Home আন্তর্জাতিক সৌদি আরবে আবারো ধরপাকড়

সৌদি আরবে আবারো ধরপাকড়

69
SHARE
MECCA, SAUDI ARABIA - JUNE 21: (----EDITORIAL USE ONLY MANDATORY CREDIT - "BANDAR ALGALOUD / SAUDI ROYAL COUNCIL / HANDOUT" - NO MARKETING NO ADVERTISING CAMPAIGNS - DISTRIBUTED AS A SERVICE TO CLIENTS----) Saudi Crown Prince Mohammad bin Salman al-Saud (C) attends a ceremony held for pleding Saudi local emirs and other notable people's allegiance to him as the new Crown Prince of Saudi Arabia in Mecca, Saudi Arabia on June 21, 2017. Saudi Arabia's king has appointed his son Mohammed bin Salman as his crown prince, deposing his nephew Mohammed bin Nayef. In a royal decree early Wednesday, King Salman bin Abdulaziz placed deputy crown prince Mohammed bin Salman, 31, as the first in line to the throne. The decree relieved prince Mohammed bin Nayef, 57, from his position as the deputy prime minister and interior minister. (Photo by Bandar Algaloud / Saudi Royal Council / Handout/Anadolu Agency/Getty Images)

কক্সবাংলা ডটকম(৬ জুলাই) :: সৌদি আরবে আবারো রাজ পরিবারের সদস্য, মন্ত্রী এবং শীর্ষ স্থানীয় ব্যবসায়ীদের ধরপাকড় শুরু হয়েছে। গত মাসে দুর্নীতি বিরোধী অভিযান শেষ করার ঘোষণা দেওয়ার পর নতুনভাবে অভিযান শুরু হয়েছে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে ওয়াল স্ট্রীট জার্নাল।

সরকারি কর্মকর্তা এবং যাদের আটক করা হয়েছে তাদের স্বজনরা জানিয়েছেন, কোনো রকম অভিযোগ ছাড়াই আটক করে কারাগারে রাখা হচ্ছে। এমনকি পরিবারের সদস্য এবং আইনজীবীদেরও আটক ব্যক্তিদের সঙ্গে দেখা করতে দেওয়া হচ্ছে না। অবশ্য কাউকে আবার স্বল্প সময়ের জন্য দেখা করতে দেওয়ার ঘটনাও ঘটেছে।

আটক ব্যক্তিদের মধ্যে রাজ পরিবারের জ্যেষ্ঠ সদস্য প্রিন্স তুর্কি বিন আবদুল্লাহ রয়েছেন। তিনি এর আগে রিয়াদের গভর্নর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তাছাড়া দেশটির প্রয়াত বাদশাহ আবদুল্লাহর সন্তান তিনি।

সম্প্রতি তিনজন বিলিয়নিয়ারকে আটক করা হয়েছে। জানা গেছে কোনো কারণ ছাড়া সে দেশের প্রভাবশালী ব্যাংক কর্মকর্তাকেও ধরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

তবে এ ব্যাপারে দেশটির সরকারের মুখপাত্র কোনো রকম মন্তব্য করতে রাজি হননি। যদিও সৌদির ডেপুটি অ্যাটর্নি জানান, কয়েকজনকে আটক করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতি এবং সন্ত্রাসী কার্যক্রমে জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে।

SHARE