উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে রিয়াল-টটেনহ্যাম-ম্যানসিটির জয় : লিভারপুলের ড্র

cr7.jpg

কক্সবাংলা ডটকম(১৪ সেপ্টেম্বর) :: লম্বা সময় পর মাঠে ফিরেই নিজের সামর্থ্যের জানান দিলেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। বুধবার রাতে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের গ্রুপ পর্বের প্রথম ম্যাচে জোড়া গোল করলেন এই পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড। তার নৈপুণ্যে ‘এইচ’ গ্রুপের ম্যাচে অ্যাপোয়েলকে ৩-০ গোলে উড়িয়ে শুভসূচনা করেছে গত দুই আসরের চ্যাম্পিয়নরা।

স্প্যানিশ সুপার কাপের প্রথম লেগে রেফারিকে ধাক্কা দেয়ায় পাঁচ ম্যাচের নিষেধাজ্ঞার কারণে চলতি মৌসুমের লা লিগায় এখনো খেলতে পারেননি রোনালদো। লিগে আরো এক ম্যাচ নিষিদ্ধ থাকবেন তিনি। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে মাঠে নেমেই দ্যুতি ছড়ালেন সিআর সেভেন।

লা লিগায় ঘরের মাঠে শেষ দুটি লিগ ম্যাচে ড্র করেছিল রিয়াল মাদ্রিদ। তবে সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে অ্যাপোয়েলকে কোনো সুযোগই দেয়নি লস ব্লাঙ্কোসরা। খেলার দ্বাদশ মিনিটে গ্যারেথ বেলের ক্রস থেকে বল পেয়ে কোনাকুনি শটে লক্ষ্যভেদ করে রিয়ালকে এগিয়ে নেন রোনালদো।

বিরতির পরপরই ব্যবধান দ্বিগুণ করেন রোনালদো। রবার্তো লাগের হাতে বল লাগার অভিযোগে রেফারি পেনাল্টির নির্দেশ দিলে স্পট-কিক থেকে গোল করেন চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ইতিহাসের সর্বোচ্চ গোলদাতা। ইউরোপের কুলিন প্রতিযোগিতায় এটা রোনালদোর ১০৭তম গোল। যদিও রিপ্লেতে দেখা যায়, বল লাগো’র হাতের ওপরের অংশ স্পর্শ করেছে।

১০ মিনিট পর রিয়াল মাদ্রিদের পর বড় জয় নিশ্চিত সের্জিও রামোস। বেলের হেড বাধাপ্রাপ্ত হয়ে ফিরে এলে ফিরতি বলে বাইসাইকেল কিকে দর্শনীয় গোল করেন রিয়াল অধিনায়ক। খেলার বাকি সময়টুকুতে আর কোনো গোল না হলেও বড় জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে রিয়াল।

গ্রুপ পর্বের দিনের অপর ম্যাচে দুর্দান্ত জয় পেয়েছে টটেনহ্যাম। ঘরের মাঠে বরুসিয়া ডর্টমুন্ডকে ৩-১ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের গত আসরের রানার্সআপ দলটি।

গার্দিওলার ম্যানসিটির বড় জয়

উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের নতুন মৌসুমের প্রথম ম্যাচে বড় জয় পেয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি। বুধবার রাতে ‘এফ’ গ্রুপের ম্যাচে ফেয়েনোর্ডের মাঠ থেকে ৪-০ গোলের বড় জয় নিয়ে ফিরেছে পেপ গার্দিওলার দল।

রটারডমে ম্যানসিটির বড় জয়ের দিনে জোড়া গোল করেন জন স্টোনস। সার্জিও আগুয়েরো ও গ্যাব্রিয়েল জেসাস করেন একটি করে গোল।

প্রতিপক্ষের মাঠে খেলা শুরু হতে না হতেই এগিয়ে যায় ম্যানসিটি। ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটে দারুণ হেডে লক্ষ্যভেদ করে সফরকারীদের এগিয়ে নেন স্টোনস।

দশ মিনিট পর ব্যবধান দ্বিগুণ করেন আগুয়েরো। কাইল ওয়াকারের ক্রস থেকে বল পেয়ে দারুণ ভলিতে লক্ষ্যভেদ করেন এই আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড।

২৫তম মিনিটে জেসাসের গোলে জয় অনেকটাই নিশ্চিত করে ম্যানচেস্টোর সিটি। বেঞ্জামিন মেন্দির শট ব্রাড জোন্স রুখে দিলে ফিরতি বলে ফাঁকা পোস্ট কাঁপান এই ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড।

