buy Instagram followers
kayseri escort samsun escort afyon escort manisa escort mersin escort denizli escort kibris escort rize escort sinop escort usak escort trabzon escort

যুক্তরাজ্যের নির্বাচনে ৩ বাংলাদেশি কন্যা টিউলিপ-রুপা-রুশনারা’র জয়ী

UK-Election-3-bd-wmn-winner-2017-coxbangla.jpg

কক্সবাংলা ডটকম(৯ জুন) :: যুক্তরাজ্যের নির্বাচনে বাংলাদেশি তিন কন্যা বঙ্গবন্ধুর নাতনি টিউলিপ সিদ্দিক, রুপা হক ও রুশনারা আলী জয় পেয়েছেন।

লন্ডনের ইলিং-এ লেবার পার্টির প্রার্থী বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত রুপা হক ১৩ হাজারের বেশি ভোটের ব্যবধানে জয়ী হয়েছেন। কিলবার্ন থেকে ১৫ হাজার ভোটের ব্যবধানে জয় পেয়েছেন বঙ্গবন্ধু নাতনি টিউলিপ সিদ্দিক। আর বেথনালগ্রিন অ্যান্ড বো থেকে রুশনারা ৪২ হাজার ভোটের ব্যবধানে জয় পেয়েছেন।

এ নির্বাচনে টিউলিপ সিদ্দিক ও রুপা হক দ্বিতীয়বার ও রুশনারা আলী তৃতীয়বারের মত নির্বাচিত হয়েছেন।

১৫,০০০ ভোটের ব্যবধানে টিউলিপের জয়

লেবার পার্টির হয়ে দ্বিতীয়বারের মতো জয় পেলেন বঙ্গবন্ধুর নাতনি এবং শেখ রেহানার কন্যা টিউলিপ সিদ্দিক। লন্ডনের হ্যাম্পস্টেড অ্যান্ড কিলবার্ন আসন থেকে তিনি জয়ী হয়েছেন। ২০১৫ সালেও একই আসন থেকে লড়ে জয় পেয়েছিলেন টিউলিপ।

এবার বাংলাদেশি এ রাজনীতিক লন্ডনের হ্যাম্পস্টেড ও কিলবার্ন আসনে প্রায় ১৫ হাজার ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী হয়েছেন। গতবারের নির্বাচনে জয়ের ব্যবধান ছিল এক হাজারের একটু বেশি । সেই তুলনায় এবার ১৪.৬ শতাংশ বেশি ভোট পেয়েছেন তিনি।

টিউলিপ রিজওয়ানা সিদ্দিক লন্ডনের মিটচ্যামে ১৯৮২ সালে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি লন্ডনের কিংস কলেজ থেকে ইংরেজি সাহিত্যে এবং রাজনীতি, নীতি ও সরকার বিষয়ে দুইটি মাস্টার্স ডিগ্রি লাভ করেন। টিউলিপের প্রতিদ্বন্দ্বিরা ছিলেন- লিবারেল ডেমোক্র্যাট পার্টির ক্রিস্টি এ্যালান, কনজারভেটিভ পার্টির ক্লেয়ার লুইস লেল্যান্ড, গ্রীন পার্টির জন ম্যানসক এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী হুফ ইস্টারব্রুক ও রেইনবো জর্জ ওয়েইস। ২০১৫ সালে টিউলিপ নির্বাচিত হওয়ার পর তিনি লেবার পার্টি নেতা জেরেমি করবিনের ছায়া মন্ত্রিসভায় নিযুক্ত হন। চলতি বছরের শুরুতে পার্লামেন্টে ব্রেক্সিট বিলের বিরুদ্ধে দৃঢ় অবস্থান নিয়েছিলেন তিনি। এ কারণে তিনি লেবার পার্টির ছায়া মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করেন।

বিশ্বের অন্যতম পরাক্রম রাষ্ট্র হিসেবে ব্রিটেনের নির্বাচন বাংলাদেশের জন্যও গুরুত্বপূর্ণ। তাছাড়া টিউলিপ বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভাগ্নি।

প্রথমবার পার্লামেন্ট নির্বাচনে জিতে নানা ইস্যুতে সর্বদাই সরব থেকেছেন টিউলিপ। স্বাভাবিকভাবেই গণমাধ্যমের নজর কেড়েছেন তরুণ এই রাজনীতিক। টিউলিপের আসন হ্যাম্পস্টেড অ্যান্ড কিলবার্নে ভোটারদের মধ্যে উচ্চ মধ্যবিত্ত এবং মধ্যবিত্তের আধিক্য। তবে অনেক দরিদ্র মানুষও আছেন, আছেন প্রায় হাজারখানেক বাংলাদেশি ভোটার।

