রোহিঙ্গাদের দুর্ভোগ দেখতে দুই দিনের সফরে ঢাকায় তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী বিনালি ইলদিরিম

trk-pm2.jpg

কক্সবাংলা রিপোর্ট(১৮ ডিসেম্বর) :: কক্সবাজারের উখিয়া,বালুখালী ও টেকনাফের বিভিন্ন ক্যাম্পে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের দুর্ভোগ দেখতে তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী বিনালি ইলদিরিম দুই দিনের সরকারি সফরে সোমবার রাতে ঢাকা পৌঁছেছেন।একটি তার্কিশ এয়ারক্রাফট প্রধানমন্ত্রী বিনালি ইলদিরিম ও তার সফরসঙ্গীদের নিয়ে রাত ৮টা ৪৫ মিনিটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী বিমানবন্দরে তাকে স্বাগত জানান। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আমন্ত্রণে বিনালি ইলদিরিম এ সফরে আসেন।

বাংলাদেশ ও তুরস্কের মধ্যে দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য ও বিনিয়োগসহ রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে বিস্তারিত আলোচনার উদ্দেশ্যেই তুরস্কের প্রধানমন্ত্রীর এই বাংলাদেশ সফর।

সফরকালে তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও রাষ্ট্রপতি মো আবদুল হামিদের সঙ্গে বৈঠক করবেন। এবং মিয়ানমার থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের দুর্ভোগ-দুর্গতি পর্যবেক্ষণের জন্য কক্সবাজারে অবস্থিত বিভিন্ন আশ্রয় শিবির পরিদর্শনে যাবেন।

সেখানে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের সঙ্গে এবং তাদের সহযোগিতায় নিয়োজিত টার্কিশ কোঅপারেশন এন্ড কোঅর্ডিনেশন এজেন্সিসহ বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠন ও সংস্থার কর্মকর্তাদের সঙ্গেও কথা বলবেন তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী।

উল্লেখ্য, গত সেপ্টেম্বর মাসে তুরস্কের ফার্স্টলেডি এমিলি এরদোগান ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুট ক্যাভুফোগলু বাংলাদেশ সফর করেন এবং সে সময় তারা কক্সবাজার গিয়ে রোহিঙ্গাদের অবস্থা পরিদর্শন করেন।

কক্সবাজারে রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শনকালে তুর্কি প্রধানমন্ত্রী রোহিঙ্গাদের জন্য তুরস্ক সরকারের ত্রাণের প্যাকেজ ঘোষণা করতে পারেন। তুরস্ক এযাবৎ এক লাখ ২৫ হাজার রোহিঙ্গার জন্য আবাসন নির্মাণ করে দিতে রাজি হয়েছে।

উল্লেখ্য, জেরুজালেম ইস্যুতে গত ১৩ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত ইসলামী দেশগুলোর জোট অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কোঅপারেশনের (ওআইসি) বিশেষ জরুরি সম্মেলনে যোগ দিতে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ তুরস্ক সফর করেন।

এদিকে, তুরস্কের সরকারি সংবাদ সংস্থা আনাদলু এজেন্সি এক খবরে গতকাল বলেছে, রোহিঙ্গাদের জন্য সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয়ার জন্য বাংলাদেশ ও তার সরকারের ভূমিকার ভূয়সী প্রশংসা করেছেন তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী।

বাংলাদেশ সফরের প্রাক্কালে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে বাংলাদেশের প্রশংসার পাশাপাশি তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী বলেন, রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে আলোচনার পাশাপাশি বাংলাদেশ ও তুরস্কের মধ্যে সম্পর্ক উন্নয়নের লক্ষ্যেই তার এই বাংলাদেশ সফর।

তিনি বলেন, মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের লাখ লাখ রোহিঙ্গা মুসলিমকে বাংলাদেশে আশ্রয় নিতে জোরপূর্বক বাধ্য করা হয়েছে, তাদের ওপর হত্যা ও ধ্বংসযজ্ঞ চালানো হয়েছে। এ অবস্থায় বাংলাদেশ এককভাবে তাদের আশ্রয় দিয়ে মহান কাজ করেছে, যা প্রশংসার দাবিদার।

রোহিঙ্গাদের প্রতি সহমর্মিতা ও সহযোগিতার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করে তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী বলেন, বর্তমানে কঠিন বাস্তবতার মুখোমুখি বাংলাদেশকে আমাদের সক্ষমতার সর্বোচ্চ ব্যবহারের মাধ্যমে সহযোগিতা করব।

বাসস জানায়, তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণের মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন এবং ধানমন্ডিতে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শন এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতির প্রতি সম্মান জানাবেন।

Share this post

PinIt
scroll to top
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri