বিশ্বকাপ দ্বিতীয় রাউন্ড : ইংল্যান্ডের সামনে নির্ভীক কলম্বিয়া

ce.jpg

কক্সবাংলা ডটকম(৩ জুলাই) :: অনেকদিন ধরেই ফুটবলে বড় কোনো সাফল্য নেই ইংল্যান্ডের। সাম্প্রতিক সময়ে মিডিয়া ফেভারিট হিসেবে বড় মঞ্চে বারবার হতাশ করেছে ‘ত্রি লায়ন্স’দের পারফরম্যান্স। এবার অবশ্য গল্পটা বদলানোর ঘোষণা দিয়ে রাশিয়ায় আসেন হ্যারি কেন-স্টার্লিংরা। সে লক্ষ্যে তাদের শুরুটাও ভালো হয়েছে।

তিউনিসিয়ার বিপক্ষে ২-১ গোলের জয় দিয়ে শুরু। এরপর দ্বিতীয় ম্যাচে পানামাকে ৬-১ গোলে উড়িয়ে দিয়ে নিশ্চিত করে নকআউট পর্ব। শেষ ম্যাচে অবশ্য বেলজিয়ামের বিপক্ষে আর পেরে ওঠেনি সাউথগেটের দল। মূল একাদশের আটজনকে বাইরে রেখে খেলতে নামে ইংলিশরা।

যেখানে ১-০ গোলে হারের স্বাদ নিয়ে রানার্সআপ হয়ে সন্তুষ্ট থাকতে হয় ইংল্যান্ডকে। শেষ আটে ওঠার লড়াইয়ে আজ ইংল্যান্ডের প্রতিপক্ষ কলম্বিয়া, যাদের বিশ্বকাপ অভিযানও নাটকীয়তায় ভরপুর। শুরুটা হয় চমক দিয়ে। প্রথম ম্যাচেই অপেক্ষাকৃত দুর্বল জাপানের বিপক্ষে ২-১ গোলের হার। তবে পরের ম্যাচে শক্তিশালী পোল্যান্ডের বিপক্ষে কলম্বিয়া উপহার দেয় নিজেদের সেরাটা।

৩-০ গোলে জয়ে বিদায় নিশ্চিত করে দেয় লেভানডভস্কিদের। এরপর শেষ ম্যাচটি সেনেগালের বিপক্ষে ছিল বাঁচা-মরার। যেখানে দারুণ লড়াই করে কলম্বিয়া ম্যাচ জিতে নেয় ১-০ গোলে। সেই সঙ্গে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েই নিশ্চিত করে নকআউট পর্ব। এবার ইংল্যান্ডকে হারিয়ে আরো অনেকদূর এগিয়ে যেতে চায় তারা।

অতীতের যেকোনো সময়ের চেয়ে ইংল্যান্ড এবার ঐক্যবদ্ধ বলেও জানিয়েছেন দলের তারকা খেলোয়াড় জেসে লিনগার্ড। তিনি বলেন, ‘দল এখন দারুণভাবে উজ্জীবিত। সবাই এখন ঐক্যবদ্ধ আছে। প্রত্যেকের সঙ্গে প্রত্যেকের সম্পর্ক বেশ ভালো। মাঠে ও মাঠের বাইরে আমরা একে অন্যকে বেশ ভালোভাবেই জানি। প্রত্যেকের ভালো ও খারাপ গুণগুলো সম্পর্কে জানি। আমরা এখানে একটি পরিবারের মতো আছি। আমরা ভালো করছি। এটা একটা নতুন বিপ্লবের মতো। কোচ তার দারুণ চিন্তাভাবনা নিয়ে এসেছেন।’

এ ম্যাচে ইংল্যান্ডের জন্য বড় হুমকি হতে পারেন কলম্বিয়ান অধিনায়ক রাদামেল ফ্যালাকাও। তাকে নিয়ে লিনগার্ডের মত, ‘সে অসাধারণ খেলোয়াড়। বক্সের ভেতরে ফিনিশিংয়ে সে নিখুঁত। অবশ্যই আমরা এ বিষয়ে সচেতন আছি। সে হুমকি, তবে তাকে আটকানোর মতো খেলোয়াড় আমাদের দলে আছে। আমরা খেলব ভয়হীনভাবে, পূর্ণ স্বাধীনতা নিয়ে।’

এদিকে কলম্বিয়াও থামতে চায় না দ্বিতীয় রাউন্ডে। তারাও এগিয়ে যেতে চায় আরো অনেক দূর। সে লক্ষ্যে ইংল্যান্ডকে নিয়ে মোটেই ভীত নয় লাতিন দলটি। দলের গোলরক্ষক ডেভিড অসপিনা বলেছেন, ‘আমরা চার বছর আগের দলের চেয়ে ভালো। আমরা আরো শক্তি ও অভিজ্ঞতা নিয়ে ঐক্যবদ্ধ আছি।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের অভিজ্ঞতা ও গুণগত মান দুটোই আছে। আমাদের খেলোয়াড়রা পৃথিবীর সেরা সব ক্লাবে এবং লিগে খেলে। এ ধরনের ম্যাচ খেলতে তারা অভ্যস্ত। তাই কোনো কিছুই আমাদের ভীত করছে না। ইংল্যান্ড ভালো দল অবশ্যই। কিন্তু প্রতিপক্ষ কে, তা নিয়ে আমরা মোটেই ভাবছি না। আমরা কেবল জানি, আমাদেরকে দেশের জন্য সর্বোচ্চটুকু দিয়ে খেলতে হবে এবং সমর্থকদের কাছ থেকে অনুপ্রেরণা নিতে হবে।’ বিবিসি, দ্য সান

Share this post

PinIt
scroll to top