চকরিয়ায় র‌্যাবের অভিযানে অপহৃত শিশুকন্যা উদ্ধার : নারীসহ দুই অপহরণকারী গ্রেফতার

Chakaria-Picture-24-04-2018.jpg

এম.জিয়াবুল হক,চকরিয়া(২৪ এপ্রিল) :: চট্টগ্রামের সাতকানিয়া রাস্তাার মাথা এলাকা থেকে অপহরণের শিকার সাতবছরের শিশু কন্যা তছলিমা আক্তার মাইশাকে অবশেষে ঘটনার চারদিন পর সোমবার রাতে চকরিয়া থেকে উদ্ধার করেছে র‌্যাবের একটিদল। ওইসময় গ্রেফতার করা হয়েছে অপহরণের সাথে জড়িত নারীসহ চক্রের দুই সদস্যকে।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন চকরিয়া উপজেলার পালাকাটা গ্রামের বদিউল আলমের ছেলে মোঃ মমিনুল ইসলাম (১৯) ও একই এলাকার শাহাব উদ্দিনের স্ত্রী মনোয়ারা বেগম (৩৫)।

শিশুটিকে অপহরণের পর চক্রটি মুঠোফোনে পরিবারের কাছে প্রথমে দুইলাখ টাকা ও সর্বশেষ ৭০ হাজার টাকা মুক্তিপন দাবি করেছিলো বলে নিশ্চিত করেছেন র‌্যাব সেভেন কক্সবাজার ক্যাম্পের অধিনায়ক মেজর মো.রুহুল আমিন।

র‌্যাব সেভেন কক্সবাজার ক্যাম্পের অধিনায়ক মেজর মো.রুহুল আমিন বলেন, চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলার ঢেমশা ইউনিয়নের দাইমারখীল গ্রামের বাসিন্দা দরিদ্র রিক্সা চালক আবদুল গফুর পরিবার নিয়ে বসবাস করতেন সাতকানিয়া রাস্তার মাথা এলাকায়।

ঘটনার দিন ১৯ এপ্রিল বিকালে সাতকানিয়া রাস্তার মাথাস্থ বাসার সামনে খেলা করার সময় আবদুল গফুরের ফুটফুটে শিশু কন্যা মাইশাকে অপহরণ করে একটি চক্র। পরে তাকে নিয়ে যাওয়া হয় কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার পালাকাটা গ্রামে। এ অবস্থার কারনে শিশুটির সন্ধান না পেয়ে আতঙ্কিত হয়ে পড়ে পরিবার।

তিনি বলেন, শিশুটির সন্ধান পাওয়া যাচ্ছেনা এই ধরণের বিশদ বিবরণ তুলে ধরে গত ২০ এপ্রিল র‌্যাব-৭, কক্সবাজার ক্যাম্পে শিশুটির বাবা আবদুল গফুর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগে শিশুটির বাবা দাবি করেন, অপহরণকারী চক্র মুঠোফোনে মাইশাকে ছেঁেড় দেয়ার বিনিময়ে প্রথমে দুইলাখ ও সর্বশেষ ৭০ হাজার টাকা মুক্তিপন দাবি করেন। দাবীকৃত মুক্তিপণের টাকা না পেলে তারা শিশুটিকে হত্যা করবে বলে হুমকিও দেয়।

র‌্যাব কক্সবাজার ক্যাম্পের অধিনায়ক মেজর রুহুল আমিন বলেন, শিশুটির বাবার কাছ থেকে ঘটনার বিবরণ শুনে আমরা অপহৃত ওই শিশুটিকে উদ্ধারে ব্যাপক গোয়েন্দা নজরদারি শুরু করি। এরই মধ্যে অপহরণকারীদের ব্যবহৃত মুঠোফোনের অবস্থান সনাক্ত করে সোর্স মারফত নিশ্চিত হই অপহরণকারীদের আস্তানা চকরিয়া উপজেলার পালাকাটা গ্রামে।

এরপর সোমবার (২৩ এপ্রিল) রাতে চকরিয়া উপজেলার পালাকাটা গ্রামের একটি বাড়িতে অভিযান চালিয়ে অক্ষত অবস্থায় শিশুটিকে উদ্ধার করি। ওইসময় গ্রেফতার করা হয় নারীসহ অপহরণকারী চক্রের দুই সদস্যকে।

Share this post

PinIt
scroll to top