Home কক্সবাজার কক্সবাজার শহরের অধিকাংশ মার্কেটে নেই শৌচাগার : দূর্ভোগে ক্রেতারা

কক্সবাজার শহরের অধিকাংশ মার্কেটে নেই শৌচাগার : দূর্ভোগে ক্রেতারা

158
SHARE

সাইফুল ইসলাম(৬ জুন) :: পর্যটন নগরী কক্সবাজার শহরে অসংখ্য আধুনিক মার্কেট থাকলেও নেই গণ-শৌচাগার। এতে প্রতিনিয়তেই ভুগছে মার্কেট আসা ক্রেতারা। শৌচাগার না থাকায় বিশেষ করে মহিলারাই বেশি ভুগছে বলে অভিযোগ সচেতন মহলের।

সামনে ঈদকে সামনে শপিংমল ও বিপনী-বিতানগুলোতে এখন ক্রেতা-দর্শকে ভরপুর। এ কারণে কয়েকদিন ধরে গভীর রাত পর্যন্ত শহরের অধিকাংশ মার্কেটে কেনাকাটা চলছে। মার্কেটে পুরুষদের তুলনায় মহিলাদের সংখ্যা বৃদ্ধি।

জানা গেছে, পুরো শহরের ২/১ টি মার্কেটে সৌচাগার রয়েছে, তাতে পুরুষদের কিছুটা সুবিধা থাকলেও নেই মহিলাদের কোন সুযোগ সুবিধা। অথচ মার্কেটে অধিকাংশই মহিলা।

সরেজমিনে শহরের ফিরোজা শপিং কমপ্লেক্সে, বার্মিজ মার্কেট, সমবায় সুপার মার্কেট, এ সালাম মার্কেট, সী-কুইন মার্কেট, আপন টাওয়ার, ফজল মার্কেট, রশিদ কমপ্লেক্স, হাশেম টাওয়ার, নিউ মার্কেট, পৌরসভা মার্কেট, হকার মার্কেটে নেই কোন শৌচাগার। ২/১ টিতে থাকলেও পুরুষেরা কোন রকম কাজ সারাতে পারলেও মহিলাদের কোন রকম সুযোগ নেই। মার্কেটে পুরুষদের চেয়ে মহিলাদের সংখ্যা বেশি।

ক্রেতারা তাদের পছন্দের পোশাক ক্রয় করতে সকাল থেকে এক মার্কেট থেকে অন্য মার্কেটে ঘুরাঘুরি করতে দেখা গিয়েছে। মাকেটে আসা অনেকেরই ছোট্ট শিশু ও মহিলারা প্র¯্রাব করতে সৌচাগার না পেয়ে এদিক সেদিক ঘুরাঘুরি করতে দেখা গেছে।

নিউ মার্কেটর কাজল নামে এক ব্যবসায়ী বলেন, এতো বড় একটি মার্কেট, যেখানে প্রায় ৪’শ মতো দোকান রয়েছে। নেই গণ-সৌচাগার। এতে চরম বিপাকে পড়তে হয় ক্রেতাদের। শেষ পর্যন্ত কেনাকেটার আগেই চলে যেতে হয় অনেক মহিলাকে।

দক্ষিণ রুমালিয়ারছড়া এলাকার মার্কেটে আসা জরিনা বেগম নামে এক মহিলা বলেন, সকাল ১০ টার দিকে মার্কেটে আসছি। তবে আমার ছেলে মেয়ে-সহ ৫ জন সন্তান রয়েছে। ফিরোজা মার্কেটে থেকে দুইজনের জন্য পোশাক ক্রয় করতে সময় লাগছে ২ ঘন্টা। হঠাৎ আমার সৌচাগার যাওয়ার দরকার পড়েছে। শেষ পর্যন্ত তিনজনের পোশাক না কিনেই বাসায় ফিরতে হলো। এভাবেই প্রতিনিয়তেই শত শত মহিলা সৌচাগারের অভাবে অর্ধেক মার্কেডিং করে চলে যেতে হচ্ছে।

এডভোকেট শওকত বেলাল জানান, মার্কেট করার সময় মালিককে নিয়ম অনুযায়ী সৌচাগারের ব্যবস্থা করতে হয়। এখন দেখছি শহরের বড় বড় মার্কেট রয়েছে, শৌচাগারের ব্যবস্থা নেই। মার্কেটে আসা অধিকাংশ মহিলা এ নিয়ে ভুগছে।

এবিষয়ে কক্সবাজার দোকান মালিক সমিতির সভাপতি আমিনুল ইসলাম মুকুল এর কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, আসলে একেবারে নেই তা নয়। পর্যাপ্ত না থাকেলও কয়েকটি মার্কেটে শৌচাগারের ব্যবস্থা রয়েছে।

SHARE