Home কক্সবাজার পেকুয়ায় বিষ প্রয়োগে মাছ নিধন

পেকুয়ায় বিষ প্রয়োগে মাছ নিধন

125
SHARE

নাজিম উদ্দিন,পেকুয়(১২ জুলাই) :: পেকুয়ায় পুকুরে বিষ প্রয়োগে মাছ নিধন করা হয়েছে। পূর্ব শত্রুতার জের ধরে গভীর রাতে অজ্ঞাত দুবৃর্ত্তরা খামারীর পুকুরে কীটনাশক প্রয়োগ করে। একইভাবে পেঁপে বাগানে দুবৃর্ত্তরা লবণ প্রয়োগ করে।

এ সময় পুকুর পাড়ে সৃজিত বিপুল পরিমান পেঁপে বাগান নিধন হয়েছে। উপজেলার টইটং ইউনিয়নের ভেলুয়ারপাড়া গ্রামে ১২ জুলাই দিবাগত রাতে এ ঘটনা ঘটে।এ সময় পুকুর থেকে বিপুল পরিমান মাছ পানিতে ভেসে উঠে।

প্রাপ্ত সুত্র জানায়, ভেলুয়ারপাড়া গ্রামে তোফাইল আহমদ নামের এক যুবক দুটি পুকুরে বানিজ্যিক ভিত্তিতে মাছ চাষ করে।

৩৬ শতক আয়তনে পুকুর ২ টিতে তোফাইল চলতি বর্ষা মৌসুমে তেলাফিয়া মাছের পোনা ছাড়ে। প্রায় ৪ মাস অতিবাহিত হয়েছে। উচ্চ ফলনশীল জাতের তেলাফিয়া চাষে ওই যুবক পরিচর্যাসহ বিপুল অর্থ ব্যয় করে।

বর্তমান সময়ে পুকুরে মাছ পরিপক্ক হয়েছে। সুত্র জানায়, ওই দিন রাতে অজ্ঞাত দুবৃর্ত্তরা পুকুরে হানা দেয়। এ সময় পুকুর পাড়ে সৃজিত পেঁপে বাগানে লবণ প্রয়োগ করে।

এ সময় বেশ কিছু পেঁপে গাছ লালছে হয়ে বিবর্ণ হয়ে যায়। গাছের গোড়ায় লবণ প্রয়োগ করা হয়েছে। তোফাইল জানায়, সকালে পুকুরে মাছ ভেসে উঠছিল। প্রায় ৫ মণের অধিক মাছ মরে যায়। উৎকট দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়ে।

কীটনাশকের একটি বোতল পুকুর পাড়ে পেয়েছি। নাইট্রো নামক কীটনাশক প্রয়োগ করা হয়েছে। মৎস্য অফিসের সাথে পরামর্শ করেছি। তাৎক্ষনিক অক্সিজেন পানিতে প্রয়োগ করেছি। একটি মুরগী মরা মাছ খেয়ে মারা যায়।

তোফাইল আহমদের স্ত্রী পারভীন আক্তার জানায়, শত্রুতা মুলক বিষ প্রয়োগ হয়েছে। স্বামী জায়গা ক্রয় করে ওই স্থানে পুকুর খনন করছিল। বেকারত্ব দুরীভূত করতে মাছ চাষ ও পুকুর পাড়ে পেঁপে চাষসহ সবজি চাষ করছিলেন।

রাতে কে বা কারা এসে সর্বনাশ করেছে। আমার স্বামীর প্রায় দুই লক্ষ টাকা ক্ষতি সাধন হয়েছে। তবে ওই নারী জানায়, প্রতিবেশী ইউনুছ, কামাল, আবু জাফর, রুহুল কাদের গং ও তোফাইলের মধ্যে বিরোধ চলছিল।

এ নিয়ে একাধিক মামলা মোকদ্দমা রয়েছে। আমার স্বামীকে হত্যার মিশন ছিল। টাকা নিয়ে কিলার ঠিক করা হয়েছিল। বিকাশে ৩০ হাজার টাকা কন্টাকে যায়। সেটি পরবর্তীতে প্রকাশ পায়। যা লেনদেনের বিষয়টি সি.সি ক্যামরায় ধারনকৃত অংশ সংরক্ষন আছে। আমার সন্দেহ তারাই সেটি করতে পারে।

চেয়ারম্যান জাহেদুল ইসলাম চৌধুরী জানায়, আসলে বিষয়টি আমি গভীরভাবে মুল্যায়ন ও যাচাই বাছাই করছি। আমি সকালে শুনেছি। যাওয়ার কথা ছিল। ব্যস্ততায় যাওয়া হয়নি।

SHARE