চকরিয়া মালুমঘাট খ্রীষ্টান হাসাপাতালের পাশে বনভুমিতে ২০টি অবৈধ বসতি নির্মাণ

Chakaria-Pc-21-07-2017.jpg

এম.জিয়াবুল হক,চকরিয়া(২১ জুলাই) :: চকরিয়া উপজেলার মালুমঘাট মেমোরিয়াল খ্রীষ্টান হাসাপাতালের উত্তর পাশে মহাসড়ক লাগোয়া কক্সবাজার উত্তর বনবিভাগের অধীন ফাসিয়াখালী রেঞ্জের বনভুমি দখলের ঘটনা ঘটেছে।

স্থানীয় প্রভাবশালী চক্র মহাসড়ক লাগোয়া গর্জন বাগান এলাকায় কয়েকদিনের মধ্যে নতুন করে প্রায় ২০টি অবৈধ দোকান ঘর ও বসতি নির্মাণ করেছে।

খোঁজ খবর নিয়ে জানা গেছে, কক্সবাজার উত্তর বনবিভাগের চকরিয়া উপজেলার ফাসিঁয়াখালী রেঞ্জ অফিসের আওতাধীন মহাসড়ক লাগয়ো বিশাল মাদার ট্রি গর্জন ও সেগুন গাছের বিশাল বাগান রয়েছে। বিগত সময়ে বাগানের ভেতরে অবৈধ দখলবাজরা নানা কায়দায় বিপুল পরিমাণ বসতবাড়ি নির্মাণ হয়েছে পর্যায়ক্রমে।

অভিযোগ রয়েছে, বনবিভাগের ভিলিজার সাইনবোর্ড দিয়ে কিছু লোক বনভুমিতে কৌশলে এসব বসত বাড়ি নির্মাণ করছে। তাদের পাশাপাশি স্থানীয় প্রভাবশালী ও রাজনৈতিক দলের লোকজনও দখলের সাথে জড়িত রয়েছে। বর্তমানে অবৈধভাবে দখলে নেয়া এসব জায়গা অন্যজনের কাছে বিক্রি করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে অভিযুক্ত দখলবাজরা।

স্থানীয় লোকজন জানিয়েছেন, বনবিভাগের ফাসিঁয়াখালী রেঞ্জের আওতাধীন রিংভং ছগির শাহ্ এলাকায় প্রায় তিনশত একর ভিলিজারি জায়গায় বর্তমানে চাষাবাদ করা হচ্ছে। পাশাপাশি কয়েকটি চিংড়ি ঘেরও রয়েছে। এসব কৃষি ও চিংড়ি জমি দখল নিয়ে সংঘর্ষ ঘটনা সহ বিভিন্ন আদালতে মামলাও হয়েছে ।

সূত্র জানায় , এসব কৃষি ও চিংড়ি জমি বন বিভাগের আওতায় নিয়ে ইজরা দেয়া হলে সরকার প্রতি বৎসর ছগির শাহ্ কাটা থেকে অন্তত পক্ষে ৩০ লাখ টাকা রাজস্ব আদায় করতে সক্ষম হবে ।

সর্বশেষ জরিপে দেখা গেছে, অভিযুক্ত একই দখলবাজরা গত ১৯ ও ২০ জুলাই রাতে মালুমঘাট খ্রিষ্টান হাসপাতালের উত্তর পাশে ২০ টি দোকান ও বসতঘর নির্মাণ করেছে।

এদিকে ফাসিয়াখালী রেঞ্জ কর্মকর্তা আবদুল মতিন বলেন, দখল উচ্ছেদ করতে গেলে স্থানীয় আওয়ামীলীগের কিছু নেতাকর্মীরা বনকর্মীদের বাঁধা দিচ্ছে। এ অবস্থার কারনে নির্মাণাধীন দোকান ও বসত ঘর উচ্ছেদ করা সম্ভব হচ্ছেনা। তবে শ্রীঘ্রই সেখানে বড় ধরণের অভিযান চালিয়ে সব অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হবে।

 

Share this post

PinIt
scroll to top
bahis siteleri