Home কক্সবাজার টেকনাফের হ্নীলা চৌধুরীপাড়ায় সড়কে কাঁদা পানি : দেখার কেউ নেই

টেকনাফের হ্নীলা চৌধুরীপাড়ায় সড়কে কাঁদা পানি : দেখার কেউ নেই

109
SHARE

হুমায়ূন রশিদ,টেকনাফ(৯ মে) :: টেকনাফের হ্নীলা চৌধুরী পাড়ায় কতিপয় মাদক ব্যবসায়ীদের সৃজিত নালা দিয়ে প্রবাহিত না করায় কাঁদার পানিতে আভ্যন্তরীণ সড়কটি ক্রমশ চলাচল অনুপযোগী হয়ে উঠছে। এই ব্যাপারে ভূক্তভোগী রাখাইন পল্লীর বাসিন্দা ও সাধারণ পথচারীরা সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের দ্রুত হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার হ্নীলা ঐতিহ্যবাহী চৌধুরী পাড়া রাখাইন পল্লীর জনসাধারণ এখন দেশীয় চোলাই মাদক উৎপাদনকারী ও তাদের ব্যবহৃত বর্জ্যে প্রধান সড়ক সয়লাব হওয়ায় চলাচলে চরম ভোগান্তিতে রয়েছে।

এই গ্রামের মানুষের সুবিধার্থে পল্লীর অভ্যন্তরে একটি নালা তৈরীর মাধ্যমে ড্রেনেজ ব্যবস্থার সুব্যবস্থা করা হয়। কতিপয় মাদক উৎপাদনকারী ও বিক্রেতা এই নালায় আর্বজনা ফেলে পানি চলাচলের পথ বন্ধ করে দেয়। কোন হৃদয়বান ব্যক্তি নালাটি সংস্কারে এগিয়ে না আসায় ভরাট হয়ে যায়।

এখন এই নালায় চকি উয়াও, মংক্য ছিং-মাছে-এ পরিবারের মাদকের দূর্গন্ধযুক্ত উচ্ছিষ্ট ও ব্যবহৃত পানি নালা দিয়ে যেতে না পেরে জমাট হয়ে পড়ে চরম দূর্গন্ধের সৃষ্টি হয়। মংক্য ছিংয়ের স্ত্রী মাছে নালার ড্রেন ফুটো করে পানি প্রধান সড়কে ছেড়ে দেয়।

তা এখন চারদিকে ছড়িয়ে চরম দূর্গন্ধ সৃষ্টি করায় গ্রামের লোকজনসহ সাধারণ মানুষ চলাচলে ব্যাঘাত সৃষ্টি হচ্ছে। তাই এই বিষয়টি খতিয়ে দেখে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের কঠোর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

ভূক্তভোগী মং বুসে রাখাইন জানান, এই ব্যাপারে নিষেধ করা হলেও মংক্য ছিংয়ের স্ত্রী ও মেয়েরা অমান্য করে ঝগড়ায় লিপ্ত হওয়ার চেষ্টা করে।

এই ব্যাপারে বাংলাদেশ রাখাইন বুড্ডিষ্ট ওয়েল ফেয়ার এসোসিয়েশনের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ও পল্লীর বাসিন্দা মং হ্লা ছিং বলেন, দেশীয় মদ উৎপাদন ও সেবনকালে বিশৃংখল অবস্থা গ্রামের পরিবেশ ভারী করে তুলছে। তার উপরে নালার কাঁদার পানি সড়কে ফেলে মানুষের চলাচল ব্যাহত করা খুবই দুঃখজনক। এই ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দ্রুত হস্তক্ষেপ প্রয়োজন।

SHARE