বিশ্বকাপ নকআউট পর্ব : ১০ ইউরোপিয়ান দলের বিপক্ষে ৪ লাতিন দলের লড়াই

world-cup-2ND-ROUND-FIXTURES-768x432.jpg

কক্সবাংলা ডটকম(৩০ জুন) :: চমক আর নাটকীয়তায় ভরপুর চলতি রাশিয়া বিশ্বকাপ। অনেক গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের ফল নির্ধারিত হয়েছে ইনজুরি টাইমে। বড় দলের সঙ্গে সমানতালে পাল্লা দিয়ে লড়াই করেছে ছোট দলগুলো। বিশ্বকাপ ইতিহাসে অন্যতম আলোচিত অঘটন ঘটেছে এ আসরেই। গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায় নিয়েছে গতবারের চ্যাম্পিয়ন জার্মানি।

বিশ্বকাপের সবচেয়ে ধারাবাহিক সর্বাধিক আট-আটবার ফাইনাল খেলা জার্মানি এখন শুধুই দর্শক। এতসব ঘটন-অঘটনের মাঝেও একটা জায়গায় কিন্তু বিশ্বকাপ ধরে রেখেছে তার ঐতিহ্য। এবারের শেষ ষোলোর লড়াই সেই চিরাচরিত ইউরো-লাতিনকে ঘিরেই।

নকআউট পর্বের ষোলো দলের মধ্যে ১০টি দলই ইউরোপের। বলাবাহুল্য, এবারের আসরে ইউরোপ থেকে এসেছিল ১৩ দল। এর পরই লাতিনের অবস্থান। এ মহাদেশ থেকে অংশ নেয়া পাঁচ দলের চারটিই জায়গা করে নিয়েছে নকআউট পর্বে। উত্তর-মধ্য ও ক্যারিবীয় অঞ্চল থেকে শুধু মেক্সিকো ছাড়পত্র পেয়েছে দ্বিতীয় রাউন্ডের। আফ্রিকা মহাদেশের পাঁচ দলই ঝরে পড়েছে প্রথম রাউন্ড থেকে। ফেয়ার প্লের সুযোগ কাজে লাগিয়ে এশিয়ার একমাত্র প্রতিনিধি হিসেবে শেষ ষোলোয় পৌঁছেছে জাপান।

দুর্দান্তভাবে শুরু করলেও অনেকটা ভাগ্যের ছোঁয়াতেই এখনো টিকে আছে মেক্সিকো ও জাপান। গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে দক্ষিণ কোরিয়ার বিপক্ষে জার্মানি জিতলেই বিদায়ঘণ্টা বাজত মেক্সিকোরও। কানের পাশ দিয়ে গুলি চলে গেছে জাপানেরও। সেনেগালের সঙ্গে পয়েন্ট, গোল ব্যবধান ও সংখ্যা— সবকিছুই সমান জাপানের।

কিন্তু আফ্রিকান দেশ সেনেগালের চেয়ে দুটো হলুদ কার্ড কম পাওয়ায় পরিচ্ছন্ন ফুটবল খেলার পুরস্কার পেয়েছে সূর্যোদয়ের দেশটি। তবে এ দুটো দল কতদূর যেতে পারবে, এ নিয়ে সংশয় থাকছেই। কেননা নকআউট পর্বে প্রথম পরীক্ষায় মেক্সিকোর প্রতিপক্ষ ব্রাজিল। হেক্সা মিশনে থাকা তিতের শিষ্যরা অপরাজিতভাবেই জায়গা করে নিয়েছে শেষ ষোলোয়। শক্ত পাল্লায় পড়তে হচ্ছে জাপানকেও।

তাদের প্রতিপক্ষ গ্রুপ পর্বে সবগুলো ম্যাচ জেতা বেলজিয়াম। চলতি আসরের অন্যতম ব্যালান্সড হিসেবেই বিবেচিত হচ্ছে এ দলটি। সব মিলিয়ে কোনো আপসেট না ঘটলে কোয়ার্টার ফাইনাল পর্বেই ইউরো-লাতিনের বাইরে অন্য মহাদেশীয় কোনো দলের উপস্থিতিই থাকার সম্ভাবনা নেই।

বেলজিয়াম ছাড়াও গ্রুপ পর্বে সব ম্যাচেই জয় পেয়েছে ক্রোয়েশিয়া ও উরুগুয়ে। শেষ আটে জায়গা করে নেয়ার লড়াইয়ে ক্রোয়েশিয়ার প্রতিপক্ষ ডেনমার্ক। লুকা মডরিচ-ইভান রাকিতিচ, ম্যাতিও কোভাসিচ সমন্বয়ে গড়ে ওঠা মধ্যমাঠ সামনে মারিও মান্দুজকিচরা এবারের আসরে নিজেদের প্রায় অপ্রতিরোধ্য করে তুলেছে।

এ অল ইউরো লড়াইয়ে ফেভারিট হিসেবেই মাঠে নামবে ক্রোয়াটরা। বড় চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হচ্ছে গ্রুপ পর্বে সবগুলো জয় পাওয়া উরুগুয়েকেও। দু-দুবারের বিশ্বজয়ী এ দলটির প্রতিপক্ষ ক্রিস্টিয়ান রোনালদোর পর্তুগাল। টিকে থাকার রেসে লিওনেল মেসিরও অগ্নিপরীক্ষা। তারকা ভরপুর ফ্রান্সের মুখোমুখি হতে হচ্ছে মেসির আর্জেন্টিনাকে।

শেষ ষোলোর লড়াইয়ে আরেক লাতিন দল কলম্বিয়া খেলবে ১৯৬৬-এর বিশ্বকাপ জয়ী ইংল্যান্ডের বিপক্ষে। এ দ্বৈরথের আগে ভারে-ঐতিহ্যে-পারফরম্যান্সে এগিয়ে ইংলিশরাই। শেষ আটে ওঠার যুদ্ধে অল ইউরো ম্যাচ তিনটি। ক্রোয়েশিয়া-ডেনমার্ক ছাড়াও মুখোমুখি হচ্ছে সুইডেন-সুইজারল্যান্ড ও স্পেন-রাশিয়া।

১০ ইউরোপিয়ান দলের বিপক্ষে চার লাতিন দল পরবর্তী রাউন্ডগুলোয় কীভাবে তুমুল প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়ে তুলতে পারে, তারই রুদ্ধশ্বাস অপেক্ষায় এখন ফুটবল বিশ্ব।

Share this post

PinIt
scroll to top