সিরিয়ায় থাকা ইরানের সামরিক ঘাঁটিতে ইসরায়েলের ব্যাপক বিমান হামলা

irn-isrl.jpeg

কক্সবাংলা ডটকম(১১ মে) :: ইসরায়েলের দখলকৃত গোলান হেইটসে ইরান রকেট হামলা চালানোর পর সিরিয়ায় থাকা ইরানের সামরিক ঘাঁটিতে ব্যাপক বিমান হামলা চালিয়ে হামলাস্থল গুড়িয়ে দেওয়ার দাবি করেছে ইসরায়েলের সেনাবাহিনী। বৃহস্পতিবার ভোরে ইরানের রেভ্যুলিউশনারি গার্ডের ছোড়া অন্তত ২০টি রকেট হামলার জবাবে এ হামলা চালানো হয়েছে বলে দাবি করেছে তারা। খবর ইসরায়েলের গণমাধ্যম হারেজের।

ইরানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী অ্যাভিগদার লিবারম্যান বলেছেন, বৃহস্পতিবার ইসরায়েলে হামলা চালানোয় সিরিয়ায় থাকা ইরানের সামরিক কাঠামো ধূলিষ্যাৎ করে দেওয়া হয়েছে। এ অধ্যায় এখন শেষ।

লিবারম্যান আরো বলেন, সিরিয়ায় ইরানের কোনো ধরনের গেড়ে বসাকে ইসরায়েল সহ্য করবে না। একইসঙ্গে ইরান কোনোভাবেই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে যেতে দিবে না।

ইসরায়েলের সেনাবাহিনী জানিয়েছে, ইসরায়েলের ভূমিতে হামলা চালানোয় সিরিয়ায় থাকা ইরানের কয়েক ডজন লক্ষবস্তুতে হামলা চালানো হয়েছে। তবে হামলার আগে তাদেরকে রাশিয়া আগে থাকতেই জানিয়ে দিয়েছে বলে অভিযোগ করেছে ইসরায়েল।

ইসরায়েলে হামলার জন্য সিরিয়ায় ইরান সমর্থিত আল কুদস বাহিনী ও ইরানের রেভ্যুলিউশনারি গার্ডের কমান্ডার কাশেম সুলাইমানি জড়িত বলে দাবি করেছে তারা।

এ সপ্তাহের শুরুতে ইসরায়েল জানিয়েছিল, অঞ্চলটিতে ইরানের সেনাবাহিনী সন্দেহজনক কর্মকাণ্ড পরিচালনা করছে। এরপর দেশটি সিরিয়া-ইসরায়েল সীমান্তে নিজেদের সামরিক উপস্থিতি জোরদার করে এবং বেসামরিক নাগরিকদের আশ্রয়ে পাঠিয়ে দেয়।

এর আগে গত মঙ্গলবার সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কর কাছে ইরানের একটি সামরিক ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় ইরান। কিসওয়াহ এলাকায় দুটি ক্ষেপণাস্ত্র ভূপাতিত করা হয়েছে বলেও দাবি করে সিরিয়া। ইসরায়েলি ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় দুই বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছেন।

তবে যুক্তরাজ্যভিত্তিক সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস জানিয়েছে, সিরিয়ায় ইরানের অস্ত্রঘাঁটিতে ইসরায়েলের ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় অন্তত ১৪জন সরকারপন্থী যোদ্ধা নিহত হয়েছে। নিহতদের মধ্যে ইরানের সেনাবাহিনীর ৮ জন এবং বেশ কয়েকজন বিদেশি নাগরিক নিহত হয়েছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে ইরান প্রতিশোধ নেওয়ার কথাও জানায়।

এদিকে ইসরায়েলে হামলার পর ইসরায়েলের নিরাপত্তা বাহিনী মুখ্পাত্র রোনেন ম্যানিলেস বলেন, আমরা এ ধরনের হামলার জন্য আগে থেকেই প্রস্তুত ছিলাম। তবে এ হামলার পুরোপুরি জবাব না দেওয়া পর্যন্ত আমরা থামবো না। ইতোমধ্যে তাদেরকে এ হামলার জন্য অনেক মূল্য দিতে হয়েছে। আমরা তাদের সবগুলো হামলাস্থলকে গুড়িয়ে দিয়েছি।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, ১৯৭৪ সালে সিরিয়ার সাথে যে চুক্তি হয়েছিল সিরিয়া তা লঙ্ঘন করেছে।

Share this post

PinIt
scroll to top