টেকনাফের নাফনদীতে ট্রলার ডুবিতে আরো এক রোহিঙ্গার মৃতদেহ উদ্ধার : মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩১

dead-lash-udhar.jpg

হুমায়ূন রশিদ,টেকনাফ(১২ অক্টোবর) :: টেকনাফের শাহপরীরদ্বীপ ঘোলার চর পয়েন্টে রোহিঙ্গা বোঝাই নৌকা ডুবির ঘটনায় আরো ১ রোহিঙ্গার লাশ উদ্ধার হয়েছে। বৃহস্পতিবার বেলা ১০টার দিকে শাহপরীরদ্বীপ ঘোলার চর পয়েন্টের কাছে নাফ নদী থেকে মৃতদেহটি উদ্ধার করে কোস্টগার্ড।

কোস্টগার্ড শাহপরীরদ্বীপ স্টেশনের কোম্পানী কমান্ডার আকতার হোসেন জানান, আনুমানিক ২৫-৩০ বছরের একজন পুরুষের মৃতদেহটি উদ্ধারের পর স্থানীয় কেউ এটা শনাক্ত করতে পারেনি। মৃতদেহটি বেশ কয়েকদিন আগের। পরে থানা পুলিশে খবর দেওয়া হলে তারা দাফনের ব্যবস্থা করেন।

টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাইন উদ্দিন খান সংবাদের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, মৃতদেহটি ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে স্থানীয় কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। এনিয়ে ট্রলার ডুবির ঘটনায় ৩১ লাশ উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

নাফ নদী ও সাগর থেকে উদ্ধার মৃতদেহের মধ্যে ১৯ জন শিশু, ১০ জন নারী ও ২জন পুরুষ। এদের সবাইকে স্থানীয়ভাবে দাফন করা হয়েছে। এদিকে এ পর্যন্ত ১৭জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। তবে এখনও বেশ কয়েকজন রোহিঙ্গা নিখোঁজ থাকতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

প্রসঙ্গত গত রোববার রাতে একটি ইঞ্জিন চালিত ট্রলারে প্রায় ৬০-৬৫ জনের মতো রোহিঙ্গা নিয়ে মংডুর নাইক্ষংদিয়া এলাকা থেকে বাংলাদেশের শাহপরীরদ্বীপ পয়েন্টে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করছিল। এসময় ডুবো চরে ধাক্কা লেগে টেকনাফ শাহপরীরদ্বীপের নাফ নদীর ঘোলার চর পয়েন্টে দূর্ঘটনায় ট্রলারটি ডুবে যায়।

ঘটনার পরপরই উদ্ধার অভিযান শুরু করে পুলিশ, বিজিবি, কোস্টগার্ড ও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা। এতে এ ১৭ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়। পরে নাফ নদী ও বঙ্গোপসাগরের বিভিন্ন পয়েন্ট থেকে এ পর্যন্ত ৩১ লাশ উদ্ধার করা হলো।

এর আগে গত ২৮ সেপ্টেম্বর কক্সবাজারের উখিয়ার ইনানীতে একটি রোহিঙ্গা বোঝাই বোট ডুবির ঘটনায় ২১ জন রোহিঙ্গার লাশ উদ্ধার হয়েছিল।গত ২৫ আগস্ট থেকে এপর্যন্ত অন্তত ৩০টি বোট ডুবির ঘটনায় ২ শতাধিক রোহিঙ্গার লাশ উদ্ধার হয়েছে।

 

Share this post

PinIt
scroll to top
bahis siteleri