ভুলতে চান মুমিনুল

mm.jpg

কক্সবাংলা ডটকম(১৯ জুলাই) :: টেস্ট দলের অপরিহার্য সদস্য তিনি। কিন্তু বাকি দুই ফরম্যাটে নির্বাচকদের ভাবনাতেও যেন নেই তার নাম। সর্বশেষ ওয়ানডে খেলেছেন ২০১৫ সালের ফেব্রুয়ারিতে, সর্বশেষ টি২০ খেলেছেন ২০১৪ সালের এপ্রিলে। অনিচ্ছা সত্ত্বেও মুমিনুল হক তাই পেয়ে গেছেন ‘টেস্ট ব্যাটসম্যান’ তকমা।

জাতীয় দলে তার ডাক পড়ে কেবল টেস্ট সিরিজগুলোতেই। সে কারণে অন্যদের মতো নিয়মিত ক্রিকেটে থাকা হয় না তার। মাঝে জাতীয় দল থেকে দূরে থাকার সময় কীভাবে নিজেকে উদ্বুদ্ধ করেন এই ব্যাটসম্যান? দীর্ঘদিন পরপর দলে ফিরে দলের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়াটাই বা কতটুকু চ্যালেঞ্জিং?

মুমিনুল বললেন, মাঝের এই সময়টাকে তিনি ভুলেই থাকতে চান। সাংবাদিকদেরও বললেন, ব্যাপারটা তাকে মনে না করিয়ে দেওয়ার জন্য, ‘আসলে এ ব্যাপারটা প্রথমে বুঝতাম না। এখন একটু একটু বুঝি। আমি সবসময় চেষ্টা করি, এ বিষয় যেন আমার মাথায় না ঢোকে। যদি কিছু মনে না করেন, আপনাদেরও বলি, এ বিষয়টা মনে না করিয়ে দিলেই আমার জন্য ভালো।’

জাতীয় দলের পুরো মনোযোগ এখন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে আসন্ন সিরিজে। অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটে খেলোয়াড় বনাম বোর্ডের মধ্যকার দ্বন্দ্বের কোনো সমাধান এখনও না হলেও, অস্ট্রেলিয়া আসবে ধরে নিয়েই প্রস্তুত হচ্ছে টাইগাররা। অসি পেসারদের সামনে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের চ্যালেঞ্জটা কেমন হবে?

মুমিনুল বললেন, প্রতিপক্ষের পেস আর স্পিন দুই বিভাগ নিয়েই কাজ করছে দল, ‘অস্ট্রেলিয়ার পেসারদের পাশাপাশি স্পিনাররাও বেশ ভালো। যে কোনো কন্ডিশনেই ওরা বেশ দ্রুত মানিয়ে নিতে পারে। সে ক্ষেত্রে একটা চ্যালেঞ্জ তো থাকবেই। আমাদের এখানে যে ধরনের উইকেটে খেলা হয়, সেখানে তাদের স্পিনাররাও সুবিধা পাবে।’

নিজেদের গত কয়েকটি টেস্ট সিরিজে বেশ ভালো ক্রিকেট উপহার দিয়েছে বাংলাদেশ। গত বছর ঘরের মাটিতে হারিয়েছে ইংল্যান্ডের মতো প্রতিপক্ষকে। আর এই বছরের মার্চে শ্রীলংকা সফরে গিয়ে নিজেদের শততম টেস্টে হারিয়েছে শ্রীলংকাকেও। তবে ইংল্যান্ডের চেয়ে প্রতিপক্ষ বিচারে অসিদেরই এগিয়ে রাখতে চান এই ক্রিকেটার।

বললেন, ‘আমার মনে হয়, ইংল্যান্ডের চেয়ে অস্ট্রেলিয়া কঠিন প্রতিপক্ষ হবে। আমাদের এখানে খেলতে আসার আগে ইংল্যান্ড ভারতের মাটিতে খেলে আসেনি। অস্ট্রেলিয়া কিন্তু গতবছর ভারতে খেলে গেছে। উপমহাদেশের কন্ডিশনে কীভাবে খেলতে হয়, এ ব্যাপারে একটা ধারণা তাই ওদের আছে।’

তবে সাম্প্রতিক সময়ে টেস্টে টাইগারদের ধারাবাহিকতা থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে অভাবনীয় কিছু করার আশাও ঝরে পড়ল মুমিনুলের কণ্ঠে, ‘গত কয়েকটি টেস্টে আমাদের যে পারফরম্যান্স, তাতে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ভালো কিছু আশা করাই যায়।

যদি আশার কথা বলেন, আমি বলব যে, আমার আশা বাংলাদেশ যেন সিরিজের দুটি টেস্টেই জয় পায়। ফলাফল ১-১ হলে সেটাও বেশ ভালো হবে। আমাদের টেস্ট দল এখন আগের চেয়ে অনেক ভালো। তাই দুটি ম্যাচই জিততে চাইব।’

Share this post

PinIt
scroll to top
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri