কুতুবদিয়ায় বাজার ইলিশ শূণ্য : সাগরও ফিশিং বোট শূণ্য

Fish.jpg

এম.নজরুল ইসলাম,কুতুবদিয়া(২ অক্টোবর) :: কুতুবদিয়া উপকূলে ‘মা’ ইলিশ রক্ষা কার্যক্রমে প্রাথমিকভাবে লক্ষণীয় সাড়া পাওয়া গেছে।

২অক্টোবর কুতুবদিয়া চ্যানেলে উপজেলা মৎস্য দপ্তর ও বাংলাদেশ কোস্টগার্ড যৌথভাবে অভিযান চালিয়ে পেকুয়া সংলগ্ন অংশ হতে ৪টি বেহেন্দি জাল ও ৫ হাজার মিটার কারেন্ট জাল জব্দ করেছে। পরে তা বড়ঘোপ ঘাট সংলগ্ন এলাকায় পুড়িয়ে দেয়া হয়।

এসময় উপস্থিত থেকে অভিযানে নেতৃত্বদেন মৎস্য দপ্তরের কর্মকার্তা নাসিম আল মাহমুদ। তাকে সহযোগিতা করেন কন্টিনজেন্ট কমান্ডার মোঃ সাইফুল আফসার।

এদিকে স্থানীয় বাজারগুলো পরিদর্শণ করে কোথাও ইলিশের অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি। সাগরে থেকে সকল ফিশিংবোট ইতোমধ্যেই উপকূলে ফিরে আসার কারনে সাগরেও কোন মাছ ধরার ফিশিং বোট দেখা যায়নি।

প্রশাসনের নির্দেশানা মেনে ফিশিংবোটগুলো উপকূলে ফিরে আসায় সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশসহ আগামী ২২ অক্টোবর পর্যন্ত ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুমে উপকূলের সকল মাছ ধরার নৌকাও ফিশিং বোটের মালিকগণকে সাগরে মাছ ধরতে না যাওয়ার জন্য অনুরোধ করেছেন কুতুবদিয়া উপজেলা মৎস্য দপ্তরের কর্মকর্তা নাসিম আল মাহমুদ।

এব্যপারে উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা নাসিম আল মাহমুদ বলেন, ইলিশ সংরক্ষণে প্রতি বছরের ধারাবাহিক কার্যক্রমের ফলে মৎসজীবীসহ সকলের মাঝে এখন অনেক সচেতনতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

এবার মা ইলিম রক্ষা কার্যক্রমের প্রচারণার অংশ হিসেবে উপজেলাজুড়ে একাধীকবার মাইকিংসহ ২ হাজার লিপলেট বিতরণ করা হয়েছে এবং বড়ঘোপ ঘাট,দরবার ঘাট ও উপজেলা পরিষদসহ উপকূলের জনগুরুত্পূর্ণ স্থানে সচেতনতামূলক ব্যানার লাগানো হয়েছে।

এছাড়া ১ অক্টোবর হতে ২২ অক্টোবর পর্যন্ত ‘ ইলিশ সংরক্ষণ অভিযান-২০১৭’ বাস্তবায়নে উপজেলা প্রসাশন,বাংলাদেশ কোস্টগার্ড ও বাংলাদেশ নৌবাহিনী কর্তৃক জোর তৎপরতা অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি।

Share this post

PinIt
scroll to top
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri