Home মহাকাশ মহাকাশের ইন্টারস্টেলার স্পেসে ঢুকতে চলেছে Voyager 2

মহাকাশের ইন্টারস্টেলার স্পেসে ঢুকতে চলেছে Voyager 2

109
SHARE

কক্সবাংলা ডটকম(১৮ অক্টোবর) :: নাসা’র ভয়েজার 2 প্রোব মহাকাশযান মহাজাগতিক রশ্মি বৃদ্ধির মুখে পড়েছে। 1977 সালে মহাকাশে পাঠানো হয় এই যানটি। আমাদের সোলার সিস্টেমের বাইরে উদ্ভূত মহাজাগতিক রশ্মি বৃদ্ধি নির্দেশ করে যে এই মহাকাশযানটি ইন্টারস্টেলার স্পেসের কাছাকাছি পৌঁছে গিয়েছে।

ভয়েজার 2 আগে হেলিওস্ফিয়ারের একেবারে বাইরের দিকে অবস্থান করত। হেলিওস্ফিয়ার হল সূর্যের চারপাশে ও গ্রহদের চারপাশের সুবিশাল বুদ্বুদ যা সৌর উপাদান এবং চুম্বক ক্ষেত্র দ্বারা প্রভাবিত। ভয়েজার 1-এর পরে এটিই মানুষের তৈরি দ্বিতীয় মহাকাশ যান যা ইন্টারস্টেলার স্পেসে ভ্রমণ করবে, শুক্রবার এক বিবৃতিতে জানিয়েছে নাসা।

পৃথিবী থেকে 17.7 বিলিয়ন কিলোমিটার দূরত্বে রয়েছে ভয়েজার 2। এটিই একমাত্র মহাকাশযান যা জুপিটার (1979), শনি (1981) ইউরেনাস (1981) এবং নেপচুন (1989) ভ্রমণ করেছে।

হেলিওস্ফিয়ারের বাইরের সীমানা অর্থাৎ হেলিওপোজে পৌঁছানোর জন্য মহাকাশযানটির দিকে লক্ষ রাখছিলেন মহাকাশযানবিদরা।

“আমরা ভয়েজার 2 এর আশেপাশের পরিবেশের পরিবর্তন এ নিয়ে কোন সন্দেহ নেই” ক্যালিফোর্নিয়া নাসার জেট প্রপালশন ল্যাবরেটরি থেকে বলেন ভয়েজার প্রজেক্ট সায়েন্টিস্ট এড স্টোন। আগস্টের শেষ দিক থেকেই “কসমিক রে সাবসিস্টেম” ভয়েজার 2 মহাজাগতিক রশ্মির বৃদ্ধি লক্ষ্য করে, যা গত বছরের থেকে পাঁচ শতাংশ বেশি। প্রোবের নিম্ন-শক্তি চার্জযুক্ত কণা যন্ত্রটি উচ্চ-শক্তির মহাজাগতিক রশ্মির ক্রম বৃদ্ধির মুখে পড়েছে।

স্টোন আরও বলেন, “আমরা আগামী মাসের আরো অনেক কিছু শিখতে চলেছি, কিন্তু এখনও জানি না কখন আমরা heliopause পৌঁছাবো। এখনও সেখানে নেই আমরা- এটুকু জোর দিয়ে বলতে পারি।”

তিনটি মহাকাশযান এখন রয়েছে ইন্টারস্টেলার ট্রাজেক্টরিতে। ২019 সালের 1 জানুয়ারি প্লুটোর পরে এক বিলিয়ন মাইলের কাছাকাছি থাকা কুইপার বেল্ট বস্তুতে বন্ধ হয়ে যাবে নিউ হরাইজন।

পাইনিয়ার 10 এবং পাইনিয়ার 11 প্রোব কাজ করছে না। কিন্তু ইন্টারস্টেলার স্পেসে ভ্রমণ করবেই তারা।

 

SHARE