চকরিয়ায় একরাতের অভিযানে আটক ওয়ারেন্টভুক্ত ২৮ আসামি

Chakaria-Picture-29-12-2017.jpg

এম.জিয়াবুল হক,চকরিয়া(২৯ ডিসেম্বর) :: চকরিয়া থানা পুলিশ উপজেলার আঠার ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা এলাকায় বিশেষ অভিযান শুরু করেছে। অভিযানের দ্বিতীয় দিনে বৃহস্পতিবার রাত থেকে শুক্রবার সকাল সাতটা পর্যন্ত উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে নিয়মিত ও পরোয়ানাভুক্ত মামলার ২৮ আসামিকে গ্রেফতার করেছে।

গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে উপজেলার দুর্গম ইউনিয়ন বমুবিলছড়ি থেকে ২৫বছর আগের মামলায় দুইবছরের সাজাপ্রাপ্ত দুই আসামি ও তিনবছর আগের মামলায় দুইবছরের সাজাপ্রাপ্ত অপর এক আসামিকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে পুলিশ। বিশেষ অভিযানে আগেরদিন অন্তত ১২ আসামিকে গ্রেফতার করা হয়।

চকরিয়া থানার এসআই আবদুল খালেক ও এসআই মোহাম্মদ আলমগীর আলম বলেন, অভিযানের দ্বিতীয় দিনে বৃহস্পতিবার রাতে চকরিয়া থানার ওসি মো.বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরীর নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে ২৫ বছর আগের মামলায় দুইবছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামি স্থানীয় ইদ্রিছ আহমদের ছেলে আবদুর রহিম ও সুদত্ত বড়–য়ার ছেলে অনিল বড়–য়া এবং অপর একটি মামলায় দুইবছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামি একই ইউনিয়নের মৃত আহমদ হোছেনের ছেলে আবুল কালামকে গ্রেফতার করা হয়।

তাঁরা আরো বলেন, গ্রেফতারকৃত আবদুর রহিম ও অনিল বড়–য়া ১৯৯২ সালে দায়ের করা একটি দাঙ্গা-হাঙ্গামা মামলার এজাহারনামীয় আসামি। আদালত মামলার দীর্ঘ শুনানী শেষে তাদেরকে (দুইজন) দুইবছর করে কারাদন্ড দেন। অপরদিকে ২০১৭ সালে বনবিভাগের দায়ের করা একটি বন মামলার আসামি আবুল কালামকে আদালত দুইবছরের সাজা দেন। মুলত এসব আসামিরা মামলা রুজুর পর থেকে পলাতক ছিলেন।

চকরিয়া থানার ডিউটি অফিসার এসআই রোজিনা আক্তার জানান, অভিযানের দ্বিতীয় দিনে গ্রেফতারকৃত ২৮ আসামির মধ্যে তিনজন দুইবছরের সাজাপ্রাপ্ত। অন্য বেশিরভাগ আসামির বিরুদ্ধে আদালতের গ্রেফতারী পরোয়ারা রয়েছে।

তাদের মধ্যে আছেন উপজেলার কাকারা ইউনিয়নের মাইজকাকারা গ্রামের মৃত আব্বাস আহমদের ছেলে রুহুল আমিন, সাহারবিল ইউনিয়নের মৃত আবদুল জলিলের ছেলে নুরুল আমিন, বমুবিলছড়ি ইউনিয়নের আবদুল হাফেজের ছেলে জসিম উদ্দিন, চকরিয়া পৌরসভার হালকাকারা গ্রামের আবদুল মালেকের ছেলে রিফাতুল করিম ও কুমিল্লা জেলার তিতাস উপজেলার দেলোয়ার হোসেনের ছেলে (বর্তমানে চকরিয়া পৌরসভার উত্তর সিকদার পাড়া) গ্রামের মো.রুবেল অন্যতম।

ডিউটি অফিসার জানান, চকরিয়া থানার ওসি মো.বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরীর নেতৃত্বে পরিদর্শক তদন্ত মো.মিজানুর রহমান, উপপরিদর্শক (এসআই) মো.আলমগীর আলম, সুকান্ত চৌধুরী, আবদুল খালেক, অপু বড়ুয়া, ও সহকারি উপ-পরিদর্শক (এএসআই) জহিরুল ইসলাম, সাজু প্রতাপ ও জুয়েল রায়সহ সঙ্গিয় অন্তত ছয়টি পুলিশ দল বিভক্ত হয়ে বিশেষ অভিযানে অংশ নেন।

চকরিয়া থানার ওসি) মো.বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, নতুন বছরে পর্যটন জেলা কক্সবাজারের আইনশৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখতে জেলা পুলিশ সুপার ড.ইকবাল হোসেন ইতোমধ্যে মাঠ পর্যায়ে অভিযান জোরদার করার নির্দেশ দিয়েছেন। পুলিশ সুপারের নির্দেশের আলোকে চকরিয়া থানা পুলিশের পৃথকদল উপজেলার বিভিন্ন জনপদে অভিযান শুরু করেছে।

তিনি বলেন, অভিযানের দ্বিতীয় দিনে ২৫ বছর আগের মামলায় দুইবছরের সাজাপ্রাপ্ত তিন আসামিসহ ২৮জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃত এসব আসামিদের বিরুদ্ধে ডাকাতি, মাদক বেচাকেনা, দস্যুতা, দাঙ্গা-হাঙ্গামা ও লুটপাটের ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় গ্রেপ্তারী পরোয়ানা রয়েছে।

ওসি বলেন, শুক্রবার বিকালে এসব আসামিকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

Share this post

PinIt
scroll to top
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri