পেকুয়ায় অন্ত:সত্তা স্ত্রীকে পিটিয়ে জখম : আদালতে মামলা দায়ের

mamla-nari_nirjatonsm-logo.jpg
নাজিম উদ্দিন,পেকুয়া(২৭ মার্চ) :: পেকুয়ায় যৌতুক না দেয়ায় চার মাসের অন্ত:সত্তা স্ত্রীকে পিটিয়ে বাড়ি থেকে বের করে দিল পাষন্ড স্বামী। মুমর্ষ অবস্থায় স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে পেকুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। (২০মার্চ) মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলার রাজাখালী ইউনিয়নের দশেরঘোনা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
এ নিয়ে স্ত্রী মালেকা সোলতানা বাদি হয়ে (২১মার্চ) বুধবার কক্সবাজার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল স্বামী কবির হোসেনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন।যার নং ৪০৮/১৮। আদালত বিষয়টি আমলে নিয়ে চকরিয়া সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত বিজ্ঞ হাকিমকে তদন্তভার ন্যস্ত করেন।
মামলাসুত্রে জানা গেছে রাজাখালী ইউনিয়নের দশেরঘোনা এলাকার বাদশাহ মিয়ার ছেলে কবির হোছেনের সাথে গত বছরের  ৩০সেপ্টম্বর বারবাকিয়া ইউনিয়নের জালিয়াকাটা এলাকার মৃত শামসুল আলমের মেয়ে মালেকা সোলতানার বিয়ে হয়। সুখে শান্তিতে কিছুদিন তাদের দাম্পত্য জীবন কাটে। এরপর শুরু হয় মালেকার উপর পাষবিক নির্যাতন। দু’লক্ষ টাকা যৌতুকের জন্য চাপ প্রয়োগ করে যৌতুক লোভী স্বামী। যৌতুকের জন্য কয়েক দফা শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন চালানো হয় তার উপর।
স্ত্রী মালেকা সোলতানা জানায় দু’লক্ষ টাকা যৌতুকের জন্য ওইদিন আমাকে চাপ প্রয়োগ করে। আমি অপারগতা জানালেলোহার রড় ও লাঠি দিয়ে পিটিয়ে আমার স্বামী বাড়ি থেকে বর করে দেয়। বিয়ের পর থেকে যৌতুকের জন্য প্রায় সময় নির্যাতন চালাত। একবার সিএনজি কেনার কথা বলে বাপের বাড়ি থেকে টাকার আনার জন্য চাপ দেয়। টাকা না দিলে আমাকে তালাকে হুমকি দেয়। মায়ের কাছ থেকে গাড়ি কেনার জন্য দু’লাখ টাকা এনে দিয়েছি। আমার নামে গাড়ি কেনার কথা ছিল। কিন্তু সে প্রতারনা করে তার বাপের নামে ক্রয় করে। এখন আবারো দু’লাখ টাকার জন্য মারধর করছে।
বারবার তালাকের হুমকি দিচ্ছে। আমি চার মাসের অন্ত:সত্তা। মালেকা আরো জানায় কবির হোছন একজন মাদকাসক্ত। মাদক সেবন করে প্রতিনিয়ত আমার উপর নির্যাতন চালায়। সে পরকিয়ায় লিপ্ত। আমাকে না জানিয়ে এখন সে বিদেশ পাড়ি দেয়ার চেষ্টা করছে। যেকোন সময় দেশ ত্যাগ করতে পারে। মালেকার মা দিলদার বেগম জানায় বিয়ের পর থেকে যৌতুকের জন্য মারধর করত কবির হোছন।
মেয়ের সুখের জন্য বিয়ের কিছু দিন পর দু’লাখ টাকা দিয়েছি। আবারো দু’লাখ টাকা দাবি করছে। মেয়েটি এতিম। ছোটকালে তার বাবা মারা গেছে। ধার দেনা করে কষ্ট করে টাকা দিয়েছি। আরো টটাকা দিলে মেয়েকে তালাক দেবে বলেছে। আমি এত টাকা পাব কোথায়। বউকে না বলে চুরি করে বিদেশ পালানো চেষ্টা করছে।

Share this post

PinIt
scroll to top
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri