কক্সবাজার সদরের ভারুয়াখালীতে পুলিশের উপর হামলার চেষ্টা : আটক-৩

atok-eb.jpg

শাহিদ মোস্তফা শাহিদ,সদর(৮ নভেম্বর) :: কক্সবাজার সদরের ভারুয়াখালীতে আসামী ধরতে গিয়ে পুলিশের উপর হামলার চেষ্টা চালিয়েছে স্বজনরা। এ ঘটনায় ৩ নারীকে আটক করেছে। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে এএসপি সার্কেল। সংঘটিত ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

৮ নভেম্বর বিকাল ৪টার দিকে ইউনিয়নের উল্টাখালী গ্রামে ঘটে এ ঘটনাটি। জানা যায়, ইউনিয়নের ননা মিয়া পাড়ার মৃত ছৈয়দ আলমের পুত্র সুলতান আহমদ ২য় স্ত্রীর বাপের বাড়ীতে দাওয়াত খেতে যায়। এসময় ১ম স্ত্রীর দায়ের করা মামলার ওয়ারেন্ট নিয়ে দীর্ঘদিন পলাতক ছিল।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আটক করতে যায় ঈদগাঁও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এএসআই আহসান মোর্শেদ ও মাইনুদ্দীন। এসময় তাকে আটকের চেষ্টা করলে স্বজনরা পুলিশের উপর হামলা করতে উদ্ধত হয়। এসময় উভয়পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

এছাড়া হাতাহাতি, ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনাও ঘটেছে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে। শোর চিৎকারে এলাকাবাসী এগিয়ে আসলে ঐ সুযোগে আসামী সুলতান আহমদ পালিয়ে যায়। এক পর্যায়ে পুলিশকে জিম্মি করে রাখে আশপাশের লোকজন।

খবর পেয়ে ঈদগাঁও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মো. খায়রুজ্জামান সহ সঙ্গীয় একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে ব্যাপক তল্লাশী ও অভিযান চালায়।

এসময় ঘটনায় জড়িত ৩ নারীকে আটক করে তদন্ত কেন্দ্রে নিয়ে আসে এবং এএসআই আহসান মোর্শেদ ও মাইনুদ্দীনকে জিম্মি দশা থেকে মুক্ত করে।

তাৎক্ষনিক খবর পেয়ে সদর-রামু সার্কেল রুহুল কুদ্দুছ সদর মডেল থানার ওসি তদন্ত কামরুল আজমসহ থানা থেকে আরো একটি পুলিশ দল এসে ৩ নারীকে আটক করে।

এ রিপোর্ট লিখা পর্যন্ত ঘটনাস্থল পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে।

এ বিষয়ে জানার জন্য আইসি মো. খায়রুজ্জামানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি কিছুক্ষণ পর বিস্তারিত জানাবেন বলে সংযোগ কেটে দেন। এদিকে অভিযানে থাকায় তাৎক্ষনিক আটককৃতদের পরিচয় পাওয়া যায়নি। তথ্য পাওয়া গেলে পুনরায় গুরুত্ব সহকারে ছাপানো হবে।

Share this post

PinIt
scroll to top
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri