ঈদগাঁওতে উন্নয়নশীল দেশের স্বীকৃতিতে আনন্দ আয়োজন

1-1.jpg

মোঃ রেজাউল করিম, ঈদগাঁও(২২ মার্চ) :: বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে জাতিসংঘ কর্তৃক স্বীকৃতি পাওয়ায় ঈদগাঁওর বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে দিনব্যাপী নানা অনুষ্ঠান উদযাপন করা হয়েছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনামতে এলাকার প্রতিষ্ঠানগুলোর স্ব উদ্যোগে স্বতঃস্ফূর্তভাবে এসব কর্মসূচী পালন করে।

কর্মসূচীতে ছিল বর্ণাঢ্য আনন্দ র‌্যালী, শোভাযাত্রা, আনন্দ আয়োজন, আলোচনা সভা, প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শন, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান প্রভৃতি।

এতদ এলাকার স্বনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঈদগাহ আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় এ উপলক্ষে সকালে বিদ্যালয় মাঠ থেকে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রার আয়োজন করে।

প্রধান শিক্ষক খুরশিদুল জান্নাত ও সহকারী প্রধান শিক্ষক জসিম উদ্দীনের নেতৃত্বে স্কুল গেইট থেকে উক্ত আনন্দ র‌্যালীটি বের করা হয়। যা বাজারের প্রধান সড়ক ডিসি রোড হয়ে বাসস্টেশন প্রদক্ষিণ করে। পরে পূর্ব জাগির পাড়া ও বিমান মৌলভীর বাড়ির সম্মুখস্থ গেইট দিয়ে পুনরায় ডিসি রোড হয়ে হাইস্কুল মাঠে এসে শেষ হয়।

র‌্যালীতে শিক্ষার্থীরা ফেস্টুন প্রদর্শন করে। এ উপলক্ষে বিদ্যালয় মিলনায়তনে এক সংক্ষিপ্ত আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে এতে সভাপতির সমাপনী বক্তব্য দেন প্রধান শিক্ষক।

এসময় সহকারী প্রধান শিক্ষক, সিনিয়র শিক্ষক মোঃ সিরাজুল হক, আবদুল মজিদ খান, নুরুল কবির, মোঃ রেজাউল করিম, পূর্ণাম পাল, তারিকুল হাসান তারেক, প্রবীণ শিক্ষক শফিক আহমদ, মোঃ জাফর আলম, এম. মোখতার আহমদ, মোঃ আবু তাহের, আবদুস সালাম হেলালী, মোহাম্মদ আলম, শেখর কান্তি দে, সালমিরা সুলতানা সোমা, ইয়াছির আরফাত, মোজাম্মেল হক, কামাল উদ্দীন প্রমুখ।

শেষে সহকারী শিক্ষক আনিসুর রহমানের তত্ত্বাবধানে উন্নয়নশীল দেশের স্বীকৃতি অর্জন সংক্রান্ত কয়েকটি প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শন করা হয়। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন সহকারী শিক্ষক মোহাম্মদ ইবরাহীম।

এ উপলক্ষে বিদ্যালয় গেইটে শিক্ষা ক্ষেত্রে বর্তমান সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নের বিতরণ সম্বলিত বড় ব্যানার সাঁটানো হয়। আলোচনায় বলা হয়, এ অর্জন বাংলাদেশের জনগণের। জনগনই হচ্ছে মূল শক্তি। তারা পারে সব রকম অর্জন করতে। তাই এ অগ্রযাত্রাকে যে কোন উপায়ে ধরে রাখতে হবে।

উল্লেখ্য, জাতিসংঘের অর্থনৈতিক ও সামাজিক কাউন্সিলের উন্নয়ন নীতিমালা বিষয়ক কমিটি গত ১৫ মার্চ যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে তাদের ত্রি-বার্ষিক পর্যালোচনা সভায় এলডিসি থেকে বাংলাদেশের উত্তোরণের যোগ্যতা অর্জনের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়। পরের দিন জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি মাসুদ বিন মোমেনের কাছে এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিক চিঠি হস্তান্তর করেন।

Share this post

PinIt
scroll to top
bahis siteleri