কক্সবাজার শহরে পর্যটক হত্যাকারী দুই ছিনতাইকারী সহ পাঁচদিনে ৪৯ সদস্য আটক

sintaikari-cox-city-tourist-murderer-coxbangla.jpg

কক্সবাংলা রিপোর্ট(৩১ ডিসেম্বর) :: পর্যটন মৌসুমকে সামনে রেখে হঠাৎ কক্সবাজার শহরে বেপরোয়া হয়ে উঠে সংঘবদ্ধ ছিনতাইকারী দল। তারা পর্যটকসহ স্থানীয়দের টার্গেট করে কোন না কোন সময়ে জিম্মি করে সর্বস্ব লুটসহ বিভিন্ন অপকর্ম করে আসছিল। এমনকি এক পর্যটক ছিনতাইকারীদের ছুরিকাঘাতে নিহত হলে সারাদেশে তোলপাড় সৃষ্টি হয়।এমন সময় পর্যটক এবং স্থানীয়দের নিরাপত্তা নিয়ে বিভিন্ন মহল থেকে পুলিশের অভিযান নিয়ে নানা প্রশ্নের সৃষ্টি হয়।

এরই পরিপ্রেক্ষিতে জেলা পুলিশ ছিনতাইকারীদের তালিকা করে সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রনজিত কুমার বড়–য়ার নেতৃত্বে অপরাপর অফিসারগন বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে গত ৫ দিনে ৪৭ ছিনতাইকারীকে আটক করেছে। এছাড়া পর্যটক হত্যায় জড়িত সন্দেহে দুই ছিনতাইকারীকেও আটক করেছে র‌্যাব সদস্যরা। এ নিয়ে ৫ দিনের অভিযানে আটকের সংখ্যা দাড়াল ৪৯ জনে। আর পুলিশ এ অভিযান অব্যাহত রাখায় পর্যটক,ব্যাসায়ী ও স্থানীয়দের মাঝে অনেকটা স্বস্থি ফিরে এসেছে।

পুলিশ সূত্রে জান যায়, শহরের ক্রাইমজোনখ্যাত দঃ রুমালিয়ারছড়া ডালিয়া কলোনীর সামনে ৩১ ডিসেম্বর রবিবার ভোর রাতে অভিযান চালিয়ে ৪টি ছোরা, ৫টি মুখোশ ও ৪টি লোহার রড সহ ৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হল,কক্সবাজার শহরের পিটি স্কুল হাশেমিয়া মাদ্রসার এলাকার ছাদেক এর ছেলে মোঃ জামাল হোসেন (২৮),গাড়ীর মাঠ এলাকার মজিবুল হক এর ছেলে মোঃ ফয়েজ (২৬), উখিয়া কোট বাজার মোঃ হাছান প্র: হালিম এর ছেলে মোঃ সোহেল (২৪), দঃ রুমলিয়ারছড়া এলাকার মোঃ কালুর ছেলে মোঃ ইমরান (১৯),পিটিস্কুল এলাকার মোজাম্মেল হক এর ছেলে সায়মন ইসলাম প্র: বাবু (১৬)।

অপরদিকে,গত ১৫ ডিসেম্বর কক্সবাজার বেড়াতে এসে ছিনতাইকারিদের কবলে পড়ে নির্মমভাবে খুন হয় আবু তাহের ওরফে সাগর নামের এক পর্যটক। এই পর্যটক হত্যায় জড়িত সন্দেহে শুক্রবার রাতে শহরের ঝিলংজার হাজি পাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে সাইফুল ইসলাম ও খায়ের হোসেন নামে দুই ছিনতাইকারিকে আটক করে র‌্যাব সদস্যরা। আটককৃত ছিনতাইকারীদের কাছ থেকে নিহত আবু তাহের ওরফে সাগরের মোবাইল ফোনও উদ্ধার করা হয়। আটককৃতরা পেশাদার ছিনতাইকারি।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রনজিত কুমার বড়–য়া জানান, বিশেষ অভিযানের সময় আগ্নেয়াস্ত্রসহ এসব ছিনতাইকারিদের গ্রেপ্তার করা করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট ধারায় মামলা রুজু করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, ৫দিনে ৪৭ জন ছিনতাইকারি আটক করা হয়। পর্যটন মৌসুমকে সামনে রেখে কোন অপরাধী যাতে মাথাচাড়া দিতে না পারে এ লক্ষ্যে পুলিশের বিশেষ অভিযান অব্যাহত থাকবে।

Share this post

PinIt
scroll to top
bahis siteleri