izmir escort telefonlari
porno izle sex hikaye
çorum sürücü kursu malatya reklam

উখিয়ার পালংখালীতে ডাকাত সরদার আটকের খবরে মিষ্টি তিবরণ

ukhia-news-cb-1.jpg

মোসলেহ উদ্দিন,উখিয়া(২২ জুন) :: ক্রাইম জোন নামে খ্যাত উখিয়ার পালংখালী বটতলী এলাকায় অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে মালামাল লুটপাট করে চলেছে একশ্রেণীর পেশাধারী ডাকাতদল। চিংড়িঘের ও আধিপত্যবাদ নিয়ে এলাকায় ২/৩ দলে বিভক্ত হয়ে আইনশৃংখলার অবনতি ঘটছে দীর্ঘদিন থেকে।

দিদাহাড়ে বেশ কয়েকটি হত্যা, গুমও অপহরনের মত ঘটনা ঘটছে সেখানে। এখন গ্রামিণ জনপথ দিয়ে আসা যাওয়ারত পথচারীদের লুটতরাজ চলছে বলে একাধিক সুত্র জানিয়েছে।

পুলিশ গত বুধবার ভোর রাতে অভিযান চালালে একাধিক ডাকাতি মামলার ডাকাত সর্দার হামিদ হোসেন (২৮) কে ধারালো ছুরিসহ আটক করেছে। সে নলবনিয়া গ্রামের ডাকাত জাহিদ আলমের ছেলে বলে জানা গেছে।

উখিয়া থানা সূত্রে জানা গেছে, ডাকাত সর্দার হামিদ হোসেন ২০১৬ সালের নভেম্বরে বটতলী গ্রামের আবু তাহেরের বাড়ীতে ঢুকে অস্ত্রের মুখে তার মেয়েকে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। এসময় বাঁধা দিতে গিয়ে ডাকাত হামিদ হোসেন গুলিবর্ষণ করে।

ঘটনাস্থলে আবু তাহেরের মেয়ে রাবেয়া ও ছেলে রাশেল গুলিবিদ্ধ হয়ে গুরুতর আহত হয়। গত মঙ্গলবার রাত ১০টায় পালংখালী বটতলী এলাকায় ডাকাত হামিদ হোসেনের নেতৃত্বে ৫/৬ জন অস্ত্রধারী ডাকাত গ্রামীণ সড়ক অবরোধ করে পথচারীদের সর্বস্ব ছিনিয়ে নেয়।

উখিয়া থানার এসআই আনিস জানান, সোর্স মারফত তার অবস্থান নিশ্চিত হয়ে বুধবার ভোর রাতে পশ্চিম ফারির বিল নলবনিয়া পাহাড়ের উপর পরিত্যক্ত বাড়ীতে অভিযান চালিয়ে ডাকাত হামিদ হোসেনকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা করলে ডাকাত এসআই আনিসকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে।

এসময় পুলিশ কৌশল অবলম্বণ করে ডাকাত হামিদকে তার হাতে থাকা ধারালো ছুরিসহ আটক করতে সক্ষম হয়। ডাকাত হামিদ হোসেন আটকের খবর ছড়িয়ে পড়লে পালংখালী এলাকায় মিষ্টি বিতরণ হয়েছে বলে জানা গেছে।

Share this post

PinIt
scroll to top
bedava bahis bahis siteleri
bahis siteleri