বিরতির পর ডাচ ক্লাব ফেয়েনোর্ড ব্যবধান কমানোর চেষ্টা করে। তবে তাতে সফল হয়নি। ৬৩তম মিনিটে কর্নার থেকে ভেসে আসা বলে হেডে নিজের ব্যক্তিগত দ্বিতীয় গোল করে সিটির বড় জয় নিশ্চিত করেন স্টোনস।

‘এফ’ গ্রুপের অপর ম্যাচে অঘটনের জন্ম দিয়েছে শাখতার দোনেৎস্ক। ইউক্রেনের মাঠে সফরকারী নাপোলিকে ২-১ গোলে পরাজিত করেছে দলটি।

লিভারপুল-সেভিয়ার পয়েন্ট ভাগাভাগি

উয়েফা চ্যাম্পিয়ন লিগের গ্রুপ পর্বের প্রথম ম্যাচে হোঁচট খেয়েছে লিভারপুল। বুধবার রাতে ঘরের মাঠে ‘ই’ গ্রুপের ম্যাচে সেভিয়ার সঙ্গে ২-২ গোলে ড্র করেছে ইয়ুর্গেন ক্লপের দল।

অ্যানফিল্ডে অনুষ্ঠিত ম্যাচে লিভারপুলের হয়ে গোল দুটি করেন রবার্তো ফিরমিনো ও মোহাম্মদ সালাহ। সেভিয়ার হয়ে একটি করে গোল করেন বেন ইয়েদার ও জোয়াকিন কোয়েরা। যোগ করা সময়ে লাল কার্ড দেখেন লিভারপুল তারকা জো গোমেজ।

খেলার পঞ্চম মিনিটে ইয়েদারের গোলে লিভারপুলকে ‘স্তব্ধ’ করে এগিয়ে যায় সেভিয়া। তবে ২১তম মিনিটে ফিরমিনোর গোলে সমতায় ফেরে অল রেডরা।

বিরতির আট মিনিট আগে সালাহ গোল করলে এগিয়ে যায় লিভারপুল। কিন্তু ৭২তম মিনিটে কোরেয়ার গোলে মূল্যবান এক পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়ে সেভিয়া।

২০১৬ সালে বাসেলে ইউরোপা লিগের ফাইনালে মুখোমুখি হয় লিভারপুল ও সেভিয়া। সেই ম্যাচে লিভারপুলকে ৩-১ গোলে হারিয়ে শিরোপা জয় করে স্প্যানিশ জায়ান্টরা। ঘরের মাঠে সেই হারের বদলা নেয়ার সুযোগ ছিল অল রেডদের সামনে। তবে হতাশাজনক ড্রয়ে সেই সুযোগ হাতছাড়া করল ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ জায়ান্টরা।

‘ই’ গ্রুপের দিনের অপর ম্যাচটিও ড্রয়ে শেষ হয়েছে। স্পার্তাক মস্কো ও মারিবর ১-১ গোলের ড্র নিয়ে মাঠ ছেড়েছে।

ডর্টমুন্ডকে হারিয়ে টটেনহ্যামের শুভসূচনা

উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ২০১৭-১৮ মৌসুমে শুভসূচনা করেছে টটেনহ্যাম। বুধবার রাতে বরুসিয়া ডর্টমুন্ডকে ৩-১ গোলে পরাজিত করেছে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ জায়ান্টরা।

লন্ডনের ওয়েম্বলিতে অনুষ্ঠিত ম্যাচে টটেনহ্যামের হয়ে জোড়া গোল করেন হ্যারি কেন। অপর গোলটি করেন সোন-হিয়ং মিন। ডর্টমুন্ডের একমাত্র গোলটি করেন আন্দ্রি ইয়ারমোলেঙ্কো।

খেলার চতুর্থ মিনিটে হিয়ং মিনের গোলে এগিয়ে যায় টটেনহ্যাম। তবে সাত মিনিট পরই ডর্টমুন্ডকে সমতায় ফেরান ইয়ারমোলেঙ্কো।

টটেনহ্যামের মুখে হাসি ফুটতে সময় লাগেনি। পঞ্চদশ মিনিটে কেনের গোলে লিড নেয় স্বাগতিকরা। বিরতির পর স্পার্সদের হয়ে জয়সূচক গোলটিও করেন এই ইংলিশ ফরোয়ার্ড।

‘এইচ’ গ্রুপের দিনের অপর ম্যাচে বড় জয় পেয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ। ঘরের মাঠে অ্যাপোয়েলকে ৩-০ গোলে পরাজিত করা ম্যাচে রিয়ালের হয়ে জোড়া গোল করেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো।

Share this post

PinIt
scroll to top
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri