buy Instagram followers
kayseri escort samsun escort afyon escort manisa escort mersin escort denizli escort kibris escort rize escort sinop escort usak escort trabzon escort

তুমব্রু সীমান্তের নো-ম্যান্স ল্যান্ডে অবস্থানরত রোহিঙ্গাদের মধ্যে আতঙ্ক

DSC07269.jpg

মোসলেহ উদ্দিন,উখিয়া(১৬ ফেব্রুয়ারি) :: তুমব্রু সীমান্তের ওপাশে মিয়ানমারের অতিরিক্ত সৈন্য সমাবেশ, নতুন করে বাংকার খনন, রাতে ফাঁকা গুলিবর্ষণ ও ঘনঘন মাইকিংয়ের ঘটনায় শূন্যরেখায় আশ্রিত রোহিঙ্গা ও স্থানীয় গ্রামবাসীর মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

শুক্রবার সকালে রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির কর্মীরা শূন্যরেখায় আশ্রিত রোহিঙ্গাদের স্থানান্তরের আশ্বাস দিয়ে তাদেরকে মানসিকভাবে প্রস্তুতি নেওয়ার কথা বললেও এসব রোহিঙ্গারা যেকোন মুহূর্তে শূন্যরেখা থেকে চলে আসতে পারে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় চেয়ারম্যান একে জাহাঙ্গীর আজিজ।
তিনি আরো জানান, সীমান্ত এলাকায় মিয়ানমার সেনারা যে নৈরাজ্যকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করেছে তাতে স্থানীয় গ্রামবাসীর মধ্যে দেখা দিয়েছে উদ্বেগ-উত্কণ্ঠা।
শূন্যরেখায় আশ্রিত রোহিঙ্গা নেতা দিল মোহাম্মদ (৪০) সাংবাদিকদের জানান,যে কোনও মুহূর্তে ‘বিপদের সম্মুখীন হওয়ার’ ভয় দেখিয়ে রোহিঙ্গাদের নো-ম্যানস ল্যান্ড ছাড়া করতে প্রায় প্রতিদিনই সীমান্তে মাইকিং করছে মিয়ানমারের বর্ডার গার্ড পুলিশ (বিজিপি)। গত কয়েকদিন ধরে সীমান্তের ওপারে কাঁটাতারের বেড়া সংলগ্ন এলাকা তমুব্রু, তুমব্রু উত্তরপাড়া, টেকিবুনিয়া, কোয়াংচিবন, ফকিরাবাজার, কুমিরখালী, কাদিরবিলসহ বিস্তীর্ণ সীমান্ত এলাকাজুড়ে মিয়ানমার সেনারা নতুন করে বাংকার খনন করছে। সেখানে মিয়ানমার সেনারা অবস্থান নিয়েছে।
তারা রাতের আঁধারে সীমান্তের শূন্যরেখায় এসে মুহুর্মুহু ফাঁকা গুলি বর্ষণ করে ভীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করছে। যে কারণে এখানে থাকা মোটেই নিরাপদ নয় বলে ওই রোহিঙ্গা নেতা জানিয়েছেন।
প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় ইউপি মহিলা সদস্য খালেদা বেগম জানান, ইউনিয়ন পরিষদের যাওয়ার সময় এপার থেকে তিনি দেখেছেন ওপারে শূন্যরেখায় এসে মিয়ানমার সেনারা বাংকার খনন করছে। সেখানে বৈদ্যুতিক তার সংযোগ দিচ্ছে। এ নিয়ে তুমব্রু ও ঘুমধুম এলাকায় বসবাসরত মানুষের মাঝে ভীতির সৃষ্টি হয়েছে।
কক্সবাজার ৩৪ বিজিবি’র উপ-অধিনায়ক মেজর ইকবাল আহমেদ জানান, সীমান্তজুড়ে মিয়ানমার সেনাদের বাংকার খনন ও অতিরিক্ত সৈন্য সমাবেশের বিষয়টি তিনি জেনেছেন। বিজিবিকে সতর্ক থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
প্রসঙ্গত শুক্রবার বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে দুই দেশের সীমান্তের শূন্যরেখায় আটকে পড়া প্রায় ছয় হাজার রোহিঙ্গাকে ফেরত নেয়ার বিষয়ে ২০ ফেব্রুয়ারি মিয়ানমারে আলোচনা হবে বলে জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল ।

Share this post

PinIt
izmir escort bursa escort Escort Bayan
scroll to top
en English Version bn Bangla Version
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri