izmir escort telefonlari
porno izle sex hikaye
çorum sürücü kursu malatya reklam

পেকুয়ায় শিক্ষার্থীকে মারধর করে মোটর সাইকেল ছিনতাই

moto-cori.jpg
নাজিম উদ্দিন,পেকুয়া(২৭ এপ্রিল) :: পেকুয়ায় এক স্কুল ছাত্রকে মারধর করে মোটর সাইকেল, নগদ টাকা ও মোবাইল সেট ছিনিয়ে নিয়েছে দুর্বৃত্তরা।
২৬ এপ্রিল বৃহষ্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে এবিসি সড়কের মডেল কেজি স্কুল পয়েন্ট শিল্প মেলার মাঠে এ ঘটনা ঘটে। আহত শিক্ষার্থীর নাম মো.ইলিয়াস (১৬)।
তিনি মগনামা ইউনিয়নের মটকাভাঙ্গা এলাকার নুরুল আলমের ছেলে। ইলিয়াস পেকুয়া জিএমসি স্কুল থেকে চলতি বছরে এসএসসি পরীক্ষা দিয়েছেন।
ইলিয়াস জানায় ওইদিন সন্ধ্যায় পেকুয়া কলেজ গেইট চৌমুহীতে একটি মার্কেটে বসে গল্প করছিলাম। কিছুক্ষন পর আমার বন্ধু রাশেদ সাবেকগুলদি যাওয়ার কথা বলে আমার কাছ থেকে মোটর সাইকেল চায়।
দু’জনেই মোটর সাইকেল নিয়ে পেকুয়া মৌলভী পাড়া হয়ে সাবেকগুলদি যাচ্ছিলাম। চরপাড়া কালভার্ট সংলগ্ন স্থানে পৌঁছলে রাশেদের পিতা নুর মুহাম্মদ আমাদের গাড়ি থামাতে বলে। হাকাবকা করে আমাদের চৌমুহনী চলে আসতে বলে।
নুর মুহাম্মদ পুর্বে থেকে মোটর সাইকেল নিয়ে আমাদের অনুসরন করছিল। চৌমুহনীর কাছাকাছি আসলে কেজি স্কুল সংলগ্ন শিল্প মেলার দিকে গাড়ি ঢুকাতে বলে। মেলার মাঠে নানা অজুহাত দেখিয়ে লাঠি দিয়ে আমাকে এলোপাতাড়ি মারধর করে।
এ সময় আরো কয়েকজন লোক ছিল মাঠে। মুঠোফোন করে আরো কয়েকজনকে মাঠে নিয়ে আসে। এ সময় তারা আমার মোটর সাইকেল,নগদ টাকা ও মোবাইল সেট নিয়ে নেয়।
ইলিয়াস জানায় চৌমুহনীতে এসে বিষয়টি আমি ছাত্রলীগ নেতা বাপ্পী ও চাচা পেকুয়া সদর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি শহিদুল ইসলামকে জানাই। রাত ১১টার দিকে মোটর সাইকেল ও মোবাইল ফেরত দিয়েছে। কিন্তু টাকা দেয়নি।
শহিদুল ইসলাম জানায় বিষয়টি জানার পর আমি বাসা থেকে বের হই। কয়েকজনকে ফোনে বিষয়টি জানিয়েছি। অবশ্যই পরে তারা গাড়ি ও মোবাইল ফেরত দিয়েছে।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয়রা জানায় প্রতিদিন ওই পয়েন্টে এ ধরনের ঘটনা ঘটছে। ভয়ে কেউ মুখ খোলার সাহস পাচ্ছেনা। শিল্প মেলা থেকে আসার সময় কেজি স্কুল পয়েন্টে পথচারীদের আটকিয়ে স্বর্বস্ব ছিনিয়ে নিচ্ছে।

Share this post

PinIt
scroll to top
bedava bahis bahis siteleri
bahis siteleri