Home কক্সবাজার পেকুয়ায় চাঁদাবাজকে ধাওয়া দিল দোকানীরা

পেকুয়ায় চাঁদাবাজকে ধাওয়া দিল দোকানীরা

133
SHARE

নাজিম উদ্দিন,পেকুয়া(২৩ মে) :: পেকুয়ায় চাঁদাবাজকে ধাওয়া দিল মুদির দোকানী। চাঁদা দাবীকে কেন্দ্র করে উপজেলার প্রধান বানিজ্যিক কেন্দ্র কবির আহমদ চৌধুরী বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

এর সুত্র ধরে পেকুয়া বাজারে উত্তেজনা দেখা দেয়। এ সময় ব্যবসায়ীদের ঐক্যবদ্ধ অবস্থান দেখতে পেয়ে দ্রুত সটকে পড়ে চাঁদা দাবীকারী ব্যক্তি।

২৩ মে বুধবার দুপুরে পেকুয়া কবির আহমদ চৌধুরী বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

বাজার বনিক সমিতির সভাপতি আক্তার আহমদ এ ব্যাপারে জানায়, মুদির দোকানদাররা বিষয়টি আমাকে অবহিত করে। আমি ব্যবসায়ীদের পরামর্শ দিয়েছি লিখিত অভিযোগ বাজার কমিটির নিকট উপস্থাপন করতে। এ ধরনের অপতৎপরতার বিরুদ্ধে আমরা সব সময় ঐক্যবদ্ধ। কোন অজুহাতে কাউকে চাঁদা দেয়া হবে না। ব্যবসায়ীরা বৈধ ব্যবসা করছে। এখানে হুমকি ও হাকাবকা করে কোন ব্যবসায়ীকে লাঞ্চিত করবে এ সুযোগ কাউকে দেয়া হবে না।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ওই দিন দুপুরে পেকুয়া বাজারে চাঁদা দাবীকে কেন্দ্র করে ব্যবসায়ীরা একাট্রা হন।

তারা জানায়, আলম ষ্টোর, নজরুল এন্ড ব্রাদার্স, রাজাখালী ষ্টোর,আশেক ষ্টোর, তোহা ষ্টোর, শাহপীর ষ্টোরসহ বেশ কিছু মুদির দোকান এর কাছ থেকে চাঁদা দাবী করা হয়েছে।

সুত্র জানায়, পেকুয়া সদর ইউনিয়নের শেখেরকিল্লাঘোনা এলাকার নাছির উদ্দিন প্রকাশ ট্রলি নাছির এ সব দোকান থেকে টাকা দাবী করে। এ সময় ব্যবসায়ী ও তার মধ্যে বাকবিতন্ডাসহ হাকাবকা হয়। এক পর্যায়ে নাছির বাজার ইজারাদারের কথা বলে এ সব টাকা দাবী করছিলেন। এ সময় তুমুল বাকবিতন্ডা হয়। এর সুত্র ধরে নাছির বেশ কয়েকজন মুদির দোকানদারকে হাকাবকাসহ গালমন্দ করে। এ সময় এ সব ব্যবসা প্রতিষ্টানের স্বত্তাধিকারী ও কর্মচারীরা দ্রুত একজোট হন।

এ সময় আলম ষ্টোরের মালিক নুরুল আলম ও নজরুল এন্ড ব্রাদার্সের মালিক নজরুল এসে প্রতিবাদ করে। এ সময় ব্যবসায়ীরা একাট্রা হয়। তারা চাঁদা না দিতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞাসহ চাঁদা দাবীকারী ব্যক্তিকে পাকড়াও করার চেষ্টা করছিলেন। অবস্থার বেগতিক দেখতে পান। এ সময় ওই ব্যক্তি দ্রুত সটকে পড়ে। ব্যবসায়ীরা তাকে ধাওয়া দেয়।

পেকুয়া বাজারের মুদির দোকানীরা জানায়, প্রতি বছর রমজানের সময় বিশেষ ব্যক্তির নাম ভাঙ্গিয়ে ওই ব্যক্তি বিপুল পরিমান অর্থ ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে হাতিয়ে নেয়। এ সব চাঁদা যারা দিতে অসম্মত হন এদের উপর নানা ধরনের হয়রানি করে তারা।

এ দিকে চাঁদাবাজি রুখতে কবির আহমদ চৌধুরী বাজারে ব্যবসায়ীরা একাট্রা হন। তারা যে কোন উপায়ে বাজারে চাঁদাবাজি থামাতে বদ্ধপরিকর।

পেকুয়া বাজারের নুরুল আলম, নজরুল ইসলাম, তৌহিদুল ইসলাম জিহান ও ইমরান সহ মুদির দোকানীরা জানায়, আমরা নিজস্ব জায়গায় ব্যবসা করছি। এখানে ইজারাদারের নামে কাউকে চাদা দেওয়া হবে না। নাছির একজন দুর্ধর্ষ চাদাবাজ। তাকে আমরা পাত্তা দেয় নি। প্রয়োজনে প্রশাসনের স্বরনাপন্ন হব। বাজার কমিটিকে জানিয়েছি। তারা ব্যবসায়ীদের স্বার্থের পক্ষে অবস্থান নিবে।

SHARE