Home কক্সবাজার চকরিয়ায় নেতা-কর্মী-ভক্তদের ভালবাসায় সিক্ত হলেন নৌকার প্রার্থী জাফর আলম

চকরিয়ায় নেতা-কর্মী-ভক্তদের ভালবাসায় সিক্ত হলেন নৌকার প্রার্থী জাফর আলম

133
SHARE

মুকুল কান্তি দাশ,চকরিয়া(২৬ নভেম্বর) :: ঘনিয়ে আসছে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। আগামী ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্টিতব্য নির্বাচনকে সামনে রেখে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও জোট-মহাজোট নিজেদের প্রার্থী ঘোষনা করছে। এরই মধ্যে পর্যটন জেলা কক্সবাজারের ভিআইপি আসন খ্যাত চকরিয়া ও পেকুয়া উপজেলা নিয়ে গঠিত কক্সবাজার-১ আসনে লড়তে আওয়ামীলীগ ও বিএনপির নিজেদের প্রার্থীর নাম ঘোষনা করে তাদের হাতে প্রার্থীতা চিঠিও দিয়েছেন।

তন্মধ্যে বিএনপির প্রার্থী হাসিনা আহমেদ চকরিয়া ও পেকুয়ার নির্বাচন অফিস থেকে দুটি মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন। আজ মঙ্গলবার মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করবেন নৌকার প্রার্থী আলহাজ্ব জাফর আলম।

আওয়ামীলীগের প্রার্থীতার চিঠি নিয়ে সোমবার চকরিয়া পৌছেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সদ্য সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব জাফর আলম। তিনি চট্টগ্রাম হয়ে লোহাগাড়া-চুনতি শাহ সাহেব হুজুরের কবর জিয়ারত করে বিকালে চকরিয়া প্রবেশ করলে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের কয়েকটি স্টেশন ছাড়াও সড়কের দু’পাশে দাঁড়িয়ে হাজারো কর্মী-ভক্ত অভিবাদন জানান তাকে। ভালোবাসায় সিক্ত হন জাফর আলম। কর্মীদের দাবির মুখে হারবাংস্থ ইনানী, বরইতলীর বানিয়ারছড়া, লক্ষ্যারচরের জিদ্দাবাজার, চকরিয়া পৌরসভার কাজী মার্কেট চত্বর, ডুলাহাজারা বাজার ও খুটাখালীতে সংবর্ধনা সভায় বক্তব্য রাখেন। এসব সভায় হাজারো নারী-পুরুষের জমায়েত হয়।

কাজী মার্কেট চত্বরে পৌরসভা আওয়ামীলীগ আয়োজিত পথসভায় জাফর আলম বলেন, জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেক মুজিবুর রহমানের আমলে ১৯৭৩ সালে অনুষ্টিত প্রথম সংসদ নির্বাচনে নৌকার টিকেট নিয়ে জয়ী হয়েছিলেন ডা.শামসুদ্দিন আহমদ চৌধুরী। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্ট বঙ্গবন্ধকে স্ব-পরিবাওে হত্যার পর অনুষ্টিত ৯টি সংসদ নির্বাচনে নৌকার কোন প্রার্থী জয়ী হয়নি চকরিয়া-পেকুয়ায়।

এবার একাদশ সংসদ নির্বাচনে নৌকা প্রতিক নিয়ে জয়ী হয়ে কক্সবাজার-১ আসনটি দলীয় নেত্রী শেখ হাসিনাকে উপহার দেয়ার লক্ষ্যে গ্রামে-গঞ্জে, পাড়া-মহল্লায় টানা ১ যুগ ধরে কাজ করেছি। দুই উপজেলাকে আওয়ামীলীগের ঘাটিতে পরিণত করেছি। উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে নৌকা প্রতিকে ভোট দিতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন সাধারণ মানুষও। আশা করছি অতীতের সকল ভেদা-বেদ ভুলে নেতা-কর্মীরা একাট্টা হয়ে কাজ করলে এই আসনটিতে জয়ী লাভ করা সম্ভব।

পৌরসভা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদ সদস্য জাহেদুল ইসলাম লিটুর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আতিক উদ্দিন চেšধুরী সঞ্চালনায় আয়োজিত পথসভায় বক্তব্য রাখেন- উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ইউপি চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী, চকরিয়া পৌরসভার মেয়র মো.আলমগীর চৌধুরী, মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ইউপি চেয়ারম্যান মহসিন বাবুল, চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ফজলুল করিম সাঈদী, পৌরসভা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি অধ্যাপক মুছলেহ উদ্দিন মানিক, ওয়ালিদ মিল্টন, তপন কান্তি দাশ, আওয়ামীলীগ নেতা মুজিবুর রহমান লিটন, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম শহিদ, সেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি শওকত হোসেন, উপজেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি জামাল উদ্দিন, পৌরসভা যুবলীগের সভাপতি হাসনগীর হোছাইন, সাধারণ সম্পাদক আজিজুল ইসলাম সোহেল, পৌরসভা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুর রহমান রাসেল প্রমুখ।

উল্লেখ্য, কক্সবাজার-১ আসনে মোট ভোটর রয়েছেন ৩ লাখ ৯০ হাজার ৬৮১জন। তন্মধ্যে চকরিয়া উপজেলায় ১৮টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভায় ৯৯টি কেন্দ্রের বিপরীতে ২ লাখ ৮৪ হাজার ৪১১জন । এরমধ্যে ১ লাখ ৪৮ হাজার ৮০৫জন পুরুষ ও ১ লাখ ৩৫ হাজার নারী ভোটার।

পেকুয়া উপজেলা ৭টি ইউনিয়নে ৪০টি ভোট কেন্দ্রের বিপরীতে ভোটর রয়েছেন ১ লাখ ৬ হাজার ২৭০জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটর ৫৫ হাজার ৬২০জন ও মহিলা ভোটর ৫০ হাজার ৬৫০জন।

চকরিয়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো.সাখাওয়াত হোসেন বলেন, এই আসনে শান্তিপূর্ণ ও নিরপেক্ষ ভোট আদায়ে প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। ২৮ নভেম্বর প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন। ২ ডিসেম্বর প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষ দিন। ৯ ডিসেম্বর প্রার্থীতা যাচাই-বাছাই ও ১০ ডিসেম্বর প্রতিক বরাদ্দ দেয়া হবে। প্রতিক বরাদ্দের পরই বিভিন্ন টিম জরিপ চালিয়ে ও প্রার্থীদেও পক্ষ থেকে অভিমত নিয়ে অতি ঝুঁকিপূর্ণ, মাঝারি ঝুঁকিপূর্ণ ও সাধারণ কেন্দ্র সনাক্ত পূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে রিটার্নিং অফিসারের নির্দেশক্রমে।

চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নূরুদ্দীন মুহম্মদ শিবলী নোমান ও চকরিয়া সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) কাজী মো.মতিউল ইসলাম বলেন, আমরা পৃথকভাবে সব ক’টি কেন্দ্র পরিদর্শন করেছি। কয়েকটি কেন্দ্রে যোগাযোগ সমস্যা থাকলেও সপ্তাহখানেকের মধ্যে এ সমস্যার সমাধান করা হবে।

SHARE