জ থেকে এক কিলোমিটার পূর্বে টাইপালং সড়ক সংলগ্ন পাতাবাড়ী এলাকায় বনভূমির জায়গার উপর প্রায় কয়েক লক্ষ টাকার নির্মাণ সামগ্রী মজুদ রাখা হয়েছে। বহুতল ভবনে এক তলা ভবন নির্মাণের কাজ প্রায় শেষ হওয়ার পথে।

অবৈধ স্থাপনায় কর্মরত শ্রমিক আলি আহমদ জানায়, স্থাপনা তৈরি শুরু করার সময় বনবিভাগের কয়েকজন লোক এসেছিল। তবে তাদের সাথে নির্মাণাধীন ভবনের মালিক ডাক্তার কাশেমের সাথে কি কথা হয়েছে তা জানলেও অন্যান্য শ্রমিকেরা জানান, বনকর্মীদের অনুমতি নিয়ে ভবন নির্মাণের কাজ করা হচ্ছে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাওয়া হলে অবৈধ ভবন নির্মাণকারী ডাক্তার কাশেম জানান, সে রেঞ্জ কর্মকর্তা ও সংশ্লিষ্টদের অনুমতি সাপেক্ষে একটি বসতবাড়ী নির্মাণ করছে।

জায়গাটি তার জোত সম্পত্তি কি না জানতে চাওয়া ওই কাশেম দম্ভোক্তি করে বলেন, রোহিঙ্গারা যদি হাজার হাজার একর বনভূমি দখল করতে পারে, তাহলে সে কেন বনভূমিতে বসতবাড়ী নির্মাণ করতে পারবেনা?

এ প্রসংগে, উখিয়ার বনরেঞ্জ কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম খামখেয়ালিপনার সুরে বলেন, বনভূমির জায়গায় অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ করা হলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি ঘটনাস্থলে বিট অফিসার পাঠানো হবে বলে আশ^স্থ করেন।

SHARE