কক্সবাজারে পাহাড় কাটার দায়ে ৪ জনকে এক বছর জেল

41961423_1804565002945942_7849257955567337472_n.jpg

কক্সবাংলা রিপোর্ট(১৬ সেপ্টেম্বর) :: কক্সবাজার সদরে পাহাড় অবৈধভাবে পাহাড় কাটার দায়ে ৪ ব্যক্তিকে একবছর সাজা দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

রবিবার দুপুর আড়াইটা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত দর উপজেলার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও বিজ্ঞ নিবার্হী ম্যাজিস্ট্রেট জনাব হাবিবুল হাসান এবং পরিবেশ অধিদপ্তর কার্যালয় কক্সবাজারের সহকারি পরিচালক, জনাব সাইফুল আশ্রাব।নেতৃত্বে সদর উপজেলার আহমদ নবীর দখলীয় কর্তিত পাহাড় সদর উপজেলার, খাজা মঞ্জিল, বৈদ্ধঘোনা, ৯নং ওয়ার্ড (আল-আমিন একাডেমির পেছনে) এলাকায় সরকারি খাস খতিয়ানে অবৈধভাবে পাহাড় কাটার উপর মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়।

এসময় অবৈধভাবে পাহাড় কাটার দায়ে স্থানীয় বাদশাঘোনা এলাকার সুলতান আহমদের ছেলে মো. রফিক (২৮), একই এলাকার মৃত আবুল হোসেনের ছেলে মো. নবী হোসেন (২৬), সদরের লিংকরোড় দক্ষিণ মুহুরীপাড়া এলাকার মৃত আব্দুস সালামের ছেলে মো. জামাল হোসেন (২৬), ও একই এলাকার আবু বক্কর ছিদ্দিকের ছেলে মো. ফারুক (২৫)কে আটক করা হয়।

পরিবেশগত ছাড়পত্র ব্যতিরেকে সরকারি ১নং খতিয়ানের পাহাড় বিগত ২-৩ মাস যাবৎ প্রায় ২ গন্ডা পরিমান যার উচ্চতা প্রায় ১০০ ফুট কর্তন করে টিনের বাড়ী নির্মাণ করায় এবং অবৈধভাবে পাহাড় কাটায় বাংলাদেশ পরিবেশ সংরক্ষন আইন ১৯৯৫ (সংশোধিত ২০১০) এর ৬(খ), ১৫(১)৫ ধারা অনুযায়ী (১) মোঃ রফিক (২৮), (২) মোঃ নবী হোসেন (২৬), (৩) মোঃ জামাল হোসেন (২৬), (৪) মোঃ ফারুককে ১(এক) বছর করে বিনাশ্রম কারাদ- দেওয়া হয়।

এসময় ১টি সাবল, বেলচা ২টি, টিনের টুকরি ২টি, হাতুরি ১টি, সবুজ কালারের টিন-২টি ছোট ২টি, করাত ২টি, রাম দা ১টি। এসময় কক্সবাজার সদর থানার এস.আই. জনাব মোঃ মাজেদুলসহ সঙ্গীয় ফোর্স উপস্থিত ছিলেন।

জব্দকৃত মালামাল পরিবেশ অধিদপ্তরের হেফাজতে রয়েছে।

উক্ত মোবাইল কোর্ট অভিযানে বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নির্দেশে পাহাড় কর্তন করে নির্মিত টিনের ঘরটি ভেঙ্গে দেয়া হয়। সরকারি পাহাড়ের অবৈধদখলদার ও সরকারি পাহাড় কর্তনকারীদের বিরুদ্ধে বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়মিত মামলা দায়ের করার নির্দেশ প্রদান করেন, মামলা দায়ের প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

Share this post

PinIt
scroll to top