টেকনাফে পুলিশ-বিজিবির পৃথক অভিযানে ইয়াবা ও বিয়ারসহ আটক-৫

Teknaf-Pic-27-07-17.jpg

হুমায়ূন রশিদ,টেকনাফ(২৭ জুলাই) :: কক্সবাজারের টেকনাফে পুলিশ-বিজিবি জওয়ানেরা পৃথক অভিযান চালিয়ে ৭৯হাজার ২শ ৭৩পিস ইয়াবা বড়ি ও সেবনের সময় ৬০ক্যান বিয়ারসহ ৫জনকে আটক করেছে।

জানা যায়,২৭জুলাই ভোররাতে টেকনাফ মডেল থানার এসআই বোরহান উদ্দিন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে একদল পুলিশ লেদা অনিবন্ধিত রোহিঙ্গা বস্তির মাদকের আস্তানায় বিক্রি ও সেবনের প্রস্তুতিকালে অভিযান চালিয়ে ৫৫ক্যান আন্দামান গোল্ড ও ৫ক্যান বার পারসন বিয়ারসহ লেদা রোহিঙ্গা বস্তির বি-ব্লকের ২৬৩নং রোমের বাসিন্দা আব্দুর রহমানের পুত্র আবু তৈয়ব (৩৮),এ-ব্লকের ৬৮নং রোমের সরু হোছনের পুত্র আনোয়ার হোসাইন (২৬),৯৩নং রোমের মৃত অলি আহমদের পুত্র নুরুল সালাম (৫০)কে হাতে-নাতে আটক করেন।

এসময় পালিয়ে যাওয়ায় বাড়ি মালিক ডি ব্লকের ৩১নং রোমের মৃত গুরা মিয়ার পুত্র নুরুল আলম (৩৫)কে পলাতক আসামী করে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

আটককৃতদের আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে বলে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ মাইন উদ্দিন খাঁন নিশ্চিত করেন।

অপরদিকে গত ২৬জুলাই সন্ধ্যা রাতে টেকনাফ ২বিজিবি ব্যাটালিয়নের দমদমিয়া বিওপির হাবিলদার মোঃ লুৎফর রহমান (বিজিবিএম, পিবিজিএমএস) নাজিরপাড়া পয়েন্ট দিয়ে ইয়াবার বিরাট একটি চালান আসার সংবাদ পেয়ে বিশেষ টহল দল নিয়ে নাফনদীর পার্শ্ববর্তী কেওড়া বাগানে ওঁৎ পেতে থাকে।

রাত সাড়ে ৮টারদিকে মায়ানমার হতে একটি নৌকা বাংলাদেশের দিকে নদীর কিনারায় আসা মাত্রই টহলদল চ্যালেঞ্জ করলে ফিরে যাওয়ার সময় নৌকাটি ডুবে যায়।

খবর পেয়ে দমদমিয়া বিওপির সুবেদার মোঃ মিজানুর রহমানের নেতৃত্বে অপর একটি টহলদল স্পীডবোট নিয়ে ধাওয়া করে ইয়াবার বড় পুটলাসহ মিয়ানমারের আকিয়াব জেলার মন্ডু থানার ধলিয়াপাড়ার আবুল বাশারের পুত্র জোনায়েদ(২০)ও নুর আলমের পুত্র মোহাম্মদ জোহার (৩০)কে উদ্ধার করে আটক করা হয়।

পরে তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী নৌকা ডুবে যাওয়া স্থানে তল্লাশী চালিয়ে ২কোটি ৩৭লাখ ৮১হাজার ৯শ টাকা মূল্যমানের ৭৯হাজার ২শ ৭৩পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

উদ্ধারকৃত ইয়াবা ও আটক দুইজনকে অবৈধভাবে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশের দায়ে পৃথক দু’টি মামলা দায়েরের পর টেকনাফ মডেল থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।

Share this post

PinIt
scroll to top
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri