Home কক্সবাজার রামুর রত্নাগর্ভা শ্রীমতি আরতি শর্মার পারলৌকিক ক্রিয়া আদ্যাশ্রাদ্ধ সম্পন্ন

রামুর রত্নাগর্ভা শ্রীমতি আরতি শর্মার পারলৌকিক ক্রিয়া আদ্যাশ্রাদ্ধ সম্পন্ন

265
SHARE

বার্তা পরিবেশক(১৮ সেপ্টেম্বর) :: কক্সবাজারের রামু নিবাসী প্রবীণ শিক্ষক সুনিল শর্মার সহধর্মিনী ও রামু সমিতি,ঢাকা এর সাধারণ সম্পাদক বিশিষ্ঠ শিল্পপতি সুজন শর্মা ও বিজন শর্মার মাতা রত্নাগর্ভা প্রয়াত শ্রীমতি আরতি শর্মার পারলৌকিক ক্রিয়া আদ্যাশ্রাদ্ধ অনুষ্ঠান সকল ধর্মীয় আনুষ্ঠানিকতা ও ধর্মীয় রীতি অনুযায়ী সম্পন্ন হয়েছে।গত ৭ সেপ্টেম্বর তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

শ্রীমতি আরতি শর্মার পারলৌকিক ক্রিয়ার অংশ হিসেবে গত মঙ্গলবার (১৮ সেপ্টেম্বর) রামু পূর্ব মেরংলোয়া শর্মা পাড়ায় “আরতী ভবণে” আদ্যাশ্রাদ্ধ অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়। এতে কক্সবাজারের রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক,প্রশাসন, সাংবাদিক সহ হিন্দু,বৌদ্ধ ও মুসলিম সম্প্রদায়ের বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার দেড়হাজার গণ্যমান্য লোকজন উপস্থিত হয়ে শ্রীমতি আরতি শর্মার প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানান।

এ রত্নাগর্ভার পারলৌকিক ক্রিয়া অনুষ্ঠানে জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান ও জেলা মহিলা আওয়ামী লেগের সাবেক সভাপতি কানিজ ফাতেমা মোস্তাক,কক্সবাজার জেলার প্রথম ব্যারিস্টার, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের প্রাক্তন মেধাবী ছাত্র এবং বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবি পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ব্যারিস্টার মিজান সাঈদ,রামু উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান সোহেল সরোয়ার কাজল,জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি এডভোকেট রনজিৎ দাশ,হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি ও জেলা হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক প্রিয়তোষ শর্মা চন্দন, বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ভাইস চেয়ারম্যান সুপ্ত ভূষণ বড়ুয়া,মাইনোরিটি ওয়াচ্ কক্সবাজার জেলা সভাপতি ও কক্সবাংলা’র সম্পাদক চঞ্চল দাশগুপ্ত, বন্ধু’৯২ এর নেতৃবৃন্দ উপস্থিত হয়ে প্রয়াতের স্মৃতির প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানান।

এর আগে গত ১৭ সেপ্টেম্বর নিজ বাসভবন পূর্ব মেরংলোয়া শর্মা পাড়ায় “আরতী ভবণে” শ্রীমতি আরতি শর্মার মাঙ্গলিক ক্রিয়া(ঊষা কীর্ন,চন্ডী পাঠ,গুরু পূজা)সম্পন্ন করেন তাঁর সন্তান সুজন শর্মা,বিজন শর্মা ও বৈশাখি শর্মা। এতে গীতাযজ্ঞ করেন চট্রগ্রামের সীতাকুন্ডের আন্তর্জাতিক শংকর মঠ ও মিশনের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ স্বামী তপনানন্দ গিরি মহারাজ।

উল্লেখ্য মস্তিস্কে রক্তক্ষরণ জনিত কারণে গত (৭ সেপ্টেম্বর) শনিবার রাত ২টা ৯ মিনিটে ঢাকা এ্যাপোলো হাসপাতালে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন রত্নাগর্ভা শ্রীমতি আরতি শর্মা। মৃত্যুর পর গত ৮ সেপ্টেম্বর রাতে রামুর হাইটুপি বাকখালী নদী সংলগ্ন পারিবারিক শ্মশানে শ্রীমতি আরতি শর্মার শবদাহ সম্পন্ন হয়।

আর গত ১৬ থেকে ১৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত তিনদিন ব্যাপী শেষকৃত্য অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে সমাপ্ত হয় ৫৮ বছর বয়সী শ্রীমতি আরতি শর্মার জীবনের শেষ অধ্যায়।

SHARE