Home শীর্ষ সংবাদ ফেসবুক লাইভে গুজব : অভিনেত্রী নওশাবা আরও ২ দিনের রিমান্ডে

ফেসবুক লাইভে গুজব : অভিনেত্রী নওশাবা আরও ২ দিনের রিমান্ডে

131
SHARE

কক্সবাংলা ডটকম(১০ আগষ্ট) :: স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের সময় ফেসবুক লাইভে গুজব ছড়ানো ও উস্কানির অভিযোগে গ্রেফতার অভিনেত্রী কাজী নওশাবা আহমেদকে ফের দুই দিনের রিমাণ্ডে নিয়েছে পুলিশ।

শুক্রবার তার চার দিনের রিমান্ড শেষ হলে আদালতে হাজির করে আবারও রিমান্ড আবেদন করা হয়। শুনানি শেষে আদালত নতুন করে তার দুইদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এদিকে সাতদিনের রিমান্ডে থাকা আলোকচিত্রী শহিদুল আলমকে জিজ্ঞাসাবাদ অব্যাহত রয়েছে বলে ডিবি পুলিশ জানিয়েছে।

৪ আগস্ট রাজধানীর জিগাতলায় নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের ওপর হামলায় দুই ছাত্রের মৃত্যু এবং একজনের চোখ তুলে ফেলা হয়েছে বলে দাবি করে নিজের ফেসবুকে লাইভে আসেন নওশাবা। ওইদিন রাতেই উত্তরা থেকে র‌্যাব তাকে আটক করে। পরের দিন উত্তরা পশ্চিম থানায় তার বিরুদ্ধে তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি আইনে মামলা হয়। ৫ আগস্ট পুলিশের সাইবার ক্রাইম ইউনিট তাকে আদালতে হাজির করে চার দিন রিমান্ডে নেয়।

এদিকে ৪ ও ৫ আগস্ট জিগাতলা এলাকায় সংঘর্ষের বিষয়ে কথা বলতে বেশ কয়েকবার ফেইসবুক লাইভে আসেন দৃক গ্যালারী ও পাঠশালার প্রতিষ্ঠাতা আলোকচিত্রী শহিদুল আলম। ওই আন্দোলনের বিষয়ে আন্তর্জাতিক একটি টিভি চ্যানেলেও কথা বলেন তিনি। এরপরই রোববার রাতে তাকে ধানমণ্ডির বাসা থেকে আটক করে তার বিরুদ্ধে রমনা থানায় তথ্য-প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় মামলা করে পুলিশ। ওই মামলায় তিনি সাতদিনের রিমান্ডে রয়েছেন।

ঢাকা মহানগর পুলিশের সাইবার ক্রাইম ইউনিটের কর্মকর্তারা বলছেন, চারদিনের রিমান্ডে নওশাবা শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে উস্কানির বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছেন। তিনি না জেনেই ফেসবুক লাইভে মিথ্যা প্রচারণা চালিয়েছেন বলে স্বীকার করেছেন। তিনি গুজব প্রচারের পর শিক্ষার্থীরা মারমুখী হয় বলেও এ অভিনেত্রী পুলিশকে বলেছেন। সব মিলিয়ে তিনি অনুতপ্ত।

ঢাকা মহানগর পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের সাইবার ক্রাইম বিভাগের ডিসি আলিমুজ্জামান বলেন, নওশাবা জিজ্ঞাসাবাদে কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছেন। তার দেওয়া তথ্য বিস্তারিত যাচাইয়ের জন্য নতুন করে আরও দুইদিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে।

এদিকে ডিবি সূত্র জানায়, জিজ্ঞাসাবাদে শহিদুল আলম বলেছেন, শিক্ষার্থীদের আন্দোলনটিকে আন্তর্জাতিক অঙ্গণের দৃষ্টি আর্কষণের জন্য তিনি সাইবার স্পেসে তথ্য ছড়িয়েছেন। ডিবির ডিসি (উত্তর) মশিউর রহমান বলেন, শহিদুল আলম বেশকিছু তথ্য দিয়েছেন এবং সেগুলো যাচাই করা হচ্ছে।

ডিবি কর্মকর্তারা বলেন, শহিদুল আলম শিক্ষার্থীদের আন্দোলন ঘিরে কল্পনাপ্রসূত তথ্যের মাধ্যমে বিভিন্ন শ্রেণির মধ্যে মিথ্যা প্রচারণা চালিয়েছেন। উস্কনিমূলক তথ্য উপস্থাপন করে সরকারকে প্রশ্নবিদ্ধ ও অকার্যকর হিসেবে আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে উপস্থাপনের চেষ্টা করেছেন। তাকে এসব বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

SHARE