কক্সবাজার সদরের ইসলামাবাদ বিএনপির নতুন কমিটিকে কেন্দ্র করে তীব্র অসন্তোষ

Edgao-news-cb-1.jpg

মো. রেজাউল করিম,ঈদগাঁও(১ মে) :: কক্সবাজার সদরের জাতীয়তাবাদী দল ইসলামাবাদ ইউনিয়ন শাখার নব ঘোষিত কমিটিকে কেন্দ্র করে অসন্তোষ ছড়িয়ে পড়েছে। পদ বঞ্চিতরা এ আংশিক কমিটি বিলুপ্ত করে ত্যাগী ও পরীক্ষিত নেতাকর্মীদের অন্তর্ভূক্তির মাধ্যমে পুনগর্ঠিত নতুন কমিটি ঘোষণার দাবী তুলেছেন।

ইউনিয়ন শাখাটির বিলুপ্ত কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ ছানা উল্লাহ বলেন, তিনি মরহুম শহিদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে বিএনপির সক্রিয় কর্মী হিসেবে কাজ করে আসছেন।

গত ২৮ মার্চ সাংগঠনিক উপজেলা সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক ফেইসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে ইসলামাবাদ কমিটি বিলুপ্ত করে দেন। তারপর সাবেক এমপি নতুন কমিটি করার জন্য ঈদগাঁওতে আসলে উপজেলা বিএনপি সাধারণ সম্পাদক শওকত আলম শওকত উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে কমিটি করা থেকে বিরত রেখে এমপি সাহেবকে আগামীতে হবে বলে দেন।

সর্বশেষ ২৭ এপ্রিল সাবেক এমপি উপজেলা বিএনপির শীর্ষ ৫ জনকে ডেকে ৩ মাসের জন্য সাবেক চেয়ারম্যান জাফর আলমকে প্রধান করে আহবায়ক কমিটি গঠনের নির্দেশ দেন।

যথারীতি সে কাজ চলতে থাকে। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য যে, এর ২দিন পর আরেকটি ফেইসবুক স্ট্যাটাসে ৫ জনকে দিয়ে ইউনিয়ন বিএনপির কমিটি গঠনের ঘোষণা দেন।

তার মতে, কমিটি গঠনের কথা ছিল গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায়। অথচ ঘোষণা করা হয়েছে পেট তান্ত্রিকভাবে। বর্তমান সাংগঠনিক উপজেলা বিএনপি সভাপতি শহিদুর রহমান শহিদ ও সাধারণ সম্পাদকের এমন স্বেচ্ছাচারিতা, আত্মীয়করণ ও সীমাহীন দূর্ণীতির কারণে বৃহত্তর ঈদগাঁওতে আজ বিএনপির এমন জ¦রাজীর্ণ অবস্থা।

তৃণমূলের নেতৃবৃন্দ রাতারাতি ঘোষিত এ কমিটি শীঘ্রই বাতিলের জোর দাবী জানিয়েছেন। তারা নবঘোষিত এ কমিটি মেনে নেননি। নেতৃবৃন্দের মতামতের আলোকে সুষ্ঠু. গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় তারা নতুন কমিটি গঠন করতে সাবেক এমপির দৃষ্টি আকর্ষন করেছেন।

এক লিখিত পত্রে তৃণমূলের নেতাকর্মীরা এ কমিটির প্রতি উষ্মা প্রকাশ করে বলেন, এতে ত্যাগী, পরীক্ষিত ও পরিচ্ছন্ন রাজনীতিবিদদের অবজ্ঞা ও অবহেলা করা হয়েছে যা কোনমতে মেনে নেওয়া যায় না। ইউনিয়নের প্রভাবশালী বিএনপি নেতা নুরুল আলমের মতে, তড়িঘড়ি করে এ কমিটি ঘোষণা করায় ব্যাপক রহস্যের জন্ম দিচ্ছে। এতে তৃণমূলের মতামতকে অবমূল্যায়ন ও উপেক্ষা করা হয়েছে। তাই সর্বত্র নতুন কমিটি গঠনের দাবী জোরদার হচ্ছে।

আরো যেসব নেতাকর্মীদের মাঝে এ কমিটি নিয়ে অসন্তোষ দেখা দিয়েছে তাদের মধ্যে রয়েছেন সদর উপজেলা বিএনপির সাবেক আহবায়ক এডভোকেট মোঃ সাহাব উদ্দীন, ওয়ার্ড বিএনপির সিনিয়র সদস্য আমিনুর রশিদ, ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক চাঁদ মিয়া, সাবেক মেম্বার ফরিদুল আলম, ৩নং বিএনপি সেক্রেটারী এচারুল হক নুরী, ৭নং সেক্রেটারী সরওয়ার কামাল, ৬নং ওয়ার্ড সেক্রেটারী আমিনুর রহমান, ৯নং ওয়ার্ড সেক্রেটারী সাবেক মেম্বার জসিম উদ্দীন, ২নং ওয়ার্ড সেক্রেটারী রফিক উদ্দীন কাজল, ২নং ওয়ার্ড সাংগঠনিক সম্পাদক এরফানুল হক মিটন, ৪নং ওয়ার্ড সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকুল আলম, ৬নং ওয়ার্ড সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল গফুর, ৪নং ওয়ার্ড সভাপতি আলতাজ আহমদ, ১নং ওয়ার্ড সভাপতি মমতাজ আহমদ, সিনিয়র সহ-সভাপতি আবদুচ শুক্কুর ও খোরশেদ আলম।

এদিকে উপজেলা বিএনপি সাধারণ সম্পাদক শওকত আলম জানান, তৃণমূলের বিএনপি নেতৃবৃন্দের মতামতের আলোকে সাবেক এমপির সাথে পরামর্শ করে নতুন এ আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে।

Share this post

PinIt
scroll to top