Home কক্সবাজার টেকনাফে কাউন্সিলর একরাম ‘হত্যার’ শিউরে ওঠা অডিও ক্লিপ : সামাজিক মাধ্যমে তোলপাড়

টেকনাফে কাউন্সিলর একরাম ‘হত্যার’ শিউরে ওঠা অডিও ক্লিপ : সামাজিক মাধ্যমে তোলপাড়

257
SHARE

কক্সবাংলা রিপোর্ট(১ জুন) :: বাংলাদেশের টেকনাফে কথিত বন্দুকযুদ্ধে সেখানকার পৌর কাউন্সিলর ও স্থানীয় যুবলীগের সাবেক সভাপতি মো. একরামুল হকের নিহত হওয়ার ঘটনা নিয়ে রেকর্ডকরা অডিও প্রকাশ হওয়ার পর ঘটনা নিয়ে সামাজিক নেটওয়ার্কে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

দেশটির কিছু সংবাদমাধ্যমেও তা প্রকাশ হয়েছে।চলমান মাদকবিরোধী অভিযানের মধ্যে এমন একজন মানুষের মৃত্যুতে ক্ষোভে ফুঁসছে গোটা দেশ। একরামের ঘনিষ্টজন এবং এলাকাবাসী বলছেন, তিনি মোটেও ইয়াবা ব্যবসায়ী ছিলেন না।

এদিকে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত টেকনাফ পৌরসভার কাউন্সিলর একরামুল হকের মোবাইলের সঙ্গে তার স্ত্রী আয়েশা বেগমের মোবাইল সংযোগে রেকর্ড করা অডিও এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে পড়েছে। মোবাইলের হাজার হাজার ফেসবুক আইডিধারীরা সেই অডিও শেয়ার করছে সমানে। অনেকেই এ রকম হত্যাকাণ্ডের বিভৎসতার ঘটনা নিয়ে রেকর্ড করা মোবাইল অডিওটি পুরো শুনতে পারছেন না।

অপরদিকে নিহত একরামুলের স্ত্রী ও তার দুই কন্যা এখন ভীষণ অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। বৃহস্পতিবারই তারা চট্টগ্রাম গেছেন চিকিৎসার জন্য। গতরাত ১০টার দিকে নিহত কাউন্সিলর একরামুলের স্ত্রী আয়েশা বেগমের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ‘আমি দুই কন্যাসহ অসুস্থ হয়ে পড়েছি। তাই চট্টগ্রাম এসেছি চিকিৎসা করতে।’ গতকাল পর্যন্ত তার সঙ্গে প্রশাসনের কোনো কেউই যোগাযোগ করেননি বলে জানান।

৩১ মে ২০১৮, কক্সবাজার প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করছেন সেই জেলায় মাদকবিরোধী অভিযানে নিহত পৌর কমিশনার একরামুল হকের স্ত্রী আয়েশা বেগম। পাশে মেয়ে তাহিয়াত ও নাহিয়ান।

গত ২৬শে মে মাদক বিরোধী অভিযানে কক্সবাজারের টেকনাফে মি. হক নিহত হন।

তাঁকে বাসা থেকে র‍্যাব এবং ডিজিএফআই এর স্থানীয় দু’জন কর্মকর্তা ডেকে নেওয়ার পর হত্যা করা হয়েছে বলে তাঁর পরিবার অভিযোগ করেছে।

তবে র‍্যাব বলেছে, প্রকাশ হওয়া অডিও খতিয়ে দেখছে বাহিনীটির সদর দপ্তর।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেছেন, আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারি বাহিনীর গুলিবর্ষণের অন্যান্য ঘটনার মতো এই ঘটনাও তদন্ত করা হবে।

মাদক বিরোধী অভিযানে টেকনাফের পৌর কাউন্সিলর একরামুল হকের নিহত হওয়ার ঘটনা নিয়ে অডিও ইউটিউবে প্রকাশ হওয়ার পর তা সামাজিক নেটওয়ার্কে ছড়িয়ে পড়েছে।

তার পরিবার বৃহস্পতিবার কক্সবাজারে এক সংবাদ সম্মেলনে ঘটনার সময়কার ফোনকলের এই অডিও সাংবাদিকদের শুনিয়েছে।

সেই অডিওতে শোনা যাচ্ছে যে, একরামুল হকের নিহত হওয়ার ঘটনার সময় এবং তার আগমুহুর্তে ঘটনাস্থলে মোবাইল ফোনে তিনবার কল এসেছিল।

শেষ ফোন কলটি রিসিভ হলেও ঘটনাস্থল থেকে ফোনটিতে কেউ উত্তর দিচ্ছে না।

যিনি ফোন করেছেন, প্রথমে তার কিছুটা কথা আছে। কিন্তু পরে ঘটনাস্থল বা সেই প্রান্ত থেকে একটা ভয়াবহ পরিবেশের চিত্র পাওয়া যায় এই অডিওতে।

একরামুল হকের স্ত্রী আয়শা বেগম বিবিসিকে বলেছেন,ঘটনার আগমুহুর্তে তার দুই মেয়ে প্রথমে মি: হকের মোবাইল ফোনে কল করে তার সাথে অল্প সময় কথা বলেছিল। এই কথোপকথনে পরিস্থিতি গুরুতর মনে হওয়ায় সাথে সাথে আয়শা বেগম নিজে ফোন করেন।

তার ফোন কলটি রিসিভ করা হয়, কিন্তু অপর প্রান্ত থেকে কোনো জবাব পাননি। তিনি গুলি এবং ঘটনাস্থলের সব শব্দ শুনতে পেয়েছেন।

“আমার মেয়ে কথা বলেছিল ওর আব্বুর সাথে। তারপর মেয়ে বললো, আম্মু আব্বুকে কান্না কান্না গলায় কথা বলছে। তখন আমি সঙ্গে সঙ্গে ফোন দিলাম। আবার ফোন দিলাম।সেখানে আমার হাসবেন্ড বলতেছে, লোকটি নাজিরপাড়ার লোক হবে, আমি না। তারপর র‍্যাব একজন বলতেছে, এটাতো এটা না। আরেকজন র‍্যাব বলতেছে, আপনারা এটা। তারপরে শ্যুট করে দিছে একজন। তারপরে বলছে, ওনাকে শেষ করেছি। এখন বাইকে শ্যুট করো। তখন গাড়িতে শ্যুট করে দিছে ওনারা।”

নিচের ভিডিওতে শুনুন সেই অডিও ক্লিপ। সরাসরি শুনতে না পারলে এই লিংকে ক্লিক করুন।

বিবিসি

SHARE