নাইক্ষ্যংছড়িতে রাজার সনদ বাতিল ও বনফুর বিজিবি ক্যাম্প প্রত্যাহারের ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে মানববন্ধন

ggg.jpg

আব্দুল হামিদ,নাইক্ষ্যংছড়ি(৮ অক্টোবর) :: বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়িতে রাজার সনদ বাতিল ঘোষণার প্রজ্ঞাপন জারীর দাবীতে এবং লামা উপজেলার ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের বনপুর বিজিবি ক্যাম্প প্রত্যাহারের ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে পার্বত্য নাগরিক পরিষদ ও পার্বত্য বাঙ্গালি ছাত্র পরিষদ নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা শাখার উদ্যোগে এক বিশাল মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়েছে।

সোমবার সকাল ১১ টার সময় নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা পরিষদের চির জাগ্রত বাংলাদেশ চত্বরে এই মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়।

বাঙ্গালী ঐক্য পরিষদের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা আহ্বায়ক মোঃ ছৈয়দুল আমিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মানববন্ধন কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন, পার্বত্য নাগরিক পরিষদ বান্দরবান জেলার আহ্বায়ক মোঃ আতিকুর রহমান আতিক, বাঙ্গালি ছাত্র পরিষদ বান্দরবান জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক নুরুল আজিম নিশান, উপজেলা আহ্বায়ক ছৈয়দুল আমিন প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, লামা উপজেলার গজালিয়া, লামা ইউনিয়ন, ফাঁসিয়াখালী, নাইক্ষ্যংছড়ি বাইশারী, দোছড়ি, সোনাইছড়ি, ঘুমধুম, নাইক্ষ্যংছড়ি সদর সহ পুরো জেলায় পাহাড়ী সন্ত্রাসী কর্তৃক খুন, চাঁদাবাজি, হামলা ও অপহরণ বেড়েই চলেছে।

সন্ত্রাসী কার্যক্রমকে লালন করার জন্য একটি কুচক্রী মহল দেশ প্রেমিক সেনাবাহিনী, বিজিবি ও আইন শৃংঙ্খলা বাহিনীর বিরুদ্ধে লাগাতার একের পর এক ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। বক্তারা আরো বলেন, অবিলম্বে সর্বস্তরের বাঙ্গালীদের সাংবিধানিক সম অধিকার সহ রাজার সনদ বাতিল ঘোষণার প্রজ্ঞাপন জারীর দাবিও জানান।

এছাড়া রামগতি ত্রিপুরা পাড়ায় দুই ত্রিপুরা কিশোরী ধর্ষণ ঘটনার নাটক সাজিয়ে বিজিবিকে বিতর্কিত করে বনপুর বিজিবি ক্যাম্প প্রত্যাহারে সরকারকে বাধ্য করার চক্রান্ত করা হচ্ছে। সকল বক্তারা পাহাড়ী সন্ত্রাসী কার্যক্রম বন্ধে নাইক্ষ্যংছড়ির লংগদুর মুখ, ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের গয়ালমারা ও লুলাইং এলাকায় সেনা ক্যাম্প স্থাপন এবং লামা ইউনিয়নের বলিয়ারচরে পুলিশ ক্যাম্প স্থাপনের দাবী জানিয়েছেন।

Share this post

PinIt
scroll to top