কুতুবদিয়ায় বিদ্যালয়ের মালামাল চুরির ঘটনায় আদালতে মামলা

mamla-1.jpg

এম.নজরুল ইসলাম,কুতুবদিয়া(১৪ জুন) :: কক্সবাজারের কুতুবদিয়ায় রমজানের ছুটিতে হাবিবিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মালামাল চুরির ঘটনায় কুতুবদিয়া জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একই পরিবারের সাত জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেছে বিদ্যালেয়র পক্ষে শিক্ষক জামাল উদ্দিন ।

আসামীরা হলো,দক্ষিণ ধুরুং ১নং ওয়ার্ড নয়া পাড়া গ্রামের সিরাজদৌল্লাহর সহধর্মীনিসহ তার পাঁচ পুত্র যথাক্রমে জামাল উদ্দিন (৩০),হামিদ উল্লাহ (২৪), কামাল উদ্দিন (৩২), মিজান (২৮)ও জসিম উদ্দিন (২৬)। সাত জুন মামলাটি দায়ের করা হয়।

এদিকে মামলাটি সংশ্লিষ্ট ধারায় ট্র্যাট অ্যাজ এফআইআর হিসেবে রুজু করার জন্য কুতুবদিয়া থানাকে নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

মামলার অভিযোগসূত্রে জানা যায়, হাবিবিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি বিএস ২৪১৬ খতিয়ানের ৫০ শতক জায়গার উপর স্থাপিত। বিদ্যালয় ছাড়াও বিদ্যালয়ের চারপাশে পুকুর,খাই ও নাল জায়গা রয়েছে। আসামীরা প্রায় সময়ে বিদ্যালয়ের আঙ্গিনায় হানা দিয়ে গাছ-পালা কর্তন, মাছ শিকার,পানি নিষ্কাশন,ঘেরা- বেড়ার ক্ষতিসাধনসহ ভূয়া কাগজপত্র তৈরি করে বিদ্যালয়ের জায়গা জবরদখলের চেষ্টা করেছে বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়।

অভিযোগে আরো উল্লেখ করা হয়েছে যে, গত ২৫ মে রমজানের ছুটিতে বিদ্যালয় বন্ধ থাকা কালীন সময়ে আসামীগন বিদ্যালয়ের গেইট ও অফিস কক্ষের তালা ভেঙে ১টি সৌর প্যানেল, ব্যাটারি, ২টি ফ্যান, ১টি সাউন্ড বক্সসহ প্রয়োজনীয় জিনিসপাতি চুির করে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জাহাঙ্গীর আলম কুতুবদিয়া থানায় একটি অভিযোগ দােয়র করেন ঐ দিন।

শিক্ষক জামাল উদ্দিন জানান, থানায় অভিযোগের পর থেকেই বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বিভিন্নভাবে হুমকি দিচ্ছে আসামীরা।

এ ব্যাপারে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ওমর ফারুক বলেন, হাবিবিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মালামাল চুিরর বিষয়টি শুনেছি এবং বিদ্যালয়ের জায়গা জবরদখল করার চেষ্টা করছে স্থানীয় কিছুলোকজন এমন অভিযোগ আছে।

এর আগেও এব্যপারে ইউএনও বরাবরে একাধিকবার অভিযোগ করেছে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। এবার বিষয়টি সমাধান হবে বলে আশা করছি।এবিষয়ে প্রতিপক্ষের বক্তব্য নিতে কারো সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

Share this post

PinIt
scroll to top
bahis siteleri