izmir escort telefonlari
porno izle sex hikaye
çorum sürücü kursu malatya reklam

মার্কিন এফ-৩৫ জঙ্গি বিমানে ভারতের আগ্রহ আছে কি ?

F35-deal-india-usa.jpg

কক্সবাংলা ডটকম(২৮ এপ্রিল) :: ভারতীয় বিমান বাহিনী (আইএএফ) লকহিড মার্টিনের এফ-৩৫ জঙ্গিবিমান কিনতে আগ্রহী – এ ধরনের যে রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে, বিমান বাহিনী আবারও তা নাকচ করে দিয়েছে। বিমান বাহিনীর প্রধান বি. এস. ধানোয়া ভারতীয় মিডিয়ার একাংশের এ ধরনের রিপোর্টের তীব্র সমালোচনা করে সেগুলো প্রত্যাখ্যান করেন।

নয়াদিল্লীতে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে বিমান বাহিনী প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল বি. এস. ধানোয়া বলেন, “এফ-৩৫ নিয়ে কোন আলোচনা হয়নি। এটার ব্যাপারে ভারতীয় বিমান বাহিনী কোন আগ্রহ দেখায়নি এবং কোন আলোচনাও হয়নি। এ ধরনের রিপোর্ট সম্পূর্ণ ভুল।”

ইন্দো-রাশিয়া ফিফথ জেনারেশান ফাইটার এয়ারক্র্যাফট (এফজিএফএ) প্রকল্পটি এক দশক ধরে ঝুলে আছে। এর অগ্রগতি সম্পর্কে প্রশ্ন করা হলে বিমান বাহিনী প্রধান বলেন, এ ব্যাপারে সিদ্ধান্তের দায়িত্ব ভারত সরকারের।

এয়ার চিফ মার্শাল ধানোয়া বলেন, “এফজিএফএ সিদ্ধান্ত নেয়ার দায়িত্ব সরকারের এবং এটি গোপনীয় বিষয়”।

গত সপ্তাহে ভারতীয় ডেইলি বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড এক রিপোর্ট প্রকাশ করে। সেখানে বলা হয়েছে, চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে ভারতের ন্যাশনাল সিকিউরিটি অ্যাডভাইজর অজিত দোভাল এবং প্রতিরক্ষা সচিব সঞ্জয় মিত্র এফজিএফএ নিয়ে রাশিয়ানদের এককভাবে এগিয়ে যেতে বলেছেন।

বিজনেস স্ট্যান্ডার্ডের রিপোর্টে বলা হয়েছে, “ভারত এ প্রকল্পে হয়তো আরও পরে যোগ দেবে। অথবা রাশিয়ান বিমান বাহিনীতে যুক্ত হওয়ার পর তৈরি বিমান সরাসরি কিনবে”।

ভারতীয় বিমান বাহিনী সম্প্রতি তাদের অগ্রাধিকার তালিকায় সংশোধনী এনেছে। সেখানে জঙ্গি বিমান কেনার পরেই রয়েছে দূরপাল্লার এসএএম এস-৪০০ সিস্টেম ক্রয়। ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর থেকে ৩৬টি রাফায়েল জঙ্গি বিমান কেনার প্রক্রিয়া শুরু হবে। আর অতিরিক্ত জঙ্গি বিমান কেনার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হবে আগামী দুই-তিন বছরের মধ্যে।

বর্তমানে ভারতীয় বিমান বাহিনীতে ৩১ স্কোয়াড্রন জঙ্গি বিমান রয়েছে। (প্রতি স্কোয়াড্রনে বিমান থাকে ১৮-২০টি)। তবে বাহিনীর জন্য প্রয়োজন ৪২ স্কোয়াড্রন বিমান।

Share this post

PinIt
scroll to top