কাতার ও সৌদি আরবের মধ্যে যুদ্ধের আশঙ্কা

ksa-qtr.jpg

কক্সবাংলা ডটকম(২ জুন) :: রমজানের পবিত্র মাসেই পারস্য উপসাগরীয় এলাকার দুই মুসলিম রাষ্ট্রের মধ্যে সংঘাত তীব্র আকার নিল৷ সৌদি আরবের হুমকি উপেক্ষা করেই কাতারকে ক্ষেপণাস্ত্র সরবরাহ করবে পুতিনের দেশ৷

কোনওভাবেই এই পরিকল্পনা থেকে সরে আসা হবে না৷ এমনই জানালেন রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের ডেপুটি চেয়ারম্যান৷ এই খবর জানাচ্ছে আল জাজিরা৷ ফলে পারস্য উপসাগর এলাকায় নতুন করে সংকট তৈরি হতে চলেছে৷

রিপোর্টে বলা হয়েছে, নিরাপত্তার স্বার্থে কাতার সরকার যে এফ ৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র কিনতে চেয়েছে, তা বিক্রির পরিকল্পনা থেকে সরছে না রাশিয়া৷ এদিকে মিসাইল বিক্রি করা হলেই কাতারে হামলার হুমকি দিয়েছেন সৌদি আরবের বাদশা সলমন আজিজ৷

সৌদি হুমকি উড়িয়েই কাতারে ক্ষেপণাস্ত্র সরবরাহে অটল রাশিয়া৷ কাতারের ক্ষেপণাস্ত্র কেনার কর্মসূচি আরবের পক্ষে বিপজ্জনক বলে উদ্বিগ্ন সৌদি বাদশা৷ তিনি চিঠি লিখেছেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টকে৷

চিঠিতে অনুরোধ করে ফ্রান্স সরকারে যেন কাতারকে ক্ষেপণাস্ত্র কেনা থেকে বিরত থাকতে অনুরোধ করেন৷ চিঠিতে সৌদি বাদশা লিখেছেন, পরিস্থিতি কঠিন হল কাতারে সেনা অভিযান চালানো হবে৷ ফরাসি সংবাদপত্রে সেই চিঠি প্রকাশ হওয়ার পরই শোরগোল পড়ে যায় আন্তর্জাতিক রাজনীতিতে৷

মধ্যপ্রাচ্য বিশেষজ্ঞদের ধারণা, উপসাগরীয় অঞ্চলে সৌদি আরব বৃহত্তম ক্ষমতাশালী রাষ্ট্র৷ তার পূর্ব সীমায় থাকা কাতার একটি ক্ষুদ্র রাষ্ট্র৷ সেই রাষ্ট্র যদি এফ ৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র কেনে তাহলে চিন্তার কারণ রিয়াধের পক্ষে৷ এই ক্ষেপণাস্ত্র কিনতে মরিয়া আরব সরকার৷ রাশিয়ার সঙ্গে তাদের কথাও চলছে৷

এদিকে কাতার সরকার এই বিষয়ে কিছুই জানায়নি৷ তবে হুমকির পর দেশটির রাজধানী শহর দোহাতে ছড়িয়েছে প্রবল আলোড়ন৷ নতুন করে উপসাগরীয় যুদ্ধের আশঙ্কায় আরবের পূর্বপ্রান্তে ক্ষুদ্র দেশ কাতারে ছড়াচ্ছে আতঙ্ক৷

Share this post

PinIt
scroll to top
bahis siteleri