izmir escort telefonlari
porno izle sex hikaye
çorum sürücü kursu malatya reklam

পেকুয়ায় পুলিশ উদ্ধার করল নিহত মানিকের লুঙ্গি

dead-nihoto-f-up-coxbangla.jpg

নাজিম উদ্দিন,পেকুয়া(২ নভেম্বর) :: পেকুয়ায় পুলিশ উদ্ধার করল নিহত মানিকের পরনের লুঙ্গি। বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টার দিকে উপজেলার বারবাকিয়া ইউনিয়নের বারাইয়াকাটা এবিসি সড়কের ঢালু অংশ থেকে এ লুঙ্গিটি উদ্ধার করে।

গত ২৬ অক্টোবর বিকেলে বারবাকিয়া ইউনিয়নের পশ্চিম পাহাড়িয়াখালী জড়পাথর বিল থেকে একটি গলাকাটা লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ধান ক্ষেতে লাশটি মস্তকবিহীন গলাকাটা অবস্থায় জমিতে পতিত ছিল।

এ সময় ঘাস কাটতে গিয়ে এক কিশোর লাশটি দেখতে পান। এ সময় পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে। কিছুদুর একই বিল থেকে বিচ্ছিন্ন অবস্থায় লাশের মস্তক উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারের তিন দিন পর লাশটির পরিচয় মেলে।

সনাক্ত করা হয় উদ্ধার হওয়া এ লাশটি উজানটিয়া ইউনিয়নের ঠান্ডারপাড়া এলাকার মোক্তার আহমদের ছেলে মানিকের। তার মা জিগারা বেগম ওই দিন পেকুয়া থানায় হাজির হন। তিনি পুলিশকে নিশ্চিত করেছেন উদ্ধার হওয়া লাশটি তার ছেলে মানিকের।

গত ১ নভেম্বর চকরিয়া সিনিয়র জুড়িশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে পৃথক দুটি আবেদন প্রেরন করেছেন ভিকটিমের পরিবার। সম্পুরক এজাহার হিসেবে গন্য করতে একটি আবেদন করা হয়েছে। সেখানে আসামীদের নাম দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া মানিকের মরদেহ পরিবারের নিকট হস্তান্তর করতে পৃথক আবেদন করা হয়েছে।

লাশ উত্তোলন করতে পুলিশকে নির্দেশ দেন বিজ্ঞ আদালত। ওই দিন সকালে ছেলের লাশ উদ্ধারের স্থান দেখতে যান মোক্তার আহমদের স্ত্রী জিগারা বেগম ও তার সন্তানরা।

পরিবারের কয়েকজন সদস্য জড়পাথর বিলের ধান ক্ষেত অতিক্রম করে একটি আইল দিয়ে সড়কে পৌছছিলেন। এ সময় আঞ্চলিক মহাসড়ক বারাইয়াকাটা বারবাকিয়া সড়কের একটু পশ্চিম পার্শ্বে একটি লুঙ্গি দেখতে পান। এ সময় লুঙ্গিটি নিহত মানিকের বলে নিশ্চিত করা হয়।

জিগারা বেগম জানায়, খুনিরা আমার ছেলেকে ওই স্থানে নিয়ে আসে। সেখানে ধস্তাধস্তি হয়েছে। মাটি সরে গেছে।

এ ধরনের চিত্র আমরা দেখেছি। লুঙ্গিটি আমার ছেলে মানিক পরিধান করত। মুলত এ লুঙ্গিটি মানিকের বাবার। মানিক বাড়ি থেকে যাওয়ার সময় তার পিতার এ লুঙ্গি পরেছে। এ সময় পেকুয়া থানার এস,আই কিশোর লুঙ্গিটি উদ্ধার করেছেন বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

Share this post

PinIt
scroll to top