গতবার টিউলিপ জিতেছেন মাত্র এক হাজার ১৩৮ ভোটের ব্যবধানে। তবে এবার ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টি লেবার পার্টির সেসব আসনে জয় পেতে মরিয়া ছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত টিউলিপই জিতলেন।

এ আসনে গতবারের তৃতীয় দল লিবারেল ডেমোক্রেট পার্টির ভোটাররাও বেশ সরব ছিল। তাদের প্রার্থী কার্সটি অ্যালান আশা করেছিলেন, ব্রেক্সিটের বিপক্ষে শক্ত অবস্থান তাকে বড় সুবিধা দেবে। ফলে টিউলিপকে এবার লড়তে হয়েছে প্রবল দুই প্রার্থীর বিরুদ্ধে। সেইসঙ্গে তার কপালে ভাজ ফেলেছিল অভিবাসনবিরোধী কট্টর ডানপন্থী দল ইউকেআইপি।

রূপা হকের নিরঙ্কুশ জয়

রূপা হকলন্ডনের ইলিং সেন্ট্রাল অ্যান্ড অ্যাকটন আসনে দ্বিতীয় মেয়াদে জয় পেলেন বাংলাদেশি  বংশোদ্ভূত রূপা হক। ২ বছরের ব্যবধানে দ্বিতীয়বার ব্রিটিশ পার্লামেন্ট সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হলেন তিনি।

লেবার প্রার্থী রূপা হক পেয়েছেন ৩৩ হাজার ৩৭ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কনজারভেটিভ দলের প্রার্থী জয় মোরিসির প্রাপ্ত ভোট  ১৯ হাজার ২৩০ । গতবার মাত্র ২৭৪ ভোটে জয় পাওয়া রূপা এবার জিতেছেন ১৩ হাজার ৮০৭ ভোটের ব্যবধানে।  ২০১৫ সালে রূপা হক প্রথমবারের মতো এমপি নির্বাচিত হন। প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে হঠাৎ করে মধ্যবর্তী নির্বাচন ঘোষণা দেওয়ায় রূপা হককে দুই বছরের মাথায় আসনটি ধরে রাখার লড়াইয়ে নামতে হয়।

লন্ডনের মধ্যে এবার রুপার আসনটি সবচেয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ। ইলিং সেন্ট্রাল অ্যান্ড অ্যাকটন আসনে রুপা গতবার মাত্র ২৭৪ ভোটের ব্যবধানে ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থীকে পরাজিত করে এমপি নির্বাচিত হন। এ আসনে ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ দলের প্রার্থী জয় মোরিসের বিজয় ঠেকাতে এবার পরিবেশবাদী গ্রিন পার্টি কোনো প্রার্থী দেয়নি। তারা লেবার প্রার্থী রুপাকেই সমর্থন দিয়েছে। অন্যদিকে ডানপন্থী ইউকে ইন্ডিপেনডেন্ট পার্টি (ইউকিপ) কনজারভেটিভ প্রার্থীকে সমর্থন দিয়ে এ আসনে কোনো প্রার্থী দেয়নি। মাত্র তিনজন প্রার্থী এ আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় করেন। অপর প্রার্থী হলেন লিবারেল ডেমোক্র্যাটস দলের জন বল।

কিংসটন ইউনিভার্সিটির সমাজবিজ্ঞানের জ্যেষ্ঠ শিক্ষক রূপা লন্ডনে জন্মগ্রহণ করেন। বাংলাদেশে তার আদি বাড়ি পাবনায়।

তৃতীয়বারের মত নির্বাচিত রুশনারা আলী

ব্রিটেনের  বেথনালগ্রিন অ্যান্ড বো থেকে তৃতীয়বারের মত জয় পেয়েছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত রুশনারা আলী।বেথনাল গ্রিন অ্যান্ড বো আসনে তিনি ৪২ হাজার ৯৬৯ ভোট পেয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কনজারভেটিভ পার্টির চার্লট চিরিকো পেয়েছেন ৭ হাজার ৫৭৬ ভোট।
২০১০ সালে প্রথম কোনো বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত হিসেবে ব্রিটিশ পার্লামেন্টে এমপি নির্বাচিত হয়েছিলেন। তিনি আসনটি তৃতীয় মেয়াদে ধরে রাখার জন্য লড়ে যাচ্ছেন।
সিলেটের মেয়ে রুশনারা ২০১০ সালে প্রথম কোনো বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত হিসেবে ব্রিটিশ পার্লামেন্টে এমপি নির্বাচিত হয়েছিলেন। ২০১৫ সালেও তিনি এই আসনে বিজয়ী হন।

Share this post

PinIt
izmir escort bursa escort Escort Bayan
scroll to top
en English Version bn Bangla Version
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri