পেকুয়ায় দু’সহোদরের মধ্যে সংঘর্ষ : আহত-৭

sangharsa-coxbangla.jpg

নাজিম উদ্দিন,পেকুয়া(৭ আগষ্ট) :: পেকুয়ায় দু’সহোদরের মধ্যে সংঘর্ষের খবর পাওয়া গেছে। এ সময় উভয়পক্ষের অন্তত ৭ জন গুরুতর আহত হয়েছে। আহতদের স্থানীয়রা উদ্ধার করে পেকুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। ঘটনার জের ধরে উভয়পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ছে।

সোমবার (৭ আগষ্ট) বিকেল তিনটার দিকে উপজেলার সদর ইউনিয়নের সরকারীঘোনা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন ওই এলাকার মৃত সিরাজুল ইসলামের পুত্র ইয়ার মোহাম্মদ(৪৩), ছেলে তৌহিদুল ইসলাম(২৩), এয়ার মোহাম্মদের স্ত্রী জাহানআরা বেগম(৩৭), মেয়ে তাসমিন আক্তার(১৯)।

অপরপক্ষের আহতরা হলেন ওই এলাকার মৃত সিরাজুল ইসলামের ছেলে নুর মোহাম্মদ(৫০), তার ভাই আজিজুর রহমান(৪০), মোহাম্মদ কাইয়ুম(৩৫)। এদের মধ্যে এয়ার মোহাম্মদ ও নুর মোহাম্মদের অবস্থা গুরুতর বলে জানা গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী সুত্রে জানা গেছে, বসতভিটার জায়গা নিয়ে এয়ার মোহাম্মদ ও নুর মোহাম্মদ দু’সহোদরের মধ্যে বিরোধ চলছিল। এক শতক জায়গা নিয়ে দু’ভাইয়ের মধ্যে বিরোধ ছিল। ওই দিন এয়ার মোহাম্মদের স্ত্রী জাহানারা বেগম মাথা গোজার ঠাঁই পেতে সেখানে বাড়ি নির্মাণ করছিলেন। এ সময় নুর মোহাম্মদ গং এসে বাধা দেয়।

এ নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে বাকবিতন্ডা হয়। হাতাহাতিও হয়। এর কিছুক্ষন পর নুর মোহাম্মদের নেতৃত্বে তার অপর ভাই ভাড়াটে লোকজন এয়ার মোহাম্মদের বসতবাড়িতে হানা দেয়।

এ সময় ধারালো অস্ত্র স্বস্ত্র নিয়ে দু’পক্ষ মারপিটে জড়ান। নুর মোহাম্মদের পক্ষে উত্তেজিত লোকজন এয়ার মোহাম্মদের বাড়িতে ব্যাপক তান্ডবসহ বাড়িঘর ভাংচুর চালায়। পেকুয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

গ্রাম পুলিশ দানু জানায়, আমরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনের চেষ্টা করছি।

ইউপি সদস্য মোহাম্মদ ইসমাইল জানান, এক শতকেরও কিছু বেশী জায়গা নিয়ে তারা দু’পক্ষের মধ্যে বিরোধ চলছিল। এ নিয়ে বৈঠক হয়েছে। এয়ার মোহাম্মদ সঠিক আছেন। কিন্তু তারা অন্যায় করছে। মারামারির বিষয়টি আমি জেনেছি। ঘরবাড়ি ভাংচুর হয়েছে। দফাদার দানু গিয়েছিল।

Share this post

PinIt
scroll to top
bahis siteleri