চালের উৎপাদন কমার ঝুঁকিতে বাংলাদেশ

rice-bosta-bd-coxbangla.jpg

কক্সবাংলা ডটকম(১৫ জুলাই) :: বন্যা ও সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বাড়লে ভবিষ্যতে বাংলাদেশে চালের উৎপাদন উল্লেখযোগ্য পরিমাণে কমে যেতে পারে। শস্যহানির পাশাপাশি জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে ভূমিধস এবং তার পরিণতিতে বাস্তুচ্যুত হওয়ার প্রবণতাও বাড়তে পারে।

এশিয়ায় জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকির ওপর এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের (এডিবি) এক প্রতিবেদনে এমন আশঙ্কার কথা বলা হয়েছে। এডিবি এমন এক সময়ে রিপোর্টটি প্রকাশ করল যখন বাংলাদেশের কয়েকটি জেলা বন্যার কবলে পড়েছে। কিছুদিন আগে হাওর অঞ্চলে বন্যার কারণে প্রধান ফসল বোরোর উৎপাদন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। প্রধান খাদ্যশস্য চালের দাম বেড়ে যাওয়ার পেছনে বোরোর উৎপাদন কম হওয়াকে অন্যতম কারণ হিসেবে দেখা হচ্ছে।

শুক্রবার ম্যানিলা থেকে প্রকাশিত এডিবির এ প্রতিবেদনের নাম ‘ঝুঁকিতে এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল :জলবায়ু পরিবর্তনের মাত্রা’। এতে বলা হয়, জলবায়ু পরিবর্তন ঠেকাতে না পারলে এ অঞ্চলে বহু কষ্টে অর্জিত উন্নয়ন মুখ থুবড়ে পড়বে। অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে। মানুষের জীবনযাত্রার মানের অবনতি হবে।

প্রতিবেদনে বাংলাদেশ প্রসঙ্গে বলা হয়, বন্যা ও প্লাবনের প্রকোপ এবং সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বাড়লে ২০৫০ সাল নাগাদ বাংলাদেশে চালের উৎপাদন কমবে বছরে গড়ে প্রায় ৪ শতাংশ। ২০০৫ থেকে ২০৫০ সাল পর্যন্ত সময়কে বিবেচনায় নিয়ে চালের উৎপাদন মোট আট কোটি টন কমে যাওয়ার প্রাক্কলন করা হয়েছে।

আর বায়ুমণ্ডলে কার্বন ডাইঅক্সাইড বৃদ্ধিকে বিবেচনায় না নিয়ে ২০৫০ সাল নাগাদ চালের উৎপাদন ১৭ শতাংশ এবং গমের উৎপাদন ৬১ শতাংশ কমতে পারে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। প্রসঙ্গত, বর্তমানে বাংলাদেশে সাড়ে তিন কোটি টনের মতো চাল উৎপাদন হয়।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, ১৬ কোটি মানুষ নিয়ে বাংলাদেশ বিশ্বের অন্যতম ঘনবসতির দেশ। তবে এর আয়তন খুবই কম। ভূপৃষ্ঠের বিবেচনায় এটি বিশ্বের ৯৪তম দেশ।

সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা ৬২ সেন্টিমিটার বাড়লে ২০৮০ সাল নাগাদ বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকার ১৩ শতাংশ হারিয়ে যাবে এবং বর্তমানের তুলনায় ২০ শতাংশ ভূমি তলিয়ে যাবে। ২০৩০ সাল নাগাদ সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা ১৫ সেন্টিমিটার বাড়লে এ হার হবে যথাক্রমে ৩ শতাংশ ও ৬ শতাংশ।

প্রতিবেদনে আগের এক গবেষণার উদৃব্দতি দিয়ে বলা হয়, মৃত্যু ও অর্থনৈতিক ক্ষতির বিবেচনায় বিশ্বের ক্ষতিগ্রস্ত ১০টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশ অন্যতম। বন্যা কিংবা অন্যান্য প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে যেসব দেশে ব্যাপকভাবে অভ্যন্তরীণ অভিবাসন বাড়তে পারে তার মধ্যেও রয়েছে বাংলাদেশ।

Share this post

PinIt
scroll to top
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri