Home কক্সবাজার কুতুবদিয়ায় প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে নিজের মাথা ফাটালো মহিলা

কুতুবদিয়ায় প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে নিজের মাথা ফাটালো মহিলা

99
SHARE

এম নজরুল ইসলাম,কুতুবদিয়া(২০ মে) :: কুতুবদিয়ায় প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে নিজের মাথার  ব্লেড দিয়ে নিজে ক্ষত সৃষ্টি করার মাধ্যমে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

প্রতিপক্ষকে হয়রানী করার কু-মানসে মিথ্যা মামলায় ফাঁসাতে এমন অভিনব কৌশলের আশ্রয় নিয়েছে বলে জানা গেছে উপজেলার অমজাখালী গ্রামের সুফাইদা নামের এক মহিলা। সে ওই গ্রামের মাহমুদুল করিমের স্ত্রী। সে বর্তমানে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি আছে।

স্থানীয় আবু ছৈয়দ,সাইফুল,ছোটন, মারফত,মরতুজা ও ছৈয়দ আহমদ জানান, সুপাইদা নামের ওই মহিলা প্রায় সময় উদ্বট ঘটনার সৃষ্টি করে মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে হয়রানী করার ভয় দেখিয়ে ফায়দা লুটে আসছে।

গত ১৬ মে (বুধবার) বিকেলের ঘটনাও তার ব্যতিক্রম নয়। তারা জানান, ওই দিন এলাকার মৃত আবুল কাশেমের ছেলে আবদুল করিমের বাড়িতে কাজ করছিল কয়েকজন দিন মজুর।

এসময় আবদুল করিম বাড়িতে না থাকার সুযোগে হঠাৎ সুপাইদা বেগম নামের ওই মহিলা দিনমজুরদের লক্ষ্য করে ইট ছুড়ে মারে এবং অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে কাজে বাধাঁ দেওয়ার চেষ্টা করে। কিন্তু তাতে কোন কাজ না হলে নিজের মাথায় নিজে আঘাত করে রক্তাক্ত হওয়ার অভিনব কৌশলের আশ্রয় নেয় ওই মহিলা।

এসময় পাশাপাশি কাজ করা এক জাল মেরামতকারীর হাত থেকে ব্লেড জাতীয় একটি বস্তু জোর করে কেড়ে নিয়ে মাথার সামনের দিকে নিজে নিজে আঘাত করে রক্তাক্ত হয়ে চিৎকার করতে থাকে এবং মিথ্যা মামলায় হয়রানী করাসহ প্রতিপক্ষ আবদুল করিমকে এলাকা ছাড়া করার হুমকি- ধমকি প্রদান করে হাসপাতালে ভর্তি হয়।

জমির মালিক আবদুল করিম বলেন, আমার পিতা আবুল কাশেম ১৯৯৩ সালে স্থানীয় আবুল খায়ের এর পুত্র আলী আহমদ হতে বড়ঘোপ মৌজার, ১২১২ নং খতিয়ানের আরএস ৪৯৬৭ নং দাগের ৮ শতক জমি সাফ কবলায় রেজি: দলিল মূলে ক্রয় করেন এবং তারও আগে ১৯৮২ সালে আমার মাতা আনোয়ারা বেগম স্থানীয় আবুল খায়ের এর স্ত্রী জোলেখা বিবি হতে একই খতিয়ানের একই দাগ হতে ৪ শতক জমি সাফ কবলায় রেজি: দলিল মূলে ক্রয় করেন। তখন থেকেই ওই জমিতে বসতবাড়ি তৈরি করে পরিবার পরিজন নিয়ে ভোগ- দখলে স্থিত থেকে শান্তিপূর্ণভাবে বসবাস করে আসছি। কিন্তু হঠাৎ করে সুপাইদা নামের ওই মহিলা আমাদের ভোগ- দখলীয় জমির মালিকানা দাবি তুলে অশান্তি সৃষ্টি করার চেষ্টা করে আসছে। আমার কাছে জমি ক্রয়ের সকল কাগজপত্র থাকা সত্বেও ওই মহিলা বিভিন্ন ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে।

এলাকাবাসী সূত্রে প্রকাশ, স্থানীয় করিমের পিতা-মাতা দীর্ঘদিন আগে ওই মহিলার পিতা হতে ওই বসতভিটা রেজি:দলিল মূলে ক্রয় করে ভোগ-দখল করে আসছেন। সে জায়গায় বাড়ি তৈরি করে দীর্ঘ দিন বসবাস করছেন করিম ও তার পরিবার। কিন্তু ওই দুষ্ট মহিলা মালিকানার অবৈধ দাবী তোলে হামলা চালিয়ে ও অভিনব কৌশলের আশ্রয় নিয়ে করিম ও তার পরিবারকে হয়রানী করতে বিভিন্ন অপচেষ্টা চালাচ্ছে।

SHARE