সারাবিশ্বে রেকর্ড ভাঙার হাতছানিতে ‘অ্যাভেঞ্জার্স : ইনফিনিটি ওয়ার

infinity-war.jpg

কক্সবাংলা ডটকম(২৫ এপ্রিল) :: সারাবিশ্বের মতো শুক্রবার বাংলাদেশেও মুক্তি পাচ্ছে মার্ভেল সুপারহিরোদের অ্যাডভেঞ্চার ‘অ্যাভেঞ্জার্স : ইনফিনিটি ওয়ার’। আর সিনেমাটির সামনে রয়েছে অনেক রেকর্ড ভাঙার হাতছানি।

ভ্যারাইটি জানায়, প্রথম তিনদিনে (উইকএন্ড) সিনেমাটির আয় দাঁড়াতে পারে সাড়ে ২২ থেকে সাড়ে ২৪ কোটি ডলার। অবশ্য এ অঙ্ক ২৫ কোটি ডলার ছাড়ালেও অবাক হওয়ার কিছু নেই। তাহলে হয়ে যাবে সর্বকালের অন্যতম ডেবিউ।

সিনেমাটির বাজেট ৩০ থেকে ৪০ কোটি ডলারের মধ্যে। সে হিসেবে লাভের মুখ দেখতে তাগড়া ঘোড়ার মতোই দৌড়াতে হবে। অবশ্য অগ্রিম টিকিট বিক্রি, দর্শক উম্মাদনা মিলে আশার আলো ঝিলিক দিচ্ছে নির্মাতাদের চোখে।

এখনো পর্যন্ত তিনদিনের আয়ে এগিয়ে আছে ২০১৫ সালে মুক্তি পাওয়া ‘স্টার ওয়ার্স : দ্য ফোর্স অ্যাওয়েকেন্স’। সিনেমাটি আয় করে ২৪.৮ কোটি ডলার। উত্তর আমেরিকায় আয় করে ৯৩.৬৬ কোটি ডলার। এখনো পর্যন্ত মাত্র ৫টি সিনেমা মুক্তির তিনদিনে ২০ কোটি ঘর ছুঁয়েছে। আশা করা হচ্ছে, ‘ইনফিনিটি ওয়ার’ এ তালিকায় স্থান করে নেবে।

‘ক্যাপ্টেন আমেরিকা : সিভিল ওয়ার’-এর দুই বছর পর ‍মুক্তি পাচ্ছে ‘ইনফিনিটি ওয়ার’। এতে অ্যাভেঞ্জারদের সঙ্গে যোগ দিয়েছে ‘গার্ডিয়ানস অব দ্য গ্র্যালাক্সি’র চরিত্র।

এতে আছে আয়রন ম্যান (রবার্ট ডাউনি জুনিয়র), থর (ক্রিস হেমসওয়র্থ), ক্যাপ্টেন আমেরিকা (ক্রিস ইভানস), ব্ল্যাক উইডো (স্কারলেট জোহানসন), ব্ল্যাক প্যান্থার (চাডউইক বোসম্যান), স্টার লর্ড (ক্রিস প্যাট), ডক্টর স্ট্রেঞ্জ (বেনেডিক্ট ক্যাম্বারব্যাচ), স্পাইডার-ম্যান (টম হল্যান্ড) ও হাল্ক (মার্ক রাফেলো)।

ক্রিস্টোফার মারকুস ও স্টিফের ম্যাকফিলির চিত্রনাট্যে ‘ইনফিনিটি ওয়ার’ পরিচালনা করেছেন দুই ভাই জো ও অ্যান্থনি রুসো।

‘ইনফিনিটি ওয়ার’ মার্ভেল সিনেমাটিক ইউনিভার্সের ১৯তম সিনেমা। আর ‘দ্য অ্যাভেঞ্জার্স’ (২০১২) ও ‘অ্যাভেঞ্জার্স : এইজ অব অলট্রন’ (২০১৫) সিক্যুয়াল।

মূল সিনেমা ‘অ্যাভেঞ্জার্স’ তিনদিনের আয়ে এখনো সিরিজ অন্যান্য কিস্তি থেকে এগিয়ে আছে। এটি আয় করেছিল ২০ কোটি ডলারের বেশি। দক্ষিণ আমেরিকায় আয় করে ৬২.৩ কোটি ডলারের বেশি। এদিকে ফেব্রুয়ারিতে মুক্তি পাওয়া ‘ব্ল্যাক প্যান্থার’-এর তিনদিনের আয় ছিল ২০ কোটি ডলার বেশি।

Share this post

PinIt
scroll